ভেদরগঞ্জের মাঠে রয়েছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও পুলিশ

আমান আহমেদ সজিব।।   

শরীয়তপুর জেলায় করোনা সংক্রমণ থেকে উপজেলাকে  নিরাপদ ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার লক্ষে প্রথম দিন থেকেই মাঠে নেমে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানভীর আল নাসীফ ও সহকারী ভুমি মেজিস্টিস শংকর চন্দ্র বৈধ ও ভেদরগঞ্জ, সখিপুর থানা পুলিশ। 

 

সরকারের আট দিনের ঘোষিত লকডাউনের ৫ম দিন। প্রতিদিনের ন্যায় আজও মাঠে দেখা গেছে  পুলিশ, উপজেলার সকল গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বসানো হয়েছে পুলিশি চেকপোস্ট। প্রয়োজন ব্যতীত বাহিরে অবস্থান করলেই নেওয়া হবে আইনি ব্যবস্থা। ভেদরগঞ্জের আওতাধীন করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দক্ষিণ তারাবুনিয়া ইউনিয়ন এর পরিষদ বাজার, মাল বাজার,  উত্তর তারাবুনিয়া ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান বাজারে লকডাউন বাস্তবায়ন এবং স্বাস্থ্য বিধি প্রতিপালনে মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হয়েছে।এলাকার জনসমাগম নিয়ন্ত্রন এবং আইন বহির্ভূত যান চলাচল ঠেকাতে সকাল থেকেই পুলিশ কে দেখা গেছে সতর্ক অবস্থানে।

 

এ সময় সর্ব সাধারণকে ঘরমুখী করতে সচেতনতামূলক প্রচারণা, অনুমতি বিহীন যানবাহন আটক সহ নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

 

এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানভীর আল নাসীফ  বলেন,আসুন আমরা বৈশ্বিক এই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ হতে দেশ ও নিজেকে রক্ষা করতে আরো বেশি সচেতন হই, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি, বিনা প্রয়োজনে ঘর থেকে বাহির না হই এবং অতি প্রয়োজনে বাহিরে যেতে হলে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করি। মনে রাখবেন আমরা সচেতন হলেই বাঁচবে দেশ। সকল থানা এলাকার জনসমাগম নিয়ন্ত্রন এবং আইন বহির্ভূত যান চলাচল ঠেকাতে সকাল থেকেই পুলিশ কে দেখা গেছে সতর্ক অবস্থানে।

 

এ সময় সর্ব সাধারণকে ঘরমুখী করতে সচেতনতামূলক প্রচারণা, অনুমতি বিহীন যানবাহন আটক সহ নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

 

এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানভীর আল নাসীফ  বলেন,আসুন আমরা বৈশ্বিক এই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ হতে দেশ ও নিজেকে রক্ষা করতে আরো বেশি সচেতন হই, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি, বিনা প্রয়োজনে ঘর থেকে বাহির না হই এবং অতি প্রয়োজনে বাহিরে যেতে হলে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করি। মনে রাখবেন আমরা সচেতন হলেই বাঁচবে দেশ।

Spread the love

পাঠক আপনার মতামত দিন