মাক্স পরিয়ে ছাত্র – ছাএী দের বরন করে নিলেন শরীয়তপুরের ভেনপা নাছির উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক দিলীপ কুমার সিকদার

নিউজ২৪লাইন:
মাক্স পরিয়ে দিয়ে বরন করা হলো শরীয়তপুরের ভেনপা নাছির উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের।
শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার -ভেনপা নাছির উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হাতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাক্স তুলে দেন বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক দিলীপ কুমার সিকদার, এসময় প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকগণ উপস্থিত ছিলেন মহদয় উপস্থিত দশম ও এস,এস,সি পরীক্ষার্থী ২০২১এই দুই শ্রেনীর সকল ছাত্র/ছাত্রীর তাপ মাত্রা পরীক্ষা করে নিজ হাতে মা�ক্স পরিয়ে দিয়ে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জ্ঞাপন করে বিদ্যালয়ে প্রবেশ করানো হয়েছে ।
শরীয়তপুর-২ আসনের এমপি পানি সম্পদ এর উপ মন্ত্রী এনামুল হক শামীম এর পক্ষ থেকে সবাই কে
মাক্স বিতরন করা হয় । ভেনপা নাছির উদ্দিন উচ্চ উচ্চ বিদ্যালয়ের , ১২ই সেপ্টেম্বর রবি বার শিক্ষামন্ত্রী ও বাংলাদেশ সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযাই খুলে দেয়া হয় দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো।
৩ সেপ্টেম্বর শিক্ষামন্ত্রী ডা.দীপু মনি ঘোষনা অনুযায় রবি বার অপেক্ষার পহর শেষ হলো দেশের প্রতিটা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে আনন্দের বন্যা বইছে আনন্দে উল্যাসিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো ,দৃর্ঘ্য ১৮ মাস /প্রায় দেড় বছর পর খুলে দেয়া হলো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো । দৃর্ঘ্য দিন করোনার মহামারীর ভয় কে জয় করে আবার পাঠদান হবে প্রতিটা শ্রেনী কক্ষে আনন্দঘন পরিবেশে ।
সরকারী স্বাস্থ্য বিধি মেনে এবং সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে শুরু হলো মূল পাঠ দান ।
এই মহামারীর কারনে দেশের অনেক শিক্ষার্থী হাল ধরেছে সংসারের। যে কচি হাতে বই খাতা আর কলম ধরার কথা সেই হাতে অনেকেই ধরেছে ভ্যান কিংবা অটোগাড়ির হ্যান্ডেল। অনেকেই বেছে নিয়েছে ঝুঁকিপূর্ণ নানান পেশা। কেউ বা শিকার হয়েছে বাল্য বিয়ের। তাদের ফিরে আসা ও শিক্ষামুখী করা নিয়ে অনেকেই রয়েছেন সংশয় ও শঙ্কা।প্রতিটা অভিভাবকে নুটিশ দিয়ে শিক্ষার্থীদেরকে স্কুলে ফিরিয়ে
আনার চেষ্টা করা উচিৎ।
টানা প্রায় ১৮ মাস বন্ধের পর রবিবার খুলেছে দেশের সব স্কুল ও কলেজ। এ কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে চলছে উৎসবের আমেজ। শিক্ষক ও কর্মচারীরা শিক্ষার্থীদের বরণ করে নিয়েছেন। শিক্ষার্থীদের স্কুলগুলোতে স্বাস্থবিধি মেনে প্রবেশ করছে। প্রাণোচ্ছল রুপ ফিরে পেয়েছে শিক্ষাঙ্গন। প্রতিটা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে থাকবে সারপ্রাইজ
ভিজিট ,কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতাসহ স্বাস্থ্যবিধি মানায় অবহেলা করা হলে, সংশ্লিষ্টদের ও তার কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে । কঠর হুশিয়ার মাধ্যেম
ছাত্র/ছাত্রী দের সচেতন করতে হবে ,মাক্স পরা,হাত ধুয়া ,হাতে স্যানেটাইজার ব্যবহার করা ,সামাজিক দুরত্ব
রেখে পাঠ দান করা সব কিছুর উপরে করা নজর রাখতে হবে ।

Spread the love

পাঠক আপনার মতামত দিন