শরীয়তপুরে অতি দরিদ্র কর্মসংস্থান প্রকল্পের কাজে অনিয়ম কেউ দেখার নাই।

শরীয়তপুর সদর উপজেলায় পালং ইউনিয়ন ২নং ওয়ার্ড কোটাপাড়া গ্রামে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম এর যোগসাজসে অতি দরিদ্র কর্মসংস্থান কর্মসূচী প্রকল্পে মাটির রাস্তা নির্মাণ কাজে ভেকু মেশিন ব্যবহার করে মুক্তিযোদ্ধার পুত্রবধু বিধবা রেহেনা বেগম (৩০) নামে এক নারীর বসত ভিটা দখলের পাইতারা করছেন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল হোসেন দেওয়ান ও তার সহোচরগণ।

২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে ২য় পর্যায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের অধীনে অতি দরিদ্র কর্মসংস্থান প্রকল্পের আওতাধীন শরীয়তপুর সদর উপজেলার পালং ইউনিয়নের অতি দরিদ্রদের কর্মসংস্থান ও জনগণের দুর্ভোগের বিষয়টি চিন্তা করে ৩টি মাটির রাস্তা নির্মাণ ও পূন:নির্মাণের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে শরীয়তপুর সদর প্রকল্প বাস্তবায়ন কার্যালয়। নজরুল ইসলাম।

পালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল হোসেন দেওয়ান, প্রকল্পের নীতিমালা অমান্য করে অসদ পন্থায় অর্থ আত্মসাতের উদ্যেশ্যে, যথাসময়ে প্রকল্পের কাজ শুরু না করে পহেলা জুন মঙ্গলবার কোটাপাড়া গ্রামে ভেকু মেশিন দিয়ে রাস্তা নির্মাণ কাজ শুরু করলে, রেহেনা বেগম নামে এক বিধবা মুক্তিযোদ্ধা পুত্রবধুর ৬ শতাংশ ভিটে বাড়ী থেকে প্রায় ২ শতাংশ জমি জোড় পূর্বক মাটি কেটে রাস্তা নির্মাণের চেষ্টা করলে।

রেহেনা বেগম রাস্তা নির্মাণ কারীদের বাধা দিতে আসলে, রাস্তা নির্মাণকারী, মুনসুর পেদা ও চেয়ারম্যান আবুল হোসেন দেওয়ানের সহোচরগণ রেহেনা বেগমকে লাঞ্চিত করে। শুধু তাই নয় প্রতিবেশী আলমগীর খলিফার স্ত্রী সালমা বেগমকে শারিরীক ও মানুষিক নির্যাতন করে। এই ঘটনায় ভুক্তভুগী সালমা বেগম পালং মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে।

পালং ইউনিয়নে যে ৩টি প্রকল্প বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে, প্রকল্পগুলো হলো ২নং ওয়ার্ড মুনসুর পেদার বাড়ী হইতে পশ্চিম দিকে আবুল বাশার কাইতের বাড়ী অভিমুখী মাটির রাস্তা নির্মাণ। শ্রমিক সংখ্যা ৩০ জন, ৪০ কার্য দিবসে শ্রমিকের সর্বমোট মজুরী ধার্য করা হয়েছে ২,৪০,০০০/- টাকা।

৪নং ওয়ার্ড আটিপাড়া হাসেম শেখ এর বাড়ী হতে পশ্চিম দিকে হযরত আলী বাড়ী অভিমুখী মাটির রাস্তা নির্মাণ, শ্রমিক সংখ্যা ৪০ জন, ৪০ কার্য দিবসে শ্রমিকের সর্বমোট মজুরী ধার্য করা হয়েছে ৩,২০,০০০/- টাকা।

৮নং ওয়ার্ড চাদসার আমীর আলী সরদার এর বাড়ী হতে পূর্ব দিকে ওহাব খান এর বাড়ী অভিমুখী মাটির রাস্তা নির্মাণ, শ্রমিক সংখ্যা ৩০ জন, ৪০ কার্য দিবসে শ্রমিকের সর্বমোট মজুরী ধার্য করা হয়েছে ২,৪০,০০০/- টাকা। আটিপাড়া ও চাদসার গ্রাম দুটি প্রকল্প সরজমিন ঘুরে দেখা যায় উক্ত প্রকল্পে এখন পর্যন্ত নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়নি।

প্রকল্পের সভাপতি সংরক্ষিত সদস্য ফিরোজা বেগম গণমাধ্যমকে বলেন, চেয়ারম্যান আবুল হোসেন দেওয়ান আমার অজান্তে আমাকে প্রকল্পের সভাপতি বানিয়েছেন, এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না।

এ ব্যপারে পালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল হোসেন দেওয়ানের কাছে রাস্তা নির্মাণ কাজে অনিয়ম মুক্তিযোদ্ধার পুত্রবধু রেহেনা বেগমের ভিটা বাড়ী দখল ও লাঞ্চিত করার বিষয়টি জানতে চাইলে চেয়ারম্যান আবুল হোসেন দেওয়ান বিষয়টিকে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন।

সাপ্তাহিক রুদ্রকন্ঠ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক এস,এম, শফিকুল ইসলাম স্বপন সরকার ও দৈনিক ভোরের সময় পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি আব্দুল বারেক ভূইয়া সংবাদ সংগ্রহের জন্য ঘটনা স্থানে গেলে শরীয়তপুর সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম সাংবাদিকদেরকে ঘটনা স্থান থেকে চলে যেতে বলেন এবং এ ব্যপারে কোন বক্তব্য দিতে অপরাগ প্রকাশ করেন।

শরীয়তপুর জেলা ত্রাণ ও পুর্ণবাশন কর্মকর্তা এ.বি.এম সিরাজুল হক এর সাথে মুঠোফনে আলাপকালে তিনি বলেন, আগামীকাল সরজমিনে গিয়ে বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা।

সুএঃ আজকের শরীয়তপুর

Spread the love

পাঠক আপনার মতামত দিন