কাঁদলেন মেসি বিদায়ী সংবাদ সম্মেলনে

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক- বার্সেলোনায় বিদায়ী সংবাদ সম্মেলনে কাঁদলেন লিওনেল মেসি। আর কাঁদালেন ন্যু-ক্যাম্পের বাইরে ভিড় জমানো সমর্থকদের।

রোববার বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে কান্নাভেজা চোখে মেসি জানান তার ছোটবেলার ক্লাব বার্সেলোনায় থেকে যাওয়ার পুরো ইচ্ছা ছিল। লা লিগার নতুন নিয়মের কারণে তেমনটা হয়নি। ফলে ২১ বছরের সম্পর্ক ছিন্ন করে বার্সেলোনা ত্যাগ করছেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার।

সংবাদ সম্মেলনে কথা শুরু করার আগেই কেঁদে ফেলেন মেসি। এরপর বলেন, ‘এভাবে বিদায় নিতে হবে কখনো ভাবিনি। মনে হয় না কেউই ভেবেছে। চেয়েছিলাম মাঠ ভর্তি দর্শকের অভ্যর্থনার মধ্যে বিদায় নিতে।’ আবার কান্নায় ভেঙে পড়েন মেসি।

সর্বকালের অন্যতম সেরা এই তারকা বলেন, ‘দেড় বছর ধরে মাঠে দর্শকদের দেখতে পাইনি। তাদের না দেখে বিদায় নিতে হচ্ছে। এটাই বেশি কষ্ট দিচ্ছে।

মেসি বলেন, ‘আমি খুবই কষ্ট পাচ্ছি। এই ক্লাব ছেড়ে যেতে চাইনি। আমি বার্সেলোনাকে ভালোবাসি এখানেই থাকতে চেয়েছি। আমার চুক্তিও প্রস্তুত ছিল। ছুটি থেকে ফিরে আসার পর সব ঠিকঠাক ছিল কিন্তু শেষ পর্যন্ত কিছু হলো না।’

বিশ্বকাপ ফাইনাল ও কোপা আমেরিকা ফাইনাল হারের পরও বার্সেলোনা ছাড়ার দিনটিকেই জীবনের সবচেয়ে কঠিন বলে জানালেন মেসি। এখনও এই কিংবদন্তির বিশ্বাস হচ্ছে না প্রিয় কাম্প ন্যুয়ে আর ফিরবেন না।
তিনি বলেন, ‘জীবনে অনেক হার-জিতের মধ্যে দিয়ে গেছি। কিন্তু পরদিন অনুশীলনে নেমে সব ভুলে গেছি। আমি এখানে আর অনুশীলনে আসব না, মাঠে নামব না। এই ক্লাবের হয়ে আর খেলব না। এটাই আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে কঠিন মুহূর্ত।’

ফুটবলার হিসেবে বার্সেলোনায় ফেরার সম্ভাবনা খুবই কম মেসির। ৩৪ বছরের এই ফুটবলারকে হয়তো আগামী ২-৩ বছর পিএসজি বা অন্য কোনো দলের জার্সিতে দেখা যাবে। তবে বুটজোড়া তুলে রাখার পর আবারও ফিরতে চান প্রিয় বার্সেলোনায়।

মেসি যোগ করেন, ‘গত বছর আমি ক্লাব ছাড়তে চেয়েছি কিন্তু এই বছর সব পালটে গিয়েছিল। আমি বুঝতে পেরেছি যে এটা আমার ঘর আর আমি বার্সেলোনাকে কতটা ভালোবাসি। ২১ বছর ধরে আমি এখানে আমার স্ত্রী ও তিন আর্জেন্টাইন-কাতালান সন্তানকে নিয়ে থাকি। আমরা আবারও ফিরব। আমার সন্তানদেরও আমি একই কথা দিয়েছি।’

শৈশব থেকে লিওনেল মেসি বার্সেলোনাতেই খেলেছেন। চলতি বছরের পহেলা জুলাই থেকেই লিওনেল মেসি ফ্রি এজেন্ট, অর্থাৎ কোন ক্লাবের সাথেই আর চুক্তিবদ্ধ নন।

শুক্রবার বার্সেলোনা প্রেসিডেন্ট হোয়ান লাপোর্তা বলেন, লিওনেল মেসিকে এবার রাখা হলে ক্লাব অন্তত ৫০ বছরের ঝুঁকিতে পড়ে যেত। ঝুঁকি বলতে তিনি অর্থনৈতিক ঝুঁকির কথাই বলেছেন।

লিওনেল মেসি বেতন কমিয়ে বার্সেলোনার সাথে পাঁচ বছরের চুক্তি করতে সম্মত হয়েছিলেন বলে খবর পাওয়া যায়, কিন্তু মেসিকে রাখতে বার্সেলোনাকে তাদের বেতন কাঠামোতে রদবদল আনতে হতো।

আর্জেন্টিনার অধিনায়ক লিওনেল মেসি বার্সেলোনার হয়ে ৬৭২ গোল করেন, ১০টি লা লিগা শিরোপা জেতেন, চারটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ট্রফি জেতেন। এছাড়া ছয়বার ব্যালন ডি অরও পান তিনি।

Spread the love

পাঠক আপনার মতামত দিন