সোয়াজিল্যান্ড আওয়ামী লীগে মাহমুদুর রহমান শিশান সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত

বিশেষ প্রতিনিধি

১৮ই মে ২০২৪ সর্ব অফ্রিকার আওয়ামী লীগের অন্যতম শাখা কমিটির বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সোয়াজিল্যান্ড শাখা কমিটির গঠন সংক্রান্ত বিষয়ে সোয়াজিল্যান্ড আওয়ামী লীগের সম্মানিত উপদেষ্টামন্ডলীর উপস্থিতিতে এবং সর্ব অফ্রিকার আওয়ামী লীগের আহবায়কের নেতৃত্বে একটি বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়।এতে সোয়াজিল্যান্ড আওয়ামী লীগের উপস্থিত উপদেষ্টামন্ডলীর কর্তৃক প্রেরিত ভোটের মাধ্যমে আগামী তিন বছরের জন্য সোয়াজিল্যান্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চুড়ান্ত ভাবে নির্বাচিত হোন শরীয়তপুর জেলার কৃতি সন্তান আওয়ামী লীগের প্রয়ান নেতা সাবেক পানি সম্পদ মন্ত্রী আলহাজ্ব আব্দুর রাজ্জাক সাহেবের স্নেহের নাতি আওয়ামীলীগের দুঃসময়ের কাণ্ডারি পরিক্ষিত সাহসী মুজিব সৈনিক,সহস্র তরুণের আদর্শ জননেতা জনাব মাহমুদুর রহমান শিশান।
বর্ধিত সভা অনুষ্ঠানে সম্মানিত প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডা: লুৎফর রহমান রুপক আহবায়ক সর্ব আফ্রিকা আওয়ামী লীগ
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আব্দুল আউয়াল তানসেন যুগ্ন আহবায়ক সর্ব আফ্রিকা আওয়ামী লীগ

নাঃগঞ্জে সা‌বেক জাতীয় ফুটবলার আমিনুর রহমা‌ন আর নেই

নিউজ২৪লাইন:

মোঃ পন্ডিত হোসেন,
নারায়ণগঞ্জ থেকেে:
৭০ দশ‌কে বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক ফুটবল খেলোয়াড় ও আন্তর্জাতিক ক্রীড়াবিদ শহ‌রের জল্লারপাড়া নিবাসী হাজ্বী আমিনুর রহমান আর নেই।

গত শুক্রবার (১৭ মে) রাত ৯টা ১০ মিনি‌টে হৃদক্রিয়া বন্ধ হ‌য়ে তি‌নি ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজেউন)।

মরহুমের জানাজার নামাজ আজ ১৮ নভেম্বর শনিবার সকাল ১০ টায় নগরীর জিমখানা আলাউদ্দিন খান ষ্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে।

উক্ত জানাজায় মরহু‌মের প‌রিবা‌রের পক্ষ থেকে সকল আত্মীয় স্বজন,শুভাকাঙ্খী, বন্ধুবান্ধবকে উপস্থিত হয়ে তাঁর আত্মার মাগফেরাত কামনা করার জন্য অনুরোধ করা হ‌য়ে‌ছে।

উল্লেখ‌্য, মরহুম আমিনুর রহমান ১৯৭৪ সাল থে‌কে ১৯৮০ সাল পর্যন্ত বাংলা‌দেশ জাতীয় ফুটবল দ‌লের খে‌লোয়ার ছি‌লেন।

ডামুড্যায় আদালত অবমাননা করে দোকান ভেঙ্গে দেওয়ার অভিযোগ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে 

ইয়ামিন কাদের নিলয়
বিশেষ প্রতিনিধি
আদালত অবমাননা করে অন্যের দোকান ভেকু  মেশিন দিয়ে ভেঙ্গে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ডামুড্যা উপজেলার সিড্যা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সৈয়দ আব্দুল হাদী জিল্লুর(৪০) বিরুদ্ধে।পরে অভিযোগের ভিত্তিতে চাঁদাবাজি মামলা করেছেন এক ভুক্তভোগী। সে গত বুধবার(১৫ মে) রাত সাড়ে ১১ টার দিকে মধ্যে সিড্যা জসিম বেপারী(৫০)র একটি টিনের দোকানঘর ভেকু মেসিন দিয়ে জোরপূর্বক ভেঙ্গে ফেলে ঐ ইউপি চেয়ারম্যান। ১৬ মে (বুধবার) সকালে শরীয়তপুর বিজ্ঞ চীপ জুডিঃ ম্যাজিঃ আমলী আদালতে বাদী হয়ে একটি মামলা করেন জসিম বেপারী।
এজাহার সুত্রে জানা যায়,বর্তমান বি.আর.এস রেকর্ডে আংশিক ভুল হওয়ায় আমি বিজ্ঞ ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনালে বি.আর.এস রেকর্ড সংশোধনের জন্য একটি মামলা দায়ের করে বাদি জসিম বেপারী।, যাহার নম্বর-৮২৩/২০১৫। উক্ত আসামীগণ আমার দায়েরী মামলায় কোন বিবাদীপক্ষ ইউপি চেয়ারম্যান নাই। তবুও পক্ষ নিয়ে গত ১৩ তারিখ(মঙ্গলবার) বিকাল ৫ টার দিকে চেয়ারম্যান জিল্লু বাদির কাছ থেকে ২ লাখ টাকা দাবি করেন। টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় ঐদিন রাত সাড়ে এগারোটার দিকে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে  ভেকু দিয়ে বাদির টিনের দোকান ভেঙ্গে ফেলে। বাদির ও বাদির স্ত্রী বাধা দিলে চেয়ারম্যানের নির্দেশে আশিক,রাব্বি, রোমান  দেশিয় অস্র দিয়ে মেরে ফেলার হুমকি দেয়।
প্রত্যক্ষদর্শী ইব্রাহিম বলেন, আমি রাত ১১ টার পরে এই রাস্তা দিয়ে যাচ্ছি তখন দেখিয়েছি জিল্লু চেয়ারম্যান তার লোকজন দিয়ে ভেকু দিয়ে এই জসিম ভাইয়ের দোকানটি ভেঙ্গে ফেলতেছে।
প্রত্যক্ষদর্শী মোঃ সজিব বলেন,জিল্লু চেয়ারম্যান ছাত্রলীগের লোকজন নিয়ে এসে রাতে জসিম ভাইয়ের টিনের দোকানটি ভেঙে ফেলতেছে। জসিম ভাই বাধা দিলেও শুনতেছে না, তাকে মারতেও আসছিল চেয়ারম্যানের লোক।
এ বিষয়ে বাদি জসিম উদ্দিন বেপারী বলেন, আমাদের জমি নিয়ে মামলা চলতেছে স্কুলের জায়গার সাথে কিন্তু আমার রাস্তার পারে দোকান এই জায়গা আমাদের। জিল্লুর চেয়ারম্যানের এখানে কোন জায়গা নেই কিন্তু তিনি পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আমার দোকান ভাঙচুর করছে।বিকেলে আমার থেকে ২ লক্ষ টাকা চেয়েছিল আমি দেই নাই বিধায় রাত ১১ টায় আমার দোকান ভাঙছে আমি এর বিচার চাই।
এ বিষয়ে সিড্যা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ আব্দুল হাদী জিল্লু বলেন,আমি কোন দোকানপাট ভাঙ্গিনি আমার বিরুদ্ধে তারা ষড়যন্ত্র করে এসব অভিযোগ দিচ্ছেন। আর তাদের সরকারি জায়গায় দোকান ছিল।

গোসাইরহাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জনমত জরিপে এগিয়ে আলহাজ্ব মতিউর রহমান(মিন্টু বেপারী)

সোহেল হাওলাদার নিজস্ব প্রতিবেদক

নিউজ 24 লাইনঃ

গোসাইরহাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জনমত জরিপে এগিয়ে আছেন আনারস মার্কা প্রতীকের  আলহাজ্ব মতিউর রহমান(মিন্টু বেপারী)

বিশিষ্ট সমাজসেবক ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, সমাজসেবার অগ্রনায়ক ও মানবতার কল্যাণের  আলহাজ্ব মতিউর রহমান(মিন্টু বেপারী)

গোসাইরহাট উপজেলা পরিষদ আওতাধীন বিভিন্ন ইউনিয়ন ঘুরে দেখা যায় সাধারণ মানুষের ভিতরে আলহাজ্ব মতিউর রহমান মিন্টু বেপারীর প্রতি   সাধারণ ভোটারদের আস্থা অনেক বেশি  একাধিক ভোটার  বলেন মতিউর রহমান মিন্টু ভাই অত্যন্ত ভালো মনের মানুষ তার কাছে সব সময় আমরা যেতে পারি সুখে দুঃখে সব সময় কাছে পাই তাই এবার আমরা নিয়ত করছি মতিউর রহমান মিন্টু  ভাইকে ভোট দিবো, আরো কিছু ভোটার বলেন মতিউর রহমান মিন্টু বেপারী

ভালো মনের মানুষ। জনগণের সাথে তার সম্পৃক্ততা রয়েছে। স্থানীয় জনগণ চান গোসাইরহাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসাবে আমরা  আলহাজ্ব মতিউর রহমান মিন্টু  বেপারীকে  বিজয়ের মালা পড়তে চাই ভোটার রাহেলা বেগম বলেন মতিউর রহমান মিন্টু বেপারী   যে কোনো প্রয়োজনে এলাকার মানুষের বিপদে আপদে  তিনি সবার আগেই এগিয়ে আসেন।   হাসান নামের আরেক জন ভোটার  জানান-  মতিউর রহমান মিন্টু  ভাইয়ের রাজনীতি হচ্ছে সাধারণ জনগণের জন্য। 

আলহাজ্ব মতিউর রহমান মিন্টু বেপারী  আমাদের প্রতিবেদক কে জানান- তিনি নির্বাচিত হলে গোসাইরহাট উপজেলার সাধারণ মানুষেমানুষের  ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করে যাবো। তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে  স্বাস্থ্য, শিক্ষা, যোগাযোগ ব্যবস্থা   বাস্তবায়ন করার পরিকল্পনা সহ বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প হাতে নেব ইনশাল্লাহ। 

মুন্সীগঞ্জে আইনশৃঙ্খলা কমিটি সভায় কিশোর গ্যাং মাদক নিয়ন্ত্রণে কঠোর ভূমিকা।

নিউজ২৪লাইন:

মুন্সীগঞ্জ প্রতিবেদক – মুন্সীগঞ্জে কিশোর গ্যাং কালচার ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। নানা অপরাধমূলক কর্মকান্ডে কিশোররা ব্যবহৃত হচ্ছে। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তাদের অপরাধের ধরনও পাল্টে যাচ্ছে। এলাকায় আধিপত্য বিস্তার, চাঁদাবাজি, চুরি-ছিনতাই থেকে শুরু করে খুনাখুনিসহ নানা অপরাধে কিশোর-তরুণরা জড়িয়ে পড়ছে।

মাদক ব্যবসায়ও কিশোর গ্যাং। তাই কিশোর গ্যাং এবং মাদক নিয়ন্ত্রণে আরও কঠোর ভূমিকা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি তাগিদ দিয়েছেন গতকাল ১২ মে রোববার দুপুরে জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবুজাফর রিপন বিপিএএ ও জেলা পুলিশ সুপার জনাব মোঃ আসলাম খান (পিপিএম বার)।

কিশোর গ্যাং এবং মাদক নিয়ন্ত্রণে আরও কঠোর ভূমিকা” জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা পরিবেশ দিবসে বৃক্ষ রোপন হবে ২ লক্ষাধিক জেলার আইন শৃঙ্খলার সাথে দপ্তরসমূহের প্রধানগণ উপস্থিতি ছিলেন।

রূপগঞ্জে সাংবাদিকদের সঙ্গে উপজেলা  চেয়ারম্যান প্রার্থীর মতবিনিময় সভা 

নিউজ২৪লাইন;

মোঃআবু কাওছার মিঠু

রূপগঞ্জ(নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের সঙ্গে উপজেলা পরিষদের দোয়াত কলম প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ হাবিবুর রহমান হাবিব মতবিনিময় সভার আয়োজন করেন। গতকাল ১১মে শনিবার রূপগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবে আয়োজিত এ মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন রূপগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এম.এ মোমেন।

সভায় বক্তব্য রাখেন রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের কার্যকরী পরিষদের সদস্য ও দোয়াত কলম প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ হাবিবুর রহমান হাবিব, দৈনিক সংবাদচর্চা পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক আব্দুল্লাহ খান মুন্না, উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেন, সহ-সভাপতি শফিকুল আলম ভুঁইয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক রাসেল মাহমুদ, যুগ্ন সম্পাদক রুবেল মাহমুদ, অর্থ সম্পাদক ইমদাদুল হক দুলাল প্রমুখ।

মতবিনিময় সভায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের দোয়াত কলম প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, রূপগঞ্জের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে তিনি এবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তিনি নির্বাচিত হলে মাদক, কিশোরগ্যাং, সন্ত্রাস, নারী নির্যাতন, অপহরণের বিরুদ্ধে অবস্থান গ্রহণ করবেন। শিক্ষা, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন ও পানি সরবরাহসহ সার্বিক উন্নয়নে তিনি অগ্রণী ভুমিকা রাখবেন।

 

গজারিয়া হোসেন্দী ইউনিয়নকে উন্নয়নের মডেল করতে চান চেয়ারম্যান মিঠু

নিউজ২৪লাইন:

(মুন্সিগঞ্জ) প্রতিনিধি: স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় দেশে জনপ্রতিনিধির ব্যপক অবদান রয়েছে তা অস্বীকার করার মত কোন সুযোগ নেই। যেখানে একজন পার্লামেন্ট সদস্য সরাসরি জনগণের সাথে জড়িত থেকে কাজ করার তেমন সুযোগ না থাকলেও বলা হয়ে থাকে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বারগণ সরাসরি জনগণের সাথে সম্পৃক্ত হয়ে কাজ করতে পারে। আর তা যদি মফস্বল এলাকায় হয় তাহলে সরকারি সকল সুযোগ-সুবিধা পেতে সাধারণ জনগণ একজন ইউপি চেয়ারম্যানের দিকেই তাঁকিয়ে থাকে। তাই মফস্বল এলাকায় একজন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কদরটা ও বেশি থাকে। একজন ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের অনেক সুযোগ রয়েছে প্রান্তিক জনগণদের নিয়ে তাদের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করার। সরকার জনগণের স্বার্থে যে সকল সুবিধা দি প্রদান করে তা মাঠ পর্যায়ে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের মাধ্যমে নাগরিকের কাছে পৌঁছায়। তাই মাঠ পর্যায় একজন ইউপি চেয়ারম্যানের ব্যাপক সুযোগ থাকে দেশের নাগরিকদের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করার।

তেমনি একজন গজারিয়া উপজেলার ১নং হোসেন্দী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনিরুল হক মিঠু তিনি ইউনিয়নের জনগণের পাশে কাজ করছেন হ্যাটট্রিক চেয়ারম্যান হিসেবে। তিনি একে একে তিন বার এই ইউনিয়নের প্রতিনিধিত্ব করে যাচ্ছেন। এরি মধ্যে দেশের সব থেকে আধুনিক এবং মডেল ইউনিয়ন গড়ে তোলার লক্ষে বেশ কিছু কাজও হাতে নিয়েছেন । এর মধ্যে বেশ কিছু কাজ বাস্তবায়নও করেছেন। যার মধ্যে ইউনিয়নটির একদম প্রান্তিক গ্রাম গুলেতেও ইন্টারনেট সেবা পৌঁছে দিতে কাজ করছেন। দেশে ব্যাপক যুবক রয়েছে বেকার অবস্থায় হোসেন্দী ইউনিয়নে ও এর ব্যতিক্রম নয় এই ইন্টারনেট সেবা ব্যবহারের মাধ্যমে ইউনিয়নটির বেকার যুবসমাজকে আউটসোর্সিং, ফ্রিল্যান্সিং এর মতো ইন্টারনেট ভিত্তিক কাজ গুলোতে সংযুক্ত করে বেকারত্ব সমস্যা দূর করাসহ এই সেবায় যুক্ত হওয়া প্রত্যেকটি যুবকের জীবনমান উন্নয়নসহ দেশের অর্থনীতিতে চেয়ারম্যান হিসেবে অবদান রাখতে কাজ শুরু দেখা গেছে। প্রান্তিক জনগণের মান উন্নয়ন করা তার নেশায় পরিনত হয়েছে সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে তিনি হোসেন্দী ইউনিয়নকে দেশের একটি আধুনিক এবং মডেল ইউনিয়ন পরিষদ গড়তে দেখা যাচ্ছে।

তবে এতে স্থানীয় রাজনীতি এবং নোংরা রাজনীতির পরিবেশ তার এই সব কাজে বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। গত ৮ মে ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১ম ধাপে গজারিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়ে গেল। এ নির্বাচনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আমিরুল ইসলাম (আনারস) এবং উপজেলা আওয়ামী সাধারণ সম্পাদক মনসুর আহমেদ খাঁন জিন্নাহ (কাপ পিরিচ) প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছে। এ নির্বাচনে এ সময় কাপ পিরিচ প্রতীকের প্রার্থী মনসুর আহমেদ খাঁন জিন্নাহ ২০৯৬৬ ভোট বেশি পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। এ নির্বাচনকে ঘিরে উপজেলার বেশ কিছু যায়গায় অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে রয়েছে পুলিশের সাথে আনারস প্রতীকের সমর্থকদের ইট পাটকেল নিক্ষেপ পরে পরিস্থিতির অস্বাভাবিক হয়ে যাওয়ার কারণে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ফাঁকা গুলি করার মতো ঘটনা ঘটিয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশের এক উপ পরিদর্শক বাদী হয়ে থানায় মামলাও করেছেন আর এতে প্রধান আসামি করা হয়েছে মনিরুল হক মিঠুকে বিভিন্ন সূত্রে জানা যায় এই চেয়ারম্যান নির্বাচনে নিয়োজিত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উপর হামলা চালানোর নেতৃত্ব দিয়েছেন।

কিন্তু বাস্তবে তার উল্টো বলে দাবি করেছেন তিনি। এ বিষয়ে মনিরুল হক মিঠু বলছেন আমি কোন ভাবেই আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উপর হামলা ঘটনাকে সমর্থন করি না এবং এই কাজের নেতৃত্ব দেইনি। আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে আমার দাবি আমার মোবাইল ফোন ট্রাকিং করলেই পাওয়া যাবে আমি হামলার সময় কোথায় ছিলাম। তিনি আরো বলছেন পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী আমিরুল ইসলামের সমর্থক ছিল বলে নোংরা রাজনৈতিক ব্যারাকলে তাকে জরাচ্ছেন একটি চক্র। তাছাড়া তিনি অচিরেই তার বিরুদ্ধে আনিত এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার চেয়েছেন।

1 2 3 429