ডামুড্যায় দুই নারীকে মারধর-বাড়িঘর ভাঙচুরের অভিযোগ স্থানীয় প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে

বিশেষ প্রতিনিধি

শরীয়তপুরের ডামুড্যায় জমি নিয়ে বিরোধের জেরে দুই নারীকে মারধর ও বাড়িঘর ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে।
গত সোমবার (২৪ জুন)দুপুর ৩ ঘটিকায় ডামুড্যা উপজেলার চর ধানকাঠি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ২৭ জুন অভিযুক্ত করে আদালতে মামলা করেন চর ধানকাঠি গ্রামের সুমাইয়া আক্তার (২২)।
অভিযুক্তরা হলেন,১। সালাম ঢালী (৫৪)২।লিপি বেগম (২৫), ৩। আলেয়া বেগম(৩৫), ৪। ফাতেমা বেগম (২৪) ৫। আকাশ চৌকিদার(১৯)৬। তাজুল ইসলাম সরদার (৫৩)৭। সুজন সরদার(২০)সর্ব সাং ডামুড্যা থানার চর মালগাও হাওলাদার কান্দি।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়,গত সোমবার(২৪ জুন)দুপুর ৩ ঘটিকায় জমি নিয়ে বিরোধের জেরে ভূমি দস্যু অভিযুক্তরা লাঠিসোঠা ও দেশীয় অস্ত্র হাতে নিয়ে সুমাইয়া আক্তার এর স্বামীর বসত বাড়িতে প্রবেশ করে তাকে অশ্লীল ভাষায় গাল মন্দ করতে থাকে৷ এ সময় সুমাইয়া আক্তার বাড়ি থেকে বের হয়ে গাল মন্দের প্রতিবাদ করলে ১নং আসামির হুকুমে অভিযুক্তরা সবাই তাঁকে এলোপাথাড়ি ভাবে লাথি ঘুষি দিয়ে মারধর করে শরীরের বিভিন্নস্থানে রক্তাক্ত যন্ত্রনা দায়ক জখম করে।

পরে সুমাইয়া আক্তার চিৎকার করলে তার শ্বাশুড়ি মাজেদা বেগম এগিয়ে এসে অভিযুক্তদের হাত থেকে রক্ষা করতে গেলে তখন অভিযুক্তরা তাঁকেও মারধর করে ছেনতা দিয়ে মাথায় আঘাত করলে তিনি মারাত্নক ভাবে রক্তাক্ত হয়ে জখম হোন।পরবর্তীতে এই সুযোগে অভিযুক্তরা তাদের গলায় রক্ষিত ২ ভরি চেইন ছিনিয়ে নিয়ে বাড়ির দরজা ভেংগে আলমারি থেকে দুই লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা ও সোকেস থেকে দুইটি মোবাইল ফোন যার মূল্য ষাইট হাজার টাকা নিয়ে বাড়ি ঘর লুটপাট করে ভাংচুর করে।
পরে কান্নাকাটির ডাক চিৎকারে অভিযোগের সাক্ষীরা সহ আশপাশের লোকজন এসে অভিযুক্তদের হাত থেকে তাঁদের রক্ষা করে। এ সময় অভিযুক্তরা খুন জখমের ভয়ভীতি প্রদর্শন করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে ।পরে এলাকাবাসী সুমাইয়া আক্তার ও তার শ্বাশুড়ি মাজেদা বেগম কে উদ্ধার করে ডামুড্যা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক দু’জনকে ভর্তি রাখে।
ডামুড্যা থানার এস আই শরিফুজ্জামান বলেন, আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছি সব কিছু সরেজমিনে দেখেছি।

Spread the love

পাঠক আপনার মতামত দিন