বুকের দুধ বিক্রি করেই লাখপতি নারী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ঃ
দুই সন্তানের মা তিনি। বয়স ২৪ বছর৷ ব্যবসার কারণেই লাখপতি হয়েছেন তিনি। তবে সাধারন ব্যবসা নয় নিজের বুকের দুধ বিক্রি করেন এই নারী৷ সাইপ্রাসের এই নারীর নাম রাফেলিয়া ল্যামপ্রোউ ৷

যখন তার ছেলে আঞ্জেলিও জন্ম হয়, তখন তিনি দেখেন ছেলেকে দুধ খাওয়ানোর পরেও অনেকটা দুধ বেঁচে যাচ্ছে৷ তখনই নিজের বুকের দুধ দান করার কথা ভাবেন রাফেলিয়া৷
প্রথমে কিছু বাচ্চাদের, যারা মাতৃদুগ্ধ পায়না তাদের মধ্যে নিজের বুকের দুধ বিক্রি করেন৷ তারপর এই কাজটি ব্যবসায় রূপান্তরিত হয়৷ রাফেলিয়া জানায়,

প্রতিদিন ২ লিটারেরও বেশি দুধ তৈরি হত তার৷ এত দুধ নিয়ে কী করবেন তিনি ভেবে পাচ্ছিলেননা৷ শেষ পর্যন্ত এক দম্পতিকে তিনি সাহায্য করতে এগিয়ে আসেন৷ সদ্যোজাতের জন্য ওই মায়ের কাছে মাতৃদুগ্ঘের যোগান ছিল খুবই কম৷

এই সময়ই বেশকিছু বডি বিল্ডার তার কাছে বুকের দুধ কেনার ইচ্ছা প্রকাশ করেন৷ শরীরের গ্রোথের জন্য যেহেতু এই দুধ খুবই উপকারি, সে কারণেই বডি বিল্ডারদের কাছে দিনে দিনে মাতৃদুগ্ধের চাহিদা বাড়তে থাকে৷

এরপর থেকেই রাফেলিয়া বাণিজ্যিকভাবে বুকের দুধ বেঁচতে শুরু করেন৷ ধীরে ধীরে এটাই তার পেশায় পরিণত হয়েছে। প্রতি আউন্স দুধের জন্য ১ ইউরো নিতে শুরু করেন তিনি৷

রাফেলিয়ার স্বামী অ্যালেক্সও তার এই কাজে কখনো বাঁধা দেননি বরং বরাবর তিনি সাপোর্ট করেছেন৷ এখন নিজের একটি ফেসবুক পেজ ও ওয়েবসাইট চালান রাফালিয়া৷ সেখানে পরিষ্কার লেখা রয়েছে যে, তিনি মদ খাননা, ধূমপানও করেননা৷ এখন অনলাইনেই নতুন মা বা বডি বিল্ডাররা মাতৃদুগ্ধের জন্য তার কাছে আবেদন করেন৷

অ’নলাইনে বুকিং করলেই বাড়িতে আসবে না’রী!

প’তিতাপল্লী নয়, এবার অ-নলাইনে বুকিং কর-লেই বাড়িতে -আসবে না-রী!ব্যাংক থেকে পো-স্ট অফি-স, অন-লাইন ছা-ড়া- দুনিয়া অচল। বাজারও হয়ে যায় বাড়িতে বসে।

তাহলে শা’রীরিক সু’খ কেন পাওয়া যাব’’’ে না ঘরে বসে।সে দিন -য-খন প’তিতাপল্লীতে মুখ লুকিয়ে গি-য়ে শা’রীরিক তৃ’’’প্তি মিটি-য়ে নেওয়া। অত সময় -নেই।

একাকি জীবন, বাইরে যেতেও ভালো লাগে না। স’’’ঙ্গী বেছে নিন ফে’সবুকের বিশেষ বন্ধু পাতানোর পেজ থেকে। টাকা দিন অনলাইনে।কাজ শুরু।

সহজ ব্যপার। ইন্টারনেটে এসকর্ট সার্ভিস কিংবা ভিডিও চ্যাটের অতিসহজ প’’’দ্ধতিই এশিয়ার সবথেকে বড় যৌ’’নপল্লীর ব্যবসায় বা’ধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে। -দিনে দিনে আয় ক-মে যাচ্ছে।আগের থেকে অন্তত ২০ থেকে ২৫ শ-তাংশ আয় কমে গি-য়েছে ক- লকা-তার সোনাগাছির যৌ’’ন-র্মী-দের।

এ-ম-নটাই জা-নিয়েছে সো-নাগাছির মহি-লারা।সোনাগাছি কলকাতায় অবস্থিত এশিয়ার বৃ’’’হত্তম নি’ষি’’’’দ্ধ পল্লি। এই পতি’তালয়ের কয়েকশত বহুতল ভবনে প্রায় ১০০,০০০ যৌ’’নকর্মী বসবাস করেন।

ভূ’ত আত’’ঙ্কে নার্সিং কলেজের ৪ ছাত্রী হাসপাতালে! বরিশাল নগরের রূপাতলীর বেস’রকারি জমজম নার্সিং কলেজের চার ছাত্রী ভূ’ত আ’ত’’ঙ্কে অ’চেতন ও অ’সুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দিনগত রাত সাড়ে ৮টার দিকে তাদের বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।হাসপাতালে ভর্তি শিক্ষার্থীরা হলেন- জামিলা আক্তার (১৮), তামান্না (১৮), সেতু (২১) ও বৈশাখী (১৮)।

অ’সুস্থদের সহপাঠীরা জানান, কলেজের একাডেমিক ভবনের পঞ্চম ও ষষ্ঠতলায় একটি মা’দ্রাসা ছিল। মা’দ্রাসাটি সরিয়ে সেখানে ম্যাটস ও নার্সিং অনুষদের ছাত্রীদের জন্য আবাসনের (হোস্টেল) ব্যবস্থা করা হয়। পরীক্ষা ও প্রাকটিক্যালের জন্য সেখানে বর্তমানে শুধু নার্সিং অনুষদের ৩৫ জন ও ম্যাটস-এর আরো ১৫-২০ জন আছেন।

ক’রো’নার শুরু থেকে বন্ধ থাকলেও গত জানুয়ারি মাসের শুরুতে ছাত্রীরা হোস্টেলে আসেন। আবাসিকের স্টাফ খালেদা জানান, গতকাল মিথিলা নামে একটি মে’য়ে জ্বিন বা ভূ’তের ভ’য়ে আ’তঙ্কিত হয়ে পরেন। যদিও হুজুর এনে তাকে তেল ও পানি পড়া দেওয়া হয়।

এরপর সন্ধ্যার পর জামিলা নামে এক ছাত্রী আ’ত’’ঙ্কে চি’ৎকার দেন এবং অ’সুস্থ হয়ে পড়েন। এসময় আ’ত’’ঙ্কে বাকি তিন ছাত্রীও অ’সুস্থ পড়েন। অ’সুস্থ সহপাঠীদের স’’’ঙ্গে থাকা শিক্ষার্থীদের দাবি, আবাসিকের ছাদের উপর রাতে হাঁটাহাঁটির শব্দ ও তাদের দুই সহপাঠীর হাতে হঠাৎ আঁচড়ের দাগ থেকেই এ আ’ত’’ঙ্কের সৃষ্টি।

বি’ষয়টি গত কয়েকদিন ধরেই ছাত্রীরা কর্তৃপক্ষের নজরে আনার চেষ্টা করছিল। শিক্ষার্থী মো. মেহেদি জানান, আ’ত’’ঙ্কে ছাত্রীদের অ’সুস্থ হওয়ার খবর পেয়ে অদূরে থাকা ছাত্রাবাস থেকে তারা বেশ কয়েকজন সহপাঠী এগিয়ে আসেন।

পরে কর্তৃপক্ষকে বি’ষয়টি জানানো হলে তারা ঘ’টনাস্থলে এলেও বি’ষয়টি গো’পন রাখতে বলেছিল। আমর’’াই তাদের হাসপাতালে আনি। তবে কলেজ থেকে তখন কেউ আমা’দের স’’’ঙ্গে কেউ আসেননি। আর যে স্যার এখানে এসেছেন তিনি ঘ’টনাস্থলে যাননি। হাসপাতালে উপস্থিত কলেজের নার্সিং ইন্সট্রাক্টর জালিস মাহা’মুদ বলেন, কোনো কারণে শিক্ষার্থীরা আ’তঙ্কিত হয়ে অ’সুস্থ হয়ে পড়েছে। তবে শিক্ষার্থীরা যা বলছে তেমন কোনো বি’ষয় নেই।

তাদের সু-চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে।এদিকে এ বি’ষয়ে ওয়ার্ডের দায়িত্বরত চিকিৎসকরা কোনো বক্তব্য দিতে চাননি। এ ব্যাপারে জমজম নার্সিংয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মুন্সি এনাম জানান, আবাসিক ছাত্রীদের ভীতি দূর করতে কাউন্সিলিংয়ের ব্যবস্থা করা

হয়েছিল। ছাত্রীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে হুজুর এনে মিলাদ-দোয়ারও আয়োজন করা হয়। এরপরও তাদের ভ’য় কাটেনি। ঘ’টনাস্থল পরিদর্শনকারী কোতোয়ালি থানার উপ-পরিদর্শক রিয়াজুল ইসলাম জানান, কেন এমন ঘ’টনা ঘটলো তা ত’দন্ত চলছে।

এদিকে এই ঘ’টনার ৬০ শিক্ষার্থীর মধ্যে ৪৫ জন হোস্টেল ছেড়ে বাড়ি চলে গেছে।

সুএঃ মিডিয়া নিউজ

৪৬ বছর আগে লাশ দাফন, এখনো অক্ষত! ছবি ভাইরাল

: পটুয়াখালীর দশমিনায় ঘূর্ণিঝড় ইয়াসে কবরের মাটি সরে গিয়ে ৪৬ বছর আগে দাফনকৃত একটি লাশ উদ্ধার হয়েছে। এ নিয়ে এলাকায় চাঞ্চলের সৃষ্টি হয়েছে। লাশ দেখতে ভির জমিয়েছেন বিভিন্ন বয়সের মানুষ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইতোমধ্যে ভাইরাল হয়েছে লাশের ছবিটি।

লাশ উদ্ধারের পর আবার দাফনের আগে দোয়ায় অংশ নিতে বিভিন্ন উপজেলা থেকে ছুটে আসেন শত শত মানুষ। লাশ উদ্ধারের ঘটনাটি ঘটে উপজেলার চরঘূণি এলাকার হাতেম আলী ফকিরের বাড়িতে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, গত মঙ্গল ও বুধবারের ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের তাণ্ডবে উপজেলার নদী তীরবর্তী এলাকা নদীতে বিলীন হয়ে যায়। সেই সাথে নদী ভাঙ্গনে উপজেলার চরঘূণি এলাকায় বড়াগৌরঙ্গ নদীর তীরের হাতেম আলী ফকির বাড়ির পারিবারিক কবরস্থানও নদীর ভাঙ্গনে পড়ে।

নদীর ভাঙ্গনে ওই এলাকার ফকির বাড়ির পারিবারিক কবরস্থান ভেঙ্গে লাশের একাংশ বেড়িয়ে আসে। এ নিয়ে শুক্রবার বিকেলে থেকে ওই এলাকায় চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। লাশের খবর ছড়িয়ে পড়লে উপজেলাসহ পাশের উপজেলাগুলো থেকে মানুষ একনজর দেখার জন্য শুক্রবার থেকেই ভির করেন ওই ওই এলাকায়।

এ ঘটনার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায় লাশের ছবিটি। বিভিন্ন মানুষ ফেসবুকে ছবিটি আপলোড দিয়ে লাশকে মোমিন বান্দা দাবি করে বিভিন্ন লেখা পোস্ট করেন।

মা এবং ছোট ভাইয়ের মুখে দুমুঠো খাবার দিতে রাস্তায় রিকশা নিয়ে এই সুন্দরী যুবতী,

এখন তার মা অসুস্থ মনে করলে বাহিরে বের হয়ে যায় আবার যখন সন্তানদের কথা মনে পড়ে তখন নীড়ে ফিরে আসে। অন্যদিকে মেয়েটি সকাল আটটা থেকে রাত আটটা-নয়টা পর্যন্ত রিকশা চালিয়ে ছোট ভাই বোনের মুখে খাবার তুলে দেয়। মেয়েটি দৈনিক ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা আয় করে।

সেই আয় হতে রিক্সা ভাড়া দিয়ে যা জোটে তাই সে ভাই-বোনদের জন্য নিয়ে যায়। অর্থের অভাবে সে ভাই-বোনদের ভালো একটি কাপড়-চোপড় দিতে পারে না এবং পড়াশোনা করাতে পারে না। মেয়েটিকে যখন জিজ্ঞেস করা হয় ঝড় বৃষ্টির সময় এই ঘরে তারা কিভাবে থাকে? তখন মেয়েটি বলল যে,

ঝড় বৃষ্টির সময় কোন দোকান খোলা থাকবে সেখানে দাঁড়িয়ে থাকে অথবা মন্দিরে গিয়ে বসে থাকে। কারণ যদি ঝড় বৃষ্টির সময় ঘরের উপর গাছ পড়ে যায় তখন তারা নির্ঘাত মারা যাবে। মেয়েটিকে তার মা এবং ভাই বোনদের কে নিয়ে সুরক্ষা স্থানে চলে যায়।

মেয়েটিকে বলা হলো তোমাকে কেউ সাহায্য করতে চাইলে তুমি কি কে সেই সাহায্য নেবে? অর্থ দিয়ে বা তোমাকে কোনো চাকরি দিয়ে যদি কেউ সাহায্য দেয় তাহলে তুমি সেই সাহায্য নেবে? তখন মেয়েটি খুব সুন্দর ভাবে উত্তর দিলো যে হ্যাঁ অবশ্যই নিব। তবে চাকরির ক্ষেত্রে যদি আমার সুরক্ষা থাকে তাহলে আমি অবশ্যই নিব।

রাজধানীতে কিশোর গ্যাংয়ের ছুরিকাঘাতে নিহত ১

রাজধানীর কদমতলী এলাকায় কিশোর গ্যাংয়ের ছুরিকাঘাতে আরাফাত হোসেন নামের এক কিশোর নিহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে কদমতলীর ইস্টার্ন সিটি টাওয়ারের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, সিগারেট খাওয়াকে কেন্দ্র করে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। গতকাল মার্কেট থেকে বের হওয়ার সময় দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আরাফাতকে কুপিয়ে জখম করে তারা। এই হামলায় ১৫ থেকে ২০ জন কিশোর অংশ নেয় বলে জানায় পুলিশ।

পরে আহত আরাফাতকে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করা হয়। আরও উন্নত চিকিৎসার জন্য চিকিৎসকরা হৃদরোগ ইন্সটিটিউটে ভর্তি করা পরামর্শ দিলে সেখানে নেয়ার পথে মারা যায় আরাফাত। তিন ভাই ও চারবোনে মধ্যে আরাফাত সবার ছোট। নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ থানার ১২ নং কুতুবপুর ইউনিয়নে তাদের গ্রামের বাড়ি।

বিশ্ব ভ্রমণে যার পাসপোর্ট লাগেনা, জেনে নিন।

রাণী এলিজাবেথ।


পাসপোর্ট লাগেনা – ব্রিটিশ রাণী এলিজাবেথ পৃথিবীর যে প্রান্তেই যাননা কেন তার সঙ্গে থাকে বিশাল নিরাপত্তা বাহিনী। থাকে মণি মুক্তার মতো বহুমূল্যের রত্ন।

এমনকি তার সঙ্গে তার পোষা কুকুর করজিসের জন্যও থাকে বিশেষ খাদ্য। তবে, যে জিনিসটি কখনোই থাকেনা তা হলো পাসপোর্ট। কারণ পৃথিবীর কোথাও কোন সীমান্ত অতিক্রমণে তার পাসপোর্ট লাগেনা।

রাণী এলিজাবেথ ছাড়া যে কোন মানুষকেই পৃথিবীর কোন না কোন স্থানে পাসপোর্ট ব্যবহার করতেই হবে। এমনকি সে যদি রাণী ছাড়া ব্রিটিশ রাজপরিবারের অন্য যে কোন সদস্যও হয়। কিন্তু কি এর কারণ?

জানা গেছে, যতো ব্রিটিশ পাসপোর্ট ইস্যু করা তার সবই রাণীর পক্ষ থেকে। এ প্রসঙ্গে ব্রিটিশ রাজ পরিবারের ওয়েবসাইটে লেখা আছে,

‘রাণী যখন বিদেশে ভ্রমণ করেন তখন তাঁর কোন পাসপোর্টের প্রয়োজন নেই। মেরুণ রঙের ব্রিটিশ পাসপোর্টে দুটি রাজকীয় অস্ত্রের প্রতিকৃতি খোদাই করা আছে।

আর লেখা আছে যে, ব্রিটেনের মহিমান্বিত রাণীর পক্ষ থেকে পাসপোর্টধারী ব্যক্তিকে গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে।’

সুতরাং যেখানে স্বয়ং রাণীই ব্রিটিশ পাসপোর্ট ইস্যু করেন এবং পাসপোর্টধারী ব্যক্তির দায় গ্রহণ করেন সেখানে তার নিজের দায় নিয়ে কারো কোন প্রশ্নই থাকতে পারেনা।

তবে, রাণী ছাড়া ব্রিটিশ রাজ পরিবারের অন্য যে কোন সদস্যকেই বিদেশ ভ্রমণে পাসপোর্ট বহন করতে হবে। এমনকি এটি রাণীর স্বামী ডিউক অব এডিনবার্গের জন্যও প্রযোজ্য।

এছাড়াও একই কারণে পৃথিবীর কোথাও রাণী এলিজাবেথের কোন ড্রাইভিং লাইসেন্সেরও প্রয়োজন নেই। সূত্র: দ্য ইনডিপেন্ডেন্ট

আসছে আবু রায়হান অর্নব প্রথম মিউজিক ভিডিও `রনক’

শাহাদাত হোসেন হিরু

শীগ্রই আসছে আবু রায়হান অর্নব “রনক” শিরোনামের মিউজিক ভিডিওটি। নতুন এই মিউজিক ভিডিওটি দর্শকের মন জয় করবে বলে আশাবাদী এই তরুণ প্রতিভাবান শিল্পী।
ইতোমধেই গানের অডিও এবং ভিডিওর শুটিং শেষ করা হয়েছে। চমৎকার এই গানটি লিখেছেন এবং সুর করেছেন আবু রায়হান অর্নব নিজেই। গানটির মিউজিক করেছেন এম.এ রহমান। দারুন একটি গল্প নিয়ে সাজানো হয়েছে গানটির ভিডিওটি ।যেখানে মডেলিং করেছেন অর্নব নিজেই তার সাথে রয়েছেন ইসরাত জাহান। গানটি দেখা যাবে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ম্যাক্স ব্যাগ এন্টারটেইনমেন্ট এর ইউটিউব চ্যানেলে।

গানটির ভিডিও পরিচালনা করেছেন সৌমিত্র ঘোষ ইমন আর ক্যামেরার পেছনে ছিলেন সরকার কাওসার আহমেদ। এ প্রসঙ্গে সৌমিত্র ঘোষ ইমন বলেন ,” গানটি খুবই রোমান্টিক গান স্কুল ও কলেজ জীবনের প্রেম কাহিনী নিয়ে লেখা। আশা করছি দর্শকের গানটি খুবই ভাল লাগবে।আমরা গানটি শুটিং করেছি রাঙামাটির বিভিন্ন স্পটে ।

অন্যদিকে ভিডিও নির্মাণের বেলায় পরিচালক সৌমিত্র ঘোষ ইমন এবং তার ছোট ভাই নিলয় ভিডিওটি একটি রোমান্টিক ভাবে সাজিয়েছেন। সব ঠিক থাকলে চলতি মাসের শেষের দিকে আসছে “রনক” মিউজিক ভিডিওটি।

1 2 3 4