ভারতে বিধানসভায় নামাজের ঘর বরাদ্দ; ক্ষেপে রাস্তায় নামলো বিজেপি

অনলাইন ডেস্ক :
ভারতে বিধানসভায় নামাজের ঘর বরাদ্দ; ক্ষেপে রাস্তায় নামলো বিজেপি !
ভারতের ঝাড়খণ্ড বিধানসভায় নামাজের ঘর বরাদ্দ দেয়াকে কেন্দ্র করে তৈরি হয়েছে ব্যাপক বিতর্ক। মুসলিম বিধায়ক আর কর্মীদের নামাজের জন্য স্পিকার একটি ঘর ব্যবহারের অনুমোদন দেন। এর প্রতিবাদ জানিয়ে রাস্তায় নামে বিজেপি। উল্টো বিধানসভা ভবনে মন্দির স্থাপনের দাবি জানায় তারা। এর জেরে বিভিন্ন রাজ্যে নামাজ ঘর আর মন্দির নির্মাণের দাবিতে সরব হয়েছেন অনেকে। বিধান সভা চলাকালিন মুসলিম বিধায়ক দের নামায যেন কাজা না হয় এই জন্য স্পীকার এর কাছে নামায ঘরের আবেদন করাহয় পরে স্পীকার রবিন্দ্রনাথ মাহাত্ম এতে ক্ষেপে যায় বিজিপি
এই সময় বিধান সাভা ভবনের উল্টো হনুমান মন্দির করে দেয়ার দেয়ার দাবী জানান বিজিপি ।
রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ এবং বিক্ষোব করেন বিজিপি এর জের ধরে রাজ্য ক্ষমতায় থাকা ঝারখণ্ড মুক্তি মোঞ্চা।
ঝাড়খণ্ড এই টানা পরনের মধ্যেই উত্তর প্রদেশ ও বিহারে বিধান সভা ভবনে মসজিদ ও মন্দির জায়গা বরাদ্দের দাবী উঠেছে । বিজিপি বিধায়ক বলছেন কোন একটা শ্রেনীর জন্য নামায ঘর করে দেয়ার সিদ্দান্ত গনতান্ত্রীক মূল্যবোধের সাংঘষিক ,
ভারতের সংবিধান কে অমান্য করা হয়েছে ,নামাযের জন্য যদি ঘর হয় তবে পূজার জন্য মন্দির কেন পাইবো না বলছেন বিজিপির সমার্থক , ভারতে মুসলিম চর্চা বন্ধের জন্য বিজিপির এই অপচেষ্টা বলছেন মুসলিম বিধায়াক ভারতের এতো মন্দির গীর্জা নির্মান হয়েছে
তখন তো কোন প্রশ্ন তুলেনাই কেউ তাহলে এখন কেন বিজিপি বিতর্ক ছড়াছে ,একজন মুসলিমের দৈনিক পাচঁ ওয়াক্ত নামায আদায় করতে হয় বাদ দেয়ার কোন সুযোগ নেই তাই বাদ যেন না যায় তাই এই জন্য বিধান সভায় নামায ঘর রাখা হয়েছে ।এর মধ্যেই ঝাড়খণ্ড বিধান সভা উদ্দগের বিরোধিতা করে মামালা দায়ার করা হয়েছে কিন্ত স্পীকার দাবী করেছেন আগের ভবনে ও মুসলিম কর্মচারীদের জন্য একটি নামায ঘর ছিলো,তাই নতুন ভবনেও নামায ঘর রাখা হয়েছে
এছাড়া বিহারের বিধানসভাতে ও নামাযের জায়গা

Spread the love

পাঠক আপনার মতামত দিন