শরীয়তপুরে রাস্তার দাবিতে গ্রামবাসীর মানববন্ধন।

শরীয়তপুর সদর উপজেলার পালং ইউনিয়নের পাটানীগাঁও তেলীবাড়ি এলাকার রাস্তা সংস্কারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসী। ০২ জুন বুধবার দুপুরে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয় প্রধান ফটকের সামনে রাস্তা সংস্কারের দাবিতে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও বিভিন্ন শ্রেনীপেশার ১ হাজার সমপরিমান এলকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।

জানায়ায়, রাস্তাটি তৈরি হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত কোন কাজ করা হয়নি। মাত্র ৩ কিলোমিটার রাস্তা ঘিরে প্রায় ৫ হাজার মানুষের বসবাস। এ রাস্তা দিয়ে ১০ গ্রামের মানুষের যাতায়াত। ধামসী, চাঁদসার, সিঙ্গাচুড়াসহ প্রায় ১০টি গ্রামের ৫ হাজার মানুষের যাতায়াত বৃক্ষতলা থেকে তেলীবাড়ি রাস্তা দিয়ে। রাস্তাটি প্রায় ৬শত বছরের পূরানো হলেও গত কয়েক বছর পূর্বে ইটের সোলিং করা হয়। বিগত দিনের বন্যা ও ভারী বর্ষণে রাস্তার ইট সরে গিয়ে বিভিন্ন স্থানে খানাখন্দ হয়ে রাস্তাটি জনচলাচলের অনুপযোগী হয়ে গেছে। এ কারণে ১০টি গ্রামের শিক্ষার্থীরা শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। চিকিৎসা বঞ্চিত হচ্ছে রোগীরা।

মানবন্ধনে এলাকাবাসী বলেন, দীর্ঘ এক যুগেরও বেশি সময় আগে রাস্তাটি নির্মাণ করা হয়। এরপরে আর কোন সংস্কার করা হয়নি। বর্তমানে রাস্তাটি ভাঙ্গাচুরা ও বেহাল দশায় পরিণত হওয়ায় গ্রামের প্রায় ৫ হাজার মানুষের যাতায়াতে চরম ভোগান্তির কারণ হয়ে উঠেছে। রোগী নিয়ে সময়মত হাসপাতালে যাওয়া যায় না। শিক্ষার্থীরা শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। যোগাযোগের অভাবে বেকার হয়ে পড়েছে অনেক যুবক। দ্রুত রাস্তাাটি সংস্কার করা এখন সকলের প্রাণের দাবি হয়ে উঠেছে।

মানববন্ধনকারীরা দাবি করেন প্রাচীন এই জনপদ দিয়ে ধামসী, চাঁদসার, সিঙ্গাচুড়াসহ প্রায় ১০টি গ্রামের ৫ হাজার মানুষের যাতায়াত বৃক্ষতলা থেকে তেলীবাড়ি রাস্তা দিয়ে। রাস্তাটি প্রায় ৬শত বছরের পূরানো হলেও গত কয়েক বছর পূর্বে ইটের সোলিং করা হয়। বিগত দিনের বন্যা ও ভারী বর্ষণে রাস্তার ইট সরে গিয়ে বিভিন্ন স্থানে খানখন্দ হয়ে রাস্তাটি জনচলাচলের অনুপযোগী হয়ে গেছে।
মানববন্ধনে শেষে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন মানববন্ধনকারীরা

প্রস্তাবিত বাজেট গাঁজাখুরি: রুমিন ফারহানা

২০২১-২০২২ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটকে গাঁজাখুরি বাজেট বলে মন্তব্য করেছেন
বিএনপির দলীয় হুইপ ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা। বলেন, এই বাজেটে জনগণের কোনো কথা নেই।

আজ বৃহস্পতিবার প্রস্তাবিত বাজেট সম্পর্কে কথা বলার সময় তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে জনগণের কোনো কথা নেই। করোনা মোকাবিলায় আমরা একটি অন্তর্বর্তীকালীন ছয় মাসের বাজেট প্রস্তাব করার কথা বলেছিলাম কিন্তু গতানুগতিক সেই আগের মতোই বাজেট প্রস্তাব করা হয়েছে। বাজেটে সেই প্রবৃদ্ধির কথা বলা হয়েছে, মাথাপিছু আয়ের কথা বলা হয়েছে কিন্তু বাজেটে খেটে খাওয়া মানুষের কথা বা মধ্যবিত্তের কোনো কথা বলা হয়নি।

তিনি আরও বলেন, দুঃখজনক হলেও সত্য যে আমরা দারিদ্র্য ২০ শতাংশে নামিয়ে এনেছিলাম কিন্তু সেই দারিদ্র্য এখন ৪২ শতাংশ হয়েছে। নতুন করে যারা দারিদ্র্যসীমার
নিচে নেমেছেন তাদের তালিকা সরকারের কাছে নেই।

অকালে পুরুষত্ব নষ্ট হতে পারে যে ৮টি অভ্যাসে

সুস্থ থাকার জন্য চাই স্বাস্থ্যকর জীবনপদ্ধতি। লি’ঙ্গ সুস্থ রাখতেও তাই ত্যাগ করতে হবে বদভ্যাস। সঠিক না জেনে, উড়ো কথায় কান দিয়ে অনেকেই মনে করেন, ‘আমার হয়ত সমস্যা আছে’।

সমস্যা কী, আদৌ সমস্যা আছে কিনা সে বিষয়ে চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলতেও বিব্রত বোধ করেন।

সমস্যা যদি মনেই হয় তাহলে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন। তবে বাজে অভ্যাসের কারণেও পুরুষের জননেন্দ্রিয়ের কর্মক্ষমতার ক্ষতি হতে পারে। এসব বদভ্যাস প্রতিনিয়ত করতে থাকলে পৌরষত্বের ধার কমতেই থাকবে।

চিকিৎসাশাস্ত্র ও বিভিন্ন গবেষণা অনুসারে স্বাস্থ্যবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অবলম্বনে বদভ্যাসগুলোর একটা তালিকা নিচে দেয়া হল।

১.বসে বসে সময় কাটানো: গবেষণা বলে, যারা নিয়মিত শারীরিক পরিশ্রম করেন তাদের যৌ’নস্বাস্থ্য ভালো থাকে। আর যারা আজীবনই কুঁড়েমি করেছেন কিংবা আগে পরিশ্রমি ছিলেন এখন অলস সময় পার করছেন তাদের মধ্যে যৌ’ন অক্ষমতা দেখা দেয়ার আশঙ্কা বেশি।

২. ধূমপান: বিটিশ জার্নাল অফ ইউরোলজি’তে প্রকাশিত ৮ সপ্তাহে ধূমপান ছাড়ার এক গবেষণায় বলা হয়, অংশগ্রহণকারীদের ২০ শতাংশ স্বীকার করেছেন যে তারা পুরুষাঙ্গ দৃঢ় হওয়ার সমস্যায় ভুগছেন। ধূমপান ছাড়ার পর এদের মধ্যে ৭৫ শতাংশেরই যৌ’নক্ষমতা বেড়েছে, পুরু’ষাঙ্গ হয়েছে দৃঢ়।

৩.দাঁতের অপরিচ্ছন্নতা: শুনতে আজব মনে হলেও গবেষণা মতে, যার পুরু’ষাঙ্গ ভালোভাবে দৃঢ় না হওয়ার সমস্যা আছে, তার মাড়ির সমস্যা থাকার আশঙ্কা সাধারণের তুলনায় সাতগুন বেশি। এর কারণ হল মুখের ব্যাকটেরিয়া সারা শরীরে প্রবাহিত হয় এবং তা পুরু’ষাঙ্গের ধমনির উপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে।

৪.অপর্যাপ্ত ঘুম: শরীরের ঘুমের চাহিদা পূরণ না হলে ‘টেস্টোস্টেরন’য়ের মাত্রা কমে যায়। ফলে অবসাদ হয়। যা থেকে পেশি ও হাড়ের ঘনত্বও কমে যেতে পারে। দুইটি প্রভাবই পুরুষাঙ্গের জন্য ক্ষতিকর।

৫.অপর্যাপ্ত সঙ্গম: সঙ্গমের পরিমাণ দম্পতিভেদে বিভিন্ন। তবে ‘আমেরিকান জার্নাল অফ মেডিসিন’য়ের একটি গবেষণায় দেখা গেছে, প্রতি সপ্তাহে কমপক্ষে একবার সঙ্গ’মে লিপ্ত না হলে পু’রুষাঙ্গ ভালোভাবে দৃঢ় না হওয়ার সমস্যা দেখা দিতে পারে। সপ্তাহে তিনবার সঙ্গম হল আদর্শ।

৬.তরমুজ: ‘সিট্রুলাইন-আর্জিনাইন’ নামক উপাদানের ভালো উৎস তরমুজ। এর কাজই হল শরীরের যৌ’নক্ষমতার উন্নতিসাধন। উপাদানটি শরীরে নাইট্রিক অক্সাইডের মাত্রা বাড়ায় এবং পুরুষাঙ্গ দৃঢ় না হওয়ার সমস্যা সারাতে সক্ষম। তাই প্রতিদিন তরমুজ খাওয়ার পরিমাণ বাড়াতে পারলে ভালো।

৭.ট্রান্স ফ্যাট: শরীর প্রচুর ট্রান্স ফ্যাট গ্রহণ করলে শুক্রাণুর মান খারাপ হতে থাকে। তাই শুক্রাণুর সুস্বাস্থ্য ধর রাখতে স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে হবে এবং ট্রান্স ফ্যাট খাওয়ার পরিমাণ কমাতে হবে।

৮.অতিরিক্ত টেলিভিশন দেখা: ব্রিটিশ জার্নাল অফ স্পোর্টস মেডিসিন’য়ে প্রকাশিত হার্ভার্ড স্কুল অফ পাবলিক হেলথ’য়ের করা একটি গবেষণায় দেখা দেখা গেছে সপ্তাহে ২০ ঘণ্টার বেশি সময় টেলিভিশন দেখা পুরুষের শুক্রাণুর মাত্রা ৪৪ শতাংশ পর্যন্ত কমিয়ে দিতে পারে।

অশ্লীল ভিডিও দেওয়া টিকটকারদের ধরতে অভিযান পুলিশের

যে সব ছেলেমেয়েরা টিকটকে অশ্লীল ভিডিও বানাচ্ছে, তাদের ধরতে অভিযান শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন তেঁজগাও ডিভিশনের ডিসি মো. শহীদুল্লাহ।

সেলিব্রিটি হওয়ার সাথে অর্থের লোভ এই দুটি কারণেই টিকটকের অপরাধী চক্রে জড়িয়ে পড়তো কিশোরীরা। সম্প্রতি ভাইরাল হওয়া ভিডিওর নির্যাতিত মেয়েটিই একমাত্র ভুক্তভোগী নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, আরও বেশ কয়েকজন ভুক্তভোগীর খোঁজ পাওয়া গেছে।

দুপুরে এই পুলিশ কর্মকর্তা তার নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। রিমান্ডে থাকা হৃদয় বাবুসহ গ্রেফতার আসামিরা তাদের সিন্ডিকেটে থাকা আরও অনেকের নাম বলেছেন। সেইসাথে তারা মেয়েদের ভারতে ‘পিস’ হিসেবে চালান করতো বলেও স্বীকার করেছে।

তবে তাদের দেওয়া কিছু তথ্যের সত্যতা নিয়ে সন্দিহান এই পুলিশ কর্মকর্তা। তথ্য যাচাই বাছাই করে সংশ্লিষ্ট অন্যান্য অপরাধীদের ধরতে অভিযান চলছে বলে জানান তিনি।

তৃতীয় লিঙ্গের কর্মী নিয়োগে কর ছাড় পাবে।

তৃতীয় লিঙ্গের কর্মী নিয়োগে কর ছাড় পাবে প্রতিষ্ঠান
কোনো প্রতিষ্ঠান তৃতীয় লিঙ্গের কর্মী নিয়োগ দিলে কর ছাড় পাবে বলে চলতি অর্থবছরের বাজেটে প্রস্তাব করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৩ জুন) বিকেলে জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত বাজেট উত্থাপনকালে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানান, দেশের প্রান্তিক ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষকে সামাজিক এবং অর্থনীতির মূলধারায় আনতে সরকারের যে চেষ্টা, তা ফলপ্রসূ করতেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

দেশের ইতিহাসের সবচেয়ে বড় বাজেট পেশ করছেন অর্থমন্ত্রী

ঢাকা- ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রস্তাবিত ৬ লাখ ৩ হাজার ৬৮১ কোটি টাকার বাজেট পেশ করছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বৃহস্পতিবার (৩ জুন) বেলা ৩টায় জাতীয় সংসদের অধিবেশনে বাজেট বক্তৃতার মাধ্যমে প্রস্তাবিত বাজেট পেশ শুরু করেন তিনি। অর্থমন্ত্রী হিসেবে তার এটি তৃতীয় বাজেট।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরু হওয়া অধিবেশনে উপস্থিত রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মন্ত্রীদের মধ্যে উপস্থিত রয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, তথ্যমন্ত্রী ড হাছান মাহমুদ প্রমুখ।‌

এর আগে ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট অনুমোদন করে মন্ত্রিসভা। জাতীয় সংসদ ভবনের মন্ত্রিপরিষদ কক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বিশেষ বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়।

সকালেই বৈঠকে যোগ দিতে সংসদ ভবন এলাকায় পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অর্থমন্ত্রীসহ মন্ত্রিসভার অন্য সদস্যরাও এতে অংশ নেন।

‘জীবন ও জীবিকার প্রাধান্য, আগামীর বাংলাদেশ’ শীর্ষক প্রস্তাবিত বাজেটের আকার ধরা হয়েছে ৬ লাখ ৩ হাজার ৬৮১ কোটি টাকা। দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ঘাটতি বাজেট হতে যাচ্ছে ৫০তম এ বাজেট। আলোচিত এই বাজেটে অনুদানসহ ঘাটতির পরিমাণ দাঁড়াচ্ছে ২ লাখ ১১ হাজার ১৯১ কোটি টাকা। যা জিডিপির ৬ দশমিক ১ শতাংশ। অনুদান বাদ দিলে ঘাটতির পরিমাণ দাঁড়ায় ২ লাখ ১৪ হাজার ৬৮১ কোটি টাকা।

করোনার পরিস্থিতির মধ্যে এটি দ্বিতীয় বাজেট এবং আওয়ামী লীগের এই তৃতীয় মেয়াদের সরকারের ও অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামালের এটি তৃতীয় বাজেট। এটা দেশের ৫০তম এবং স্বাধীনতার পর থেকে আওয়ামী লীগ সরকারের ২২তম বাজেট।

বুকের দুধ বিক্রি করেই লাখপতি নারী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ঃ
দুই সন্তানের মা তিনি। বয়স ২৪ বছর৷ ব্যবসার কারণেই লাখপতি হয়েছেন তিনি। তবে সাধারন ব্যবসা নয় নিজের বুকের দুধ বিক্রি করেন এই নারী৷ সাইপ্রাসের এই নারীর নাম রাফেলিয়া ল্যামপ্রোউ ৷

যখন তার ছেলে আঞ্জেলিও জন্ম হয়, তখন তিনি দেখেন ছেলেকে দুধ খাওয়ানোর পরেও অনেকটা দুধ বেঁচে যাচ্ছে৷ তখনই নিজের বুকের দুধ দান করার কথা ভাবেন রাফেলিয়া৷
প্রথমে কিছু বাচ্চাদের, যারা মাতৃদুগ্ধ পায়না তাদের মধ্যে নিজের বুকের দুধ বিক্রি করেন৷ তারপর এই কাজটি ব্যবসায় রূপান্তরিত হয়৷ রাফেলিয়া জানায়,

প্রতিদিন ২ লিটারেরও বেশি দুধ তৈরি হত তার৷ এত দুধ নিয়ে কী করবেন তিনি ভেবে পাচ্ছিলেননা৷ শেষ পর্যন্ত এক দম্পতিকে তিনি সাহায্য করতে এগিয়ে আসেন৷ সদ্যোজাতের জন্য ওই মায়ের কাছে মাতৃদুগ্ঘের যোগান ছিল খুবই কম৷

এই সময়ই বেশকিছু বডি বিল্ডার তার কাছে বুকের দুধ কেনার ইচ্ছা প্রকাশ করেন৷ শরীরের গ্রোথের জন্য যেহেতু এই দুধ খুবই উপকারি, সে কারণেই বডি বিল্ডারদের কাছে দিনে দিনে মাতৃদুগ্ধের চাহিদা বাড়তে থাকে৷

এরপর থেকেই রাফেলিয়া বাণিজ্যিকভাবে বুকের দুধ বেঁচতে শুরু করেন৷ ধীরে ধীরে এটাই তার পেশায় পরিণত হয়েছে। প্রতি আউন্স দুধের জন্য ১ ইউরো নিতে শুরু করেন তিনি৷

রাফেলিয়ার স্বামী অ্যালেক্সও তার এই কাজে কখনো বাঁধা দেননি বরং বরাবর তিনি সাপোর্ট করেছেন৷ এখন নিজের একটি ফেসবুক পেজ ও ওয়েবসাইট চালান রাফালিয়া৷ সেখানে পরিষ্কার লেখা রয়েছে যে, তিনি মদ খাননা, ধূমপানও করেননা৷ এখন অনলাইনেই নতুন মা বা বডি বিল্ডাররা মাতৃদুগ্ধের জন্য তার কাছে আবেদন করেন৷

1 2