রূপগঞ্জে ঈদ উপহার দিল বসুন্ধরা ও রংধনু গ্রুপ

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ১০ হাজার গরীব ও অসহায় পরিবারকে ঈদ উপহার খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছে শিল্প প্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা ও রংধনু গ্রুপ। বুধবার দুপুরে উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের অস্থায়ী কার্যালয় নাওড়া এলাকায় এ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে ছিল মুরগী, চাল, ডাল, তেল, সেমাই, চিনি, পেয়াজসহ নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী। কায়েতপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযাদ্ধা হাজী সামসুল আলমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রংধনু গ্রুপের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম ।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদর সদস্য ও কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের মনােনয়ন প্রত্যাশী জেলা পরিষদের সদস্য মিজানুর রহমানের সঞ্চালনায় এ সময় উপস্থিত ছিলেন রূপগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি খন্দকার আবুল বাশার টুকু, থানা আওয়ামী লীগের সাবেক কার্যকারী সদস্য করিম পাঠান, থানা যুবলীগের সাংগঠনিক সস্পাদক মােজাম্মল হক মিলন, কায়েতপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক অ্যাডভােকট আব্দুল আউয়াল, সাংগঠনিক সম্পাদক আলী আজগর, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তরিকুল ইসলাম, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মােশারফ হােসেন, আওয়ামী লীগ নেতা জামান ব্যাপারী, ওসমান গনী, উপজলা যুবলীগ নেতা হাজী সফিকুল ইসলাম, আমির হােসন স্বপন, সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মহিউদ্দিন মেম্বার, ইউপি সদস্য মােয়াজ্জম হােসেন, মাসুম আহমেদ, আবুল হােসেন, আব্দুল হাই, হাজী মতিন, ছাত্রলীগ নেতা লুৎফর রহমার মুনা, আশফাকুল হক তুষার, আশরাফুল আলম জমিন, মহিলালীগ নেত্রী স্বপা আক্তার, ইয়াছমীন আক্তার প্রমুখ।

এ সময় রংধনু গ্রুপের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম বলেন, করানা ও লকডাউনর ধাক্কায় সাধারণ মানুষ খুব কষ্ট দিন পার করছে। অনেকেই আছেন ঈদের দিন কি খাবেন তার ঠিক নেই। সে সব কথা চিন্তা করে আমরা এসব অসহায় মানুষগুলাের পাশে দাঁড়িয়েছে। আমরা আপনাদের পাশে ছিলাম, আছি এবং আগামীতে থাকবো ইনশাল্লাহ।

ফরিদপুর পৌরসভার ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও শ্রমিক নেতা গোলাম মোঃ নাছিরের ঈদ শুভেচ্ছা

টিটুল মোল্লা।।

মাসব্যাপী কঠোর সিয়াম সাধনার পর ঈদ-উল-ফিতর বয়ে আনুক অনাবিল সুখ ও আনন্দ। পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের মহিমায় উদ্ভাসিত হয়ে উঠুক ফরিদপুর পৌরসভা ১২ নং ওয়ার্ডের জনগন, সকল শ্রমিক ভাই,ফরিদপুর তথা বাংলাদেশের সকল নাগরিকের জীবন ।

 

গোলাম মোঃনাছির বলেন,পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের এই আনন্দঘন দিনে মানুষে মানুষে প্রীতি ও বন্ধনের যোগসূত্রের মাধ্যমে দূর হয়ে যাক সকল অনৈক্য ও বিভেদ।

বঙ্গবন্ধু সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ক্ষুধা দারিদ্রমুক্ত ও তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে আসুন আমরা এই ঈদ-উল-ফিতরে প্রদীপ্ত শপথ নেই।

 

তাছাড়া বর্তমান সময়ের কঠিন পরিস্থিতি মোকাবেলায় আমাদের প্রত্যেককে সচেতন এবং সতর্কতার সহিত জীবনযাপন করতে হবে। 

 

শান্তি, সমৃদ্ধি ও উৎসবমুখর পরিবেশে ঈদ উদযাপনের প্রত্যাশায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে সবাইকে জানাই পবিত্র ঈদের শুভেচ্ছা ।

ঈদ মোবারক

 

চেয়ারম্যান শাহজালাল মাল এর সুনাম নষ্টের নানান পরিকল্পানা একটি কুচক্রীমহলে

শরীয়তপুর প্রতিনিধি:
শরীয়তপুরের সখিপুর দক্ষিণ তারাবুনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের স্বনামধন্য চেয়ারম্যান ও সখিপুর থানা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক শাহজালাল মাল এ সুনাম নষ্টের পায়তারার অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি একটি স্থানীয় একটি কুচক্রীমহলের বিরুদ্ধে। আবারও নানান মাধ্যমে অপ্রচার ও গুজব ছড়াচ্ছে। এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান যথাযথ কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছে। এছাড়াও তিনি আইনী পদক্ষেপ গ্রহণ করবে বলে জানিয়েছেন।

জানা যায়, সম্প্রতি স্থানীয় একটি কুচক্রীমহল ইউপি চেয়ারম্যান শাহজালাল মালের ভালো কাজে ঈর্ষান্বিত হয়ে এলাকার শান্তি-শৃঙ্খলা নষ্ট করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছে। তারই ধারবাহিকতায় (৭মে, শুক্রবার) ভোর ৪.৩০ মিনিট এর দিকে চাউলের বস্তা নিয়ে দক্ষিণ তারাবুনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সামনে অবস্থান করে।

পরে ইউনিয়ন পরিষদের চৌকিদার-দফাদ্দার দিয়ে চেয়ারম্যান শাহজালাল মালকে ফোন করে, ফোন বন্ধ পাওয়ায় চেয়ারম্যানের ছোট ভাই নাজমুল মালকে ফোন করে ডেকে আনে। আর পরিকল্পিতভাবে ভিডিও দারন করে একটি নাটকীয় ঘটনা ঘটানোর চেষ্টা করে কুচক্রীমহল। পড়ে ভিডিও টি Hasan Masud
নামে একটি ফেইসবুক থেকে আপলোড দেওয়া হয়।

পরে স্থানীয় লোকজন চলে আসলে তারা পালিয়ে যায়। পরে ওই ভিডিও নানান মাধ্যমে প্রকাশ করে চেয়ারম্যান ও তার পরিবারের সদস্যদের সুনাম নষ্টের চেষ্টা করে।

এব্যাপারে স্থানীয় অনেকেই বলেন, চেয়ারম্যান শাহজালাল মাল দ্বিতীয় মেয়াদে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে একটি কুচক্রীমহল ঈর্ষান্বিত হয়ে তার বিরুদ্ধে লেগেছে। তারা খুবই বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। একের পর এক অপকর্ম করেই চলছে। ওই কুচক্রীমহল নানান মাধ্যমে চেয়ারম্যান ও তাঁর পরিবারের সদস্যের সুনাম নষ্ট করার চেষ্টা করে চলছে।

এ ব্যাপারে দক্ষিন তারাবুনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সখিপুর থানা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক শাহজালাল মাল বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা ও পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একে এম এনামুল হক শামীম এমপি মহোদয় এর কাছে আকুল আবেদন, আমি শপথ গ্রহনের পর থেকেই একটি কুচক্রমহল আমার পিছনে উঠে পড়ে লেগেছে, তারই ধারাবাহিকতায় (৭ মে, শুক্রবার) ভোর ৪.৩০ মিনিটে একটি অটোরিক্সায় করে ৬/৭ বস্তা মিনিকেট চাউল নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের সংলগ্ন অবস্থান করে, তখন আমার ইউনিয়ন পরিষদের চৌকিদার ও দফাদ্দার আমাকে ফোন দিয়ে আমার বন্ধ পাওয়ায় আমার ছোট ভাই নাজমুল কে ফোন দিয়ে আনা হয়। আমার ছোট ভাই নাজমুল মাল যাওয়ার পর পর ওদেরকে জিজ্ঞাসা করে চাউল কোথায় থেকে এনেছো। তখন ওরা পূর্বপরিকল্পিত ভাবে ভিডিও ধারন করে। একটি নাটকীয় ঘটনা সাজিয়ে আমার সুনাম নষ্ট করতে চায়। লোকজন জরো হওয়ার সাথে সাথে তারা পালিয়ে যায়। আমি আপনার কাছে এই কুচক্রী মহলের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করবো তাই আপনার সহযোগিতা ও সু- দৃষ্টি কামনা করছি।

আর ওই কুচক্রীমহল যতই ষড়যন্ত্র করুক, তারা সফল হবে না। কারণ, এলাকার জনগণ আমার সাথে আছে। আমি সারাজীবন মানুষের কল্যাণে কাজ করেছি এবং আগামীতেও করতে চাই । এ জন্য সকলের দোয়া ও আশির্বাদ কামনা করছি।

এদিকে, চেয়ারম্যান শাহজালাল মালের বিরুদ্ধে নানান মাধ্যমে মিথ্যা ভাবে অপপ্রচার করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন জনসাধারণ ও স্থানীয় আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

ভেদরগঞ্জে ঠিকাদারের অবহেলায় স্কুলের দেয়াল ভেঙ্গে পড়লো

 

শাহদত হোসেন
ভেদরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

ভেদরগঞ্জ পৌরসভার ড্রেনেজ ব্যবস্থার কাজ করতে গিয়ে ঠিকাদারের অবহেলায় ভেদরগঞ্জ সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের পশ্চিম পাশের দেয়াল ভেঙ্গে পড়েছে।

সাম্প্রতি গেলো দুইদিনের বৃষ্টিতে মাটি ধুয়ে সরে যাওয়ায় এমনটা হয়েছে জানান ঐ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান প্রতিনিধি শাহজাহান মোল্লা।

ভেদরগঞ্জ সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ সিদ্দিকুর রহমান বলেন, দেয়ালটি পৌরসভার ড্রেনের কাজ করার জন্য ভেঙ্গে পড়েছে। আমি মেয়র মহোদয়কে জানিয়েছি। তিনি দেয়ালটি পুনরায় সংস্কারের আশ্বাস দিয়েছেন।

এবিষয়ে ভেদরগঞ্জ পৌরসভার ইন্জিনিয়ার কামরুজ্জামান বলেন,দেয়ালটি ঠিকাদারের কাজ করার জন্য বৃষ্টিতে মাটি গলে যাওয়ায় ভেঙ্গে যায়। দেয়ালটি পুনরায় নির্মান করে দেয়া হবে।