দুটি টিকা দেওয়া হজযাত্রীদের অনুমতি মিলবে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয় ঘোষণা করেছে যে,দুই ডোজ টিকা দেওয়া হজযাত্রীদের মক্কার গ্র্যান্ড মসজিদে ওমরাহ ও নামাজ আদায়ের অনুমতি পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবে।

মদীনার মসজিদে নববী এবং রাসুল (সাঃ)এর রওজা শরীফ (কবর ) জিয়ারতের অনুমতিপত্রের জন্য একই শর্ত প্রযোজ্য হবে।

সৌদি গেজেটের প্রতিবেদনের বরাত মন্ত্রণালয় স্পষ্ট করে বলেছে যে, তাওয়াক্কালনা আবেদনে দেখানো হয়েছে যে, টিকা গ্রহণ থেকে অব্যাহতিপ্রাপ্ত বিভাগগুলি নিয়মের দ্বারা প্রভাবিত হবে না।

মন্ত্রণালয় বলেছে যে, পারমিটে জারি করা হয়েছে সকলকে অনুমতি বাতিল হওয়ার ৪৮ ঘন্টা আগে দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করতে ।এটা উল্লেখ যে সৌদি জুড়ে টিকা কেন্দ্রে গুলোতে অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়া যায়।

যেসব হজযাত্রী ভ্যাকসিনের এক ডোজ নিয়েছেন বা সংক্রমণ থেকে সেরে উঠেছেন তারা আর মসজিদে ওমরাহ ও নামাজ আদায়ের অনুমতি এবং রওজা শরীফ দেখার জন্য অ্যাপয়েন্টমেন্ট বুক করার অধিকার ভোগ করবেন না এবং ইটমর্ণা এবং তাওয়াক্কালনা অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে মদীনার মসজিদে নববীতে (সাঃ) এর রওজা জিয়ারত করতে পারবেন না।

নতুন আপডেট অনুসারে, স্বাস্থ্যে অবস্থা তাওয়াক্কালনা অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে আবেদনে কেবলমাত্র তাদের জন্য অনুমতি দেখানো হবে যারা ফাইজার-বায়োনটেক, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা, এবং মডার্নার যেকোনো একটি ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ বা জনসন অ্যান্ড জনসন ভ্যাকসিনের একটি ডোজ নিয়েছেন ।

সৌদির বিমানবন্দরে ড্রোন হামলা, তিন বাংলাদেশিসহ আহত ১০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সৌদি আরবের জাজান শহরের কিং আব্দুল্লাহ বিমানবন্দরে ড্রোন হামলায় তিন বাংলাদেশিসহ ১০ জন আহত হয়েছেন। স্থানীয় সময় শুক্রবার সন্ধ্যায় হামলার এ ঘটনা ঘটে।

দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত বার্তাসংস্থা সৌদি প্রেস এজেন্সি (এসপিএ) এর বরাত দিয়ে আজ শনিবার আল-জাজিরা, এনডিটিভি, রয়টার্সসহ একাধিক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আহত অন্য সাতজনের মধ্যে ছয়জনই সৌদি আরবের নাগরিক। আরেকজন সুইডেনের নাগরিক। আহতদের মধ্যে পাঁচজনের তথ্য পাওয়া গেছে। তারা সামান্য আহত হয়েছেন। অন্য পাঁচজনের অবস্থা তাৎক্ষণিক জানা যায়নি।

সৌদি নেতৃাত্বাধীন জোটের এক মুখপাত্র জানান, ড্রোন হামলায় বিমানবন্দরে জানালার কাঁচসহ বেশ কিছু জায়গা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে কয়েকজন আহত হন। শনিবার ভোরের দিকে একই স্থানে হামলার চেষ্টাকালে আরেকটি বিস্ফোরক বোঝাই লাদেন ড্রোন আটক করেছে নিরাপত্তা বাহিনী।
হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত জানালার কাঁচ

বার্তা সংস্থা রয়র্টাসের খবরে বলা হয়েছে, হামলায় ছয় সৌদি, তিন বাংলাদেশি ও এক সুদানের নাগরিক আহত হন।

এদিকে, কিং আব্দুল্লাহ বিমানবন্দরে এ হামলার ঘটনায় এখন পর্যন্ত কেউ দায় স্বীকার করেনি। তবে সম্প্রতি জাজানসহ ইয়েমেন সীমান্তঘেঁষা সৌদি আরবের শহরগুলোতে হামলা চালাচ্ছে হুথি বিদ্রোহীরা। এ হামলার পেছনেও তাদের হাত রয়েছে বলে দাবি সৌদির আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর।

আবার ও আফগানিস্তানে জুমার নামাজের সময় বিস্ফোরণ, নিহত ৫০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক-
আফগানিস্তানে উত্তরাঞ্চলীয় কুন্দুজ প্রদেশে শুক্রবার জুমার নামাজের সময় একটি মসজিদে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে ৫০ জন নিহত হয়েছেন বলে বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

কুন্দুজ সেন্ট্রাল হাসপাতালের একজন চিকিৎসক নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, এ পর্যন্ত ৩৫ জনের লাশ ওই হাসপাতালে এসেছে। এছাড়া ৫০ জন আহত ব্যক্তিকে চিকিৎসা দিয়েছেন তারা।

ডক্টর উইদআউট বর্ডার (এমএসএফ) পরিচালিত আরেকটি হাসপাতালের আরেকজন চিকিৎসক জানান, তাদের হাসাপাতালে ১৫ জনের লাশ নিয়ে আসা হয়েছে।

তালেবানে তথ্য ও সংস্কৃতিবিষয়ক উপমন্ত্রী জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ বিস্ফোরণের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আজ কুন্দুজের রাজধানীর খানাবাদ বানদার এলাকার একটি মসজিদে বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে। মসজিদটি শিয়া মতাবলম্বীদের। বিস্ফোরণে বেশ কয়েকজন হতাহত হয়েছে।

লন্ড‌নে টিউ‌লিপ সি‌দ্দি‌কের গাড়ি‌ ভাঙচুর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
❏ সোমবার, অক্টোবর ৪, ২০২১ ☵ আন্তর্জাতিক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক- লন্ড‌নে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দৌ‌হিত্র, ব্রিটিশ এম‌পি টিউ‌লিপ রে‌জোয়ানা সি‌দ্দি‌কের গাড়ি‌তে প্রতি‌হিংসামূলক হামলার ঘটনা ঘ‌টে‌ছে। রবিবার ব্রিটিশ গণমাধ‌্যম‌কে টিউ‌লিপ জানি‌য়ে‌ছেন, এ হামলার ঘটনায় তি‌নি ভীত নন।

বৃহস্প‌তিবার সকা‌লে লন্ড‌নে তার বাড়ির সাম‌নে পার্ক ক‌রে রাখা গাড়ি‌তে হামলা চালা‌নো হয়। ব্রিটিশ গণমাধ‌্যমকে টিউ‌লিপ জানান, গাড়ির দরজার গ্লাস ভে‌ঙে রাজ‌নৈতিক বার্তা লেখা চিরকুট রে‌খে যায় হামলাকারীরা। ত‌বে ভেতর থে‌কে কিছুই খোয়া না যাওয়ায় এ‌টি উদ্দেশ‌্য প্রণো‌দিত হামলা ব‌লেই মনে করছেন তিনি।

নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করে বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র জানান, এ ঘটনা এমপি হিসেবে দায়িত্ব পালন করা থেকে তাকে সরাতে পারবে না। দ্য গার্ডিয়ানকে তিনি বলেন, ‘আমি ভীত হচ্ছি না। আমি আমার দায়িত্ব পালন বন্ধ করব না।’

টিউলিপ জানান, এ ঘটনার পর লেবার পার্টি থেকে ইতিবাচক অনেক বার্তা পেয়েছেন। হাউস অফ কমন্সের স্পিকার স্যার লিন্ডসে হলি ফোনও করেছেন।

এর আগে অনলাইন ট্রলিং কীভাবে মোকাবিলা করতে হয়, এ নিয়ে নারী এমপিদের ট্রেনিং নিতে আহ্বান জানিয়েছিলেন টিউলিপ। এজন্য কিছু এমপি মিলে একটি অনানুষ্ঠানিক গ্রুপ গঠনও করেন।

তখনও নানা ধরনের প্রচ্ছন্ন হুমকি পান টিউলিপ। এ বিষয়ে ২০১৬ সালে গার্ডিয়ানকে তিনি বলেন, ‘আমাকে ভয়ানক অবস্থায় পড়তে হয়েছিল…আপনি কেন হিজাব পরেন না, পারলে আপনাকে মেরে ফেলতাম ইত্যাদি…।’

২০১৫ সাল থেকে লন্ডনের হ্যাম্পস্টেড ও কিলবার্নের এমপি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন শেখ রেহানার কন্যা টিউলিপ সিদ্দিক। ২০১৬ ও ২০১৭ সালে তিনি ব্রিটিশ সরকারের চিলড্রেন ও আর্লি ইয়ার্স ডিপার্টমেন্টে ছায়া মন্ত্রীর হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন তিনি।

মহানবী (স.)-এর ব্যঙ্গচিত্র আঁকা সুইডিশ কার্টুনিস্ট সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- মহানবী হজরত মুহাম্মদ (স.)-এর ব্যঙ্গচিত্র আঁকা সুইডিশ কার্টুনিস্ট লার্স ভিল্কস এক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন। স্থানীয় গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

বিবিসি জানিয়েছে, লার্স ভিল্কস সুইডেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় মার্কারিড শহরের কাছাকাছি স্থানে একটি পুলিশের গাড়িতে থাকা অবস্থায় একটি ট্রাকের সঙ্গে গাড়িটির সংঘর্ষ হয়। এতে কার্টুনিস্ট ভিল্কস ও দুই পুলিশ কর্মকর্তা নিহত এবং ট্রাকচালক আহত হন।

পঁচাত্তর বছর বয়সী ভিল্কস মহানবী (স.)-এর কার্টুন আঁকার ঘটনায় প্রাণনাশের হুমকিতে পড়ার পর পুলিশি নিরাপত্তায় বসবাস ও চলাফেরা করতেন।

পুলিশ রোববারের ওই দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিচয় প্রকাশ করেনি, কিন্তু ভিকসের পার্টনার দাগেনস নিহিয়ার্তের সংবাদপত্রকে তার মৃত্যুর কথা নিশ্চিত করেছেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

পুলিশের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কীভাবে ওই সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটেছে তা এখনও পরিষ্কার হয়নি কিন্তু এর সঙ্গে অন্য কেউ জড়িত ছিল প্রাথমিকভাবে এমন কোনো ধারণা পাওয়া যায়নি।

ডেনমার্কের একটি সংবাদপত্র নবীকে (সাঃ) নিয়ে কার্টুন প্রকাশ করার পরের বছর ২০০৭ সালে ভিকসের বিতর্কিত ওই ব্যাঙ্গচিত্রটি প্রকাশিত হয়েছিল। নবীর কোনো ধরনের ছবি প্রকাশ করা গর্হিত বলে বিবেচনা করেন ইসলাম ধর্মের অনুসারিরা।

ভিকসের ওই ব্যাঙ্গচিত্রের প্রতিক্রিয়ায় বিশ্বব্যাপী মুসলিমদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ দেখা দেয়। এতে সুইডেনের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ফ্রিয়াদ্রিক রাইয়েনফেল্ডট পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার উদ্যোগ নিয়ে ২২টি মুসলিম দেশের রাষ্ট্রদূতদের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন।

এর কিছুদিনের মধ্যেই ইরাকের আল কায়েদা ভিকসকে হত্যার জন্য এক লাখ ডলার দেওয়া হবে বলে ঘোষণা করেছিল।
২০১৫ সাল ভিকস কোপেনহেগেনে বাক স্বাধীনতা নিয়ে আয়োজিত এক বিতর্ক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন, তখন সেখানে বন্দুক হামলা হয়েছিল। ওই হামলায় একজন চলচ্চিত্র পরিচালক নিহত হন। কিন্তু হামলার উদ্দেশ্য সম্ভবত তিনিই ছিলেন বলে মন্তব্য করেছিলেন ভিকস।

তালেবানকে ইসলামি শাসন শিখতে বলছে কাতার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- শরিয়া আইনে বা ইসলামি ব্যবস্থায় কিভাবে দেশ চালাতে হয়, তালেবান সরকারকে তা শেখার আহ্বান জানিয়েছে কাতার। আফগানিস্তানের নতুন সরকারের সাম্প্রতিক কয়েকটি বিতর্কিত পদক্ষেপের পরিপ্রেক্ষিতে এই আহ্বান জানান দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আবদুল রহমান আল-থানি।

এদিকে আফগানিস্তানে ২০ বছরের যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র পরাজিত হয়েছে বলে স্বীকার করেছেন মার্কিন সেনাবাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তা জেনারেল মার্ক মিলি। আর পরাজয়ের জন্য তালেবানের সঙ্গে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প স্বাক্ষরিত চুক্তিকে দায়ী করেছেন আরেক জেনারেল ফ্রাঙ্ক ম্যাকেঞ্জি। কংগ্রেসের সিনেট আর্মড সার্ভিসেস কমিটির এক শুনানিতে এই মন্তব্য করেছেন তারা।

আফগানিস্তানে তালেবান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে মূল মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা পালন করেছে কাতার। তালেবানের কাবুল দখলের পর মার্কিন বাহিনীর জরুরি উদ্ধার অভিযানেও সহায়তা করেছে মধ্যপ্রাচ্যের প্রভাবশালী দেশটি। এমনকি কাবুল বিমানবন্দর পরিচালনাসহ তালেবান সরকারকে নানাভাবে সহযোগিতা করছে তারা। কিন্তু গোষ্ঠীটির বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করতে এতটুকু কার্পণ্য করছেন না দেশটির কর্মকর্তারা।

ক্ষমতা গ্রহণ ও সরকার গঠনের পর গত এক মাসের মধ্যে তালেবান এমন কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে যা বিশ্বজুড়ে সমালোচনার মুখে পড়েছে। আফগানিস্তানে চুরির শাস্তি হিসাবে হাত কাটার শাস্তি ঘোষণা করেছে তালেবান। গত সপ্তাহেই অপহরণের অভিযোগে চারজনকে হত্যা করে রাস্তার মোড়ে ঝুলিয়েছে তারা। মেয়েদের স্কুলে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। নারীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকতে পারছে না। বিক্ষোভে গুলি ছুড়ে হত্যা করা হচ্ছে নারীদের। বৃহস্পতিবারও বিক্ষোভে ফাঁকা গুলি ছোড়া হয়েছে। এদিন মেয়েদের স্কুল খোলার দাবি জানিয়ে কাবুলের পূর্বাঞ্চলের একটি উচ্চ মাধ্যমিক স্কুলের সামনে ছোট একটি মিছিল বের করেন ছয়জন নারী। তাদের ব্যানারে লেখা ছিল, ‘আমাদের কলম ভাঙবেন না, আমাদের বই পুড়িয়ে দেবেন না, আমাদের স্কুল বন্ধ করবেন না।’

তালেবানের গণবিরোধী এসব কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ জানিয়ে একে ‘হতাশাজনক’ বলে অভিহিত করেছে কাতার। বৃহস্পতিবার রাজধানী দোহায় এক সংবাদ সম্মেলনে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সম্প্রতি আমরা আফগানিস্তানে কয়েকটি দুঃখজনক ঘটনা প্রত্যক্ষ করেছি। এগুলো খুবই হতাশাজনক।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমরা তালেবানকে এ ধরনের পদক্ষেপ না নেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। সেই সঙ্গে মুসলিম দেশগুলো কিভাবে পরিচালিত হয়, কিভাবে আইন প্রণয়ন করে, কিভাবে নারী ইস্যুগুলো মোকাবিলা করে তা আমরা তাদের দেখানোর চেষ্টা করছি।’ ইসলামি রাষ্ট্রের দৃষ্টান্ত দিয়ে তিনি বলেন, ‘কাতার একটা মুসলিম দেশ। আমাদের শাসনব্যবস্থা ইসলামি শাসনব্যবস্থা। কিন্তু আমাদের দেশে সরকার পরিচালনায় ও উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে পুরুষের চেয়ে নারীদের সংখ্যাই বেশি।’

এদিকে বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্ট কংগ্রেসের নিুকক্ষ হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের আর্মড সার্ভিস কমিটির ডাকা এক শুনানিতে আফগানিস্তান পরিস্থিতি সম্পর্কে সাক্ষ্য দিতে উপস্থিত হন জেনারেল ফ্র্যাঙ্ক ম্যাকেঞ্জি এবং চিফস অব স্টাফসের চেয়ারম্যান জেনারেল মার্ক মিলি। নিজ সাক্ষ্যে ম্যাকেঞ্জি বলেন, ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে কাতারের রাজধানী দোহায় তালেবানগোষ্ঠীর সঙ্গে চুক্তি হয়েছিল তৎকালীন ট্রাম্প প্রশাসনের।

অবৈধ ভাবে ভেঙে ফেলা হচ্ছে মন্দির, প্রতিবাদে আদালতে মুসলিমরা!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক-অবৈধ ভাবে ভেঙে ফেলার চেষ্টা চলছে একটি হিন্দু মন্দির। সেটি বাঁচাতে এলাকার মুসলিম বাসিন্দারা হাই কোর্টের দ্বারস্থ হলেন।

দিল্লির জামিয়া নগরের নুর নগর এলাকার ঘটনা। শুধু তা-ই নয়, মন্দির ভাঙাকে কেন্দ্র করে যাতে কোনও ধরনের সাম্প্রদায়িক অশান্তি না-ছড়ায়, আদালতের কাছে সেই আর্জিও জানিয়েছেন আবেদনকারীরা। সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

জামিয়া নগর এলাকার ২০৬ নম্বর ওয়ার্ড কমিটির কিছু বাসিন্দা সম্প্রতি দিল্লি হাই কোর্টের দ্বারস্থ হন। নিজেদের আবেদনে তাঁরা জানান, এলাকার কিছু অসাধু প্রোমোটার স্থানীয় দুষ্কৃতীদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ইতিমধ্যেই মন্দির চত্বরে থাকা ধর্মশালাটি খুবই অল্প সময়ের মধ্যে ভেঙে ফেলেছে। মন্দিরটি ভাঙার জন্য তার মধ্যে থাকা ৮-১০টি মূর্তিও সরিয়ে ফেলা হয়েছে রাতারাতি। এ বার তাদের লক্ষ্য, মন্দিরটি ভেঙে ফেলে সেখানে বহুতল বা অন্য কোনও ভবন নির্মাণ করা। মন্দিরটি যাতে কোনও ভাবেই না ভাঙা হয়, তার জন্য আদালতের হস্তক্ষেপের আর্জি জানিয়েছেন আবেদনকারীরা।

আবেদনে আরও বলা হয়েছে, ১৯৭০ সালে নুর নগরে তৈরি হয়েছিল মন্দিরটি। তার পর থেকে প্রতিদিনই সেখানে পুজো ও কীর্তন হয়ে আসছে। নুর নগর লাগোয়া আর একটি এলাকায় ইতিমধ্যেই মন্দির ভেঙে অবৈধ নির্মাণ কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। নুর নগরেও যে কোনও সময়ে ওই মন্দিরটি ভেঙে ফেলা হবে বলে আশঙ্কার কথা জানিয়েছেন এলাকার বাসিন্দারা।

জামিয়া নগরের বাসিন্দাদের আবেদন শুনে দিন তিনেক আগে দিল্লি হাই কোর্টের বিচারপতি সঞ্জীব সচদেবের বেঞ্চ দিল্লি পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছে, কোনও অবৈধ প্রক্রিয়ায় মন্দির চত্বর থেকে যাতে কোনও কিছু উচ্ছেদ না করা হয়। মন্দিরটিও যেন অক্ষত অবস্থায় থাকে। এলাকায় যাতে শান্তি ও শৃঙ্খলা বজায় থাকে, পুলিশকে তা দেখতেও নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

1 2 3 73