ফরিদপুরে আওয়ামী লীগ নেতা’সাকিব আহমেদ(সেকেন মোল্লা)’কে হত্যা চেষ্টাকারীদের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন 

মো:টিটুল মোল্লা,ফরিদপুর।।

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ফরিদপুর সদর উপজেলার কানাইপুর ইউনিয়নের “কানাইপুর বাজার বনিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক ও শামীম হক ফ্যান্স ক্লাবের কানাইপুর ইউনিয়ন শাখার সভাপতি “সাকিব আহমেদ (সেকেন মোল্লা)’কে কুপিয়ে গুরুতর আহত ও হত্যার চেষ্টার প্রতিবাদে মানবন্ধন ও এক প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৬ জুলাই শনিবার বিকালে কানাইপুর এলাকাবাসী ব্যানারে এ মানবন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মানবন্ধনে বক্তারা বলেন গত ৪ (জুলাই)বৃহস্পতিবার আনুমানিক রাত ১০-৩০ মিনিটের দিকে কানাইপুর হলপট্টির সামনে রাস্তার উপর রানদা,চাপাতি, ছুড়ি দিয়ে এলোপাতাড়ি ভাবে সেকেনকে কুপিয়ে পালিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। এদের মধ্যে ছিলো কানাইপুর মালাঙ্গা’র বাসিন্দা বাবলু বিশ্বাসের ছেলে আরিফ বিশ্বাস(৩২), আনজার আলীর বিশ্বাসের ছেলে তানভীর বিশ্বাস(২৭), বাকি মোল্লার ছেলে ইলিয়াস মোল্লা (৩২), বাকি মোল্লার ছেলে পারভেজ মোল্লা(২৭) সহ আরো অজ্ঞাত ৮ থেকে ১০ জনের একটি সংঘব্ধ দল মিলে রানদা,চাপাতি,ছ্যান,ছুড়ি দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়। বক্তারা সেকেনকে একজন নম্র ভদ্র ও একজন বিশিষ্ঠ সমাজসেবী আখ্যায়িত করে তারা বলেন শান্ত কানাইপুরকে অশান্ত করার জন্য একদল মাদকসেবী দিনের পর দিন অসহায় মানুষের উপর অত্যাচার চালিয়ে আসছে। আজ সেকেসেন উপর হামলা হয়েছে। কাল আমার আপনার উপরও এ ধরনের হামলা করবে। তাই এ ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত দোষিদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানান বক্তারা। একই সাথে বক্তারা হুশিয়ারী দিয়ে বলেন আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে দোষীদের আইনের আওতায় আনা না হলে কানাইপুর ইউনিয়বাসী কঠোর আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবে। এ বিষয়ে আহত মো:সাকিব আহমেদ(সেকেন মোল্লা)’র ছোটো ভাই উজ্জ্বল মোল্লা অভিযোগ করে বলেন,ইলিয়াস মোল্লা, তানভীর বিশ্বাস,পারভেজ মোল্লা, এবং আরিফ বিশ্বাস’সহ কয়েকজন ভিনদেশ/জেলা থেকে আশা একজন পুরুষ ও মহিলাকে আটকে ধরে টাকা পয়সা নেওয়ার জন্য একটা ধান্দা করছিলো। পরে আমার বড় ভাই সাকিব আহমেদ(সেকেন মোল্লা)সহ স্থানীয় কয়েকজন মিলে এক জায়গায় বসে বিষয়টি মিটিয়ে দেন এবং ওদের কাছ থেকে বহিরাগত দু’জনকে ছাড়িয়ে দেন। এতে করে ইলিয়াস মোল্লা, তানভীর বিশ্বাস,পারভেজ মোল্লা, এবং আরিফ বিশ্বাস’সহ যারা ছিলেন তারা প্রায় সব কজন ছিলো কানাইপুরের মালাঙ্গা এলাকার। তারা বিচারে সন্তুষ্টি হতে পারেননি। এজন্যই তারা আমার ভাইয়কে এভাবে তারা কুপিয়েছে। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে দ্রত চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কানাইপুর ইউনিয়ন পরিষদেও চেয়ারম্যান শাহ মো: আলতাফ হোসেন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি জুলফিকার আলি মিনু মোল্যা, সাধারন সম্পাদক সাইফুল আলম কামাল, কানাইপুর বাজার বনিক সমিতির সভাপতিসহ শামীমহক ফ্যানস ক্লাবের নেতৃবৃন্দ, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ, কানাইপুর বাজার বনিক সমিতির ব্যবসায়ী,স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গসহ সংবাদকর্মীরা ।।

Spread the love

পাঠক আপনার মতামত দিন