৫০ কেজি গাজাঁসহ মাদক পাচারকারী গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ
পদ্মা নদীতে অভিযান চালিয়ে ৫০ কেজি গাজাঁ ও একটি ইঞ্জিল চালিত ট্রলারসহ ১ মাদক পাচারকারীকে গ্রেফতার করেছে সখিপুর থানার পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে শরীয়তপুরের সখিপুরে।

 

আটককৃত হলেন, ফরিদপুর জেলার সদরপুর উপজেলার চরমাইল ইউনিয়নের চরগজারিয়া গ্রামের মৃত তোতা মাতুববরের ছেলে সুজন মাতুববর(৩৩)।

 

উদ্ধারকৃত গাঁজার আনুমানিক মূল্য ৫০ লক্ষ টাকা বলে শরীয়তপুর জেলা সখিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: আসাদুজ্জামান হাওলাদার জানিয়েছে।

 

সখিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: আসাদুজ্জামান হাওলাদার জানান, শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর থানাধীন কাচিকাটা ইউনিয়নের চরজিংকিং বানিয়াল ঘাট নামক পদ্মানদী থেকে একটি ইঞ্জিল চালিত ট্রালারে গতকাল মঙ্গলবার বিকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ৫০ কেজি গাঁজা ও একটি ট্রলার জব্দ করেন। এ সময় সুজন মাতুব্বর নামে ১ জন মাদক পাচারকারী আটক করেছে সখিপুর থানা পুলিশ।

৬ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা রিপোর্টার্স ইউনিটি উখিয়া’র নিন্দা ও মামলা প্রত্যাহারের দাবী

নিজস্ব প্রতিবেদক ;

খুরুশকুলের পাহাড় কাটা নিয়ে সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশ করায় মাল্টিমিডিয়া ওয়েব পোর্টাল ‘দি টেরিটোরিয়াল নিউজ (টিটিএন) এবং স্থানীয় একটি দৈনিক পত্রিকাসহ ৬ জন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে     মানহানি মামলা দায়ের করেছেন জাহাঙ্গীর কাশেম নামে এবি পার্টির এক নেতা।

 

আদালতে মামলাটি দায়ের করেন তিনি। এতে আসামী করা হয়েছে টিটিএন এর প্রধান সম্পাদক জাহেদ সরওয়ার সোহেল, বার্তা প্রধান তৌফিকুল ইসলাম লিপু, প্রধান প্রতিবেদক আজিম নিহাদ ও নিজস্ব প্রতিবেদক সানজীদুল আলম সজিব এবং স্থানীয় পত্রিকার ২ জন   সাংবাদিক।

 

বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করেও পাহাড় খেকো কর্তৃক মিথ্যা মামলা দায়ের করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন রিপোর্টার্স ইউনিটি কক্সবাজার।

 

দ্রুত এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন রিপোর্টার্স ইউনিটি কক্সবাজারের নেতৃবৃন্দ। রিপোর্টার্স ইউনিটি উখিয়ার সভাপতি শরীফ আজাদ ও সাধারণ সম্পাদক রফিক মাহামুদসহ সকল নেতৃবৃন্দরা।

 

বিবৃতিদাতারা দাবী করেন, প্রশাসনের উদাসীনতার সুযোগে খুরুশকুলসহ জেলাজুড়ে প্রতিনিয়ত পাহাড় কেটে সাবাড় করছে পাহাড়খেকোরা। মামলার বাদী জাহাঙ্গীর কাশেম একজন চিহ্নিত পাহাড় নিধনকারী। তার বিরুদ্ধে পাহাড় কাটার অপরাধে একাধিক মামলাও রয়েছে।

 

টিটিএনে প্রচারিত প্রতিবেদনটি সম্পূর্ণ তথ্যবহুল ও বস্তুনিষ্ঠ। শুধুমাত্র সাংবাদিকদের হয়রানি ও কণ্ঠরোধ করার জন্য মিথ্যা মামলার আশ্রয় নিয়েছেন এই ভূমিদস্যু। দ্রুত এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। পাশাপাশি চিহ্নিত পাহাড়খেকোদের  বিরুদ্ধে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নিয়ে পাহাড়গুলো রক্ষা করার আহ্বান জানায় সংগঠনটি।