প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডেল্টা প্লান অনুযায়ী কাজ চলছে আলহাজ্ব নাহিম রাজ্জাক এমপি।

বিআইডব্লিউটিএর এর চেয়ারম্যান কর্মকর্তাদের সাথে চরজালালপুর বিভিন্ন স্থানের নদী ভাঙ্গন, জয়ন্তী নদী ড্রেসিং প্রকল্প, ডামুড্যা ও গোসাইরহাট উপজেলা লঞ্চটামিনাল পরিদর্শন করেন শরীয়তপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নাহিম রাজ্জাক বলেছেন,

নৌপথ রক্ষার জন্য জাতির জনকের কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডেল্টা প্লান অনুযায়ী কাজ চলছে। তার নির্দেশে ও পরিকল্পনা মতে শরীয়তপুর জেলার ডামুড্যা ও গোসাইরহাট নৌবন্দরকে সাজানো হবে। এর পূর্বে পরিকল্পনা অনুযায় চয়ন্তিয়া ও পদ্মার শাখা নদী খননের মাধ্যমে ডামুড্যা-ঢাকা নৌপথকে সচল করা হবে।

এ জন্য গোসাইরহাটের পট্টি ঘাটে একটি ড্রেজার চলে এসেছে। আরো বেশ কয়েটি ড্রেজার আসবে। তিনি ৯ জুন বুধবার তার নির্বাচনী এলাকা ডামুড্যা ও গোসাইরহাট উপজেলার নদী ভাঙ্গন কবলিত বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন নদী ড্রেজিং কাজ পরিদর্শনকালে সমবেত জনতার উদ্দেশ্য এসব কথা বলেন। নহিম রাজ্জাক বলেন, বিএনপির বহুদলীয় গণতন্ত্র বহুদলীয় তামাশা ছিলো।

ক্ষমতায় যেতে দলের মহাসচিব ফখরুল সাহেবরা রঙিন চশমার ফাঁক দিয়ে খোয়াব দেখছেন বলে তিনি মন্তব্য করেন। ২০০৬ সালে ১ কোটি ২৫ লাখ ভুয়া ভোটার দিয়ে বিএনপি গণতন্ত্রের কফিনে শেষ পেরেক মারতে চেয়েছিলো, দলীয় লোককে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান করতে চেয়ে বিএনপি ওয়ান ইলেভেনের প্রধান কারণ সৃষ্টি করেছিলো। বিচারপতিদের বয়স বাড়িয়ে দলীয় লোক এম হাসানকে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান করতে চেয়েছিলো। এখন দেশের বিরোধী দল হিসেবে গণতন্ত্রের বিকাশে বিএনপি কি ভূমিকা রেখেছে আজ জাতি তা জানতে চায়।

নাহিম রাজ্জাক সকালে ডামুড্যা নৌবন্দর থেকে বিআইডব্লিউটি এর লঞ্চ যোগে কোদালপুর, জালারপুর, মাঝেরচর, টেকবাজার, কুচাইপট্টি, মাইঝারা, নলমুড়ি, দাসের জঙ্গল, পট্টি, তালতলা হয়ে পুণরায় ডামুড্যায় এসে সমবেত জনতার সমাবেশে বক্তব্য রাখেন।

এসময় বিআইডব্লিউটি এর চেয়ারম্যান কমরেড গোলাম সাদেক, জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে, বন্দর ও পরিবহন পরিচালক কাজী ওয়াফিল নেওয়াজ, নৌসংরক্ষণ ও পরিচালনা পরিচালক রফিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশল রাফিকুল ইসলাম তালুকদার, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আহসান হাবীব, গোসাইরহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলমগীর হোসাইন, ডামুড্যা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ গোলন্দাজ সহ জেলা ও উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ঝালমুড়ি খাওয়ানোর কথা বলে দুই বান্ধবীকে নিয়ে ধর্ষণ ।

মঙ্গলবার (০৮ জুন) রাতে নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার নবীগঞ্জ ইসলামবাগ এলাকায় আলাউদ্দিন মিয়ার বাড়িতে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। পরে ভুক্তভোগী বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করলে বন্দর থানা পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে।
বন্দর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে দায়ের করা এ মামলায় পাঁচজনের নাম উল্লেখ করা হয়।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- সদর থানার এম সার্কাস এলাকার গোপাল মিয়ার ভাড়াটিয়া টিটু মিয়ার ছেলে সিফাত হোসেন (১৮), হাজীগঞ্জ এলাকার রাজু মিয়ার বাড়ি ভাড়াটিয়া আব্দুল মান্নান সরদারের ছেলে সিফাত (২১), বন্দর উপজেলার নবীগঞ্জ ইসলামবাগ এলাকার আলাউদ্দিন মিযার ছেলে সাকিব হোসেন (২৪) ও একই এলাকার মৃত বাহাউদ্দিন মিয়ার ছেলে নাইম (২৪)। মামলার অপর আসামি শাকিল (২২) পলাতক রয়েছে।
মামলার এজাহারে বাদী জানান, গত আটদিন আগে বন্দর উপজেলার নবীগঞ্জ গুদারাঘাটে নারায়ণগঞ্জ সদর থানার এম সার্কাস এলাকার টিটু মিয়ার ছেলে সিফাত হোসেন ও হাজীগঞ্জ এলাকার আব্দুল মান্নান মিয়ার ছেলে সিফাতের সঙ্গে তার ও এক বান্ধবীর পরিচয় হয়। পরে উভয়ের মধ্যে মোবাইল ফোন নাম্বার আদান প্রদান করা হয়। পরবর্তীতে উভয়ের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।
এর ধারাবাহিকতায় গত ৮ জুন মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৫টায় ধর্ষণ মামলার বাদী ও তার বান্ধবী কদম রসুল দরগাহ দেখতে নবীগঞ্জ ঘাটে  এলে ওই সময় সিফাত (১) ও সিফাত হোসেনসহ (২) তাদের বন্ধু সাকিব হোসেন, নাঈম ও শাকিলের সঙ্গে দেখা হয়। পরে ওই যুবকরা তাদের দুই বান্ধবীকে ঝালমুড়ি খাওয়ানোর কথা বলে নবীগঞ্জ ইসলামবাগ এলাকার আলাউদ্দিন মিয়ার বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে পাশাপশি দুইটি রুমে দুই বান্ধবীর সাথে সিফাত (১) ও সিফাত (২) নামে তাদের দুই বন্ধুকে ঘরে ঢুকিয়ে বাইরে থেকে দরজা লাগিয়ে দেয় তাদের অপর বন্ধুরা। পরে উল্লেখিত দুই বন্ধু তাদের দুই বান্ধবীকে তালাবদ্ধ ঘরে আটকে রেখে ধর্ষণ করে।
এ ব্যাপারে বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহ জানান, মামলা দায়েরের পর ধর্ষিতা দুই তরুণীকে ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়েছে। এছাড়া গ্রেপ্তারকৃত আসামিদের দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

মানবতার এক অন্যান্য ব্যক্তির নাম ২০নংওয়াবর্ড কাউন্সিলর মোঃ নাছির।

নিউজ ২৪লাইন ডটকম ঃ

সাততালা বস্তিতে আগুনে পুড়ে যাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ছেন ২০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ নাছির, পাগলের মতো ছুটে জান অসহায় মানুষের পাশে।তার সাধ্য মতে তাদের পাশে থেকে নানা সাহায্য সহোযুগিতা করে আচ্ছেন

।এবং অসহায় মানুষের জন্য, তিন বেলা খাবার রান্না করে খাওয়ানো হচ্ছে, এক জন ভুক্তভোগী  রাবেয়া বেগম বলেন আমাদের কাউন্সিলর নাছির ভাই আমাদের জন্য খাবার রান্না করে নিয়ে আসে আমি তার জন্য মন থাকে দোয়া করি।

ভালুকায় ৯ বছরের শিশুকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা।

ভালুকায় নয় বছরের শিশুকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় মামলা করেছেন শিশুটির বাবা। অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ওই শিক্ষকের নাম মাহমুদুল হাসান। সে উপজেলার হবিরবাড়ি ইউনিয়নের আব্দুল মজিদের ছেলে। তিনি স্থানীয় একটি কিন্ডার গার্টেনে শিক্ষকতা করেন।

বিষয়টি  করেছেন ভালুকা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল ইসলাম।

মামলার বরাত দিয়ে তিনি বলেন, প্রতিদিন শিক্ষক মাহমুদুলের কাছে ওই শিশুসহ ৮ থেকে ১০ জন প্রাইভেট পড়তো। সোমবার (৭ জুন) সকালে ভিকটিমসহ অন্যান্য শিশুরা শিক্ষকের কাছে প্রাইভেট পড়তে যায়। দুপুর ১২টার দিকে ওই শিশুকে রেখে অন্য শিশুদের ছুটি দিয়ে দেন শিক্ষক। পরে শিশুটিকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। শিশুটির ডাকচিৎকারে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে বিষয়টি কাউকে না বলতে শিশুকে ১০ টাকা দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। বাড়িতে গিয়ে শিশুটি তার মা-বাবার কাছে ঘটনাটি বলে দেয়।

রাতেই শিশুকে নিয়ে থানায় গিয়ে অভিযোগ দেন ভুক্তভোগীর বাবা। পরদিন মঙ্গলবার দুপুরে অভিযোগটি মামলা হিসেবে নথিবদ্ধ করা হয়। ওই শিক্ষককে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে শরিয়তপুর সরকারি কলেজের নামকরণ করায় আনন্দ মিছিল।

জাতিরপিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে শরিয়তপুর সরকারি কলেজের নামকরণ করায় আজ শরিয়তপুর কলেজ শাখা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে বিশাল এক আনন্দ র‍্যালী এবং র‍্যালী শেষে কলেজ চত্বরে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশের আয়োজন করা হয়। উক্ত সমাবেশে বক্তারা কলেজের নতুন নামকরণের জন্য প্রথমেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এরপরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের অন্যতম সদস্য ও শরিয়তপুর-১ (পালং-জাজিরা) আসনের এমপি জনাব ইকবাল হোসেন অপুর প্রতি বিশেষ ধন্যবাদ বক্তব্য দিয়েছেন।

শরীয়তপুর সরকারি কলেজের নাম পরিবর্তনে ফেসবুকে সমালোচনার ঝড়

আরো পড়ুন জাতিরপিতা বঙ্গবন্ধুর নামে শরিয়তপুর সরকারি কলেজের নতুন নামকরণ

সমাবেশে শরিয়তপুর জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক জনাব রাশেদুজ্জামান বলেন, “২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পর জনাব ইকবাল হোসেন অপু শরিয়তপুরের মাটি ও মানুষের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।এজন্য তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার সাথে বার বার শরিয়তপুরের বিষয়ে কথা বলেন”।


অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের অন্যতম সহ-সভাপতি ফাহাদ হোসেন তপু বলেন, ‘শরিয়তপুর সরকারি কলেজের নাম জাতিরপিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সরকারি কলেজ করায় আমরা আজ আনন্দিত ও গর্বিত’।

অনুষ্ঠানে সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সোহাগ বেপারি এবং অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাসেল জমাদ্দার ।


শরীয়তপুর সরকারি কলেজের নাম পরিবর্তনে ফেসবুকে সমালোচনার ঝড়

এছাড়াও সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন জেলার অন্যতম ছাত্রলীগ নেতা আসাদুজ্জামান শাওন, জাহাঙ্গীর চৌকিদার, ,সাদ্দাম হোসেন, সাইফুল ইসলাম সোহান,রাকিব হাসান,মকবুল মাদবর,আদনান শামীম, সবুর সরদার,কাওসার,মঞ্জুর,লিমনসহ আরো অনেক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন

শরীয়তপুরের বুড়িরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রীকে প্রেমের ফাদে ফলে ভারতে পাচারের চেষ্টা।

শরীয়তপুর সদর উপজেলার বুড়িরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১৬) ভারতে পাচার করার চেষ্টা ♠করা হয়েছিল। নারী ও শিশু পাচার রোধে কাজ করা একটি বেসরকারি সংস্থা মঙ্গলবার (৮ জুন) যশোরের চাষাড়া এলাকা থেকে ওই কিশোরীকে উদ্ধার করেছে। বর্তমানে ওই কিশোরী সংস্থাটির সেফহোমে রয়েছে।

বুধবার (৯ জুন) জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে পরিবারের কাছে কিশোরীকে হস্তান্তর করা হবে।

বিজ্ঞাপন

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ফেসবুকে পরিচয় সূত্রে প্রেম। পরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই কিশোরীকে সোমবার (৭ জুন) গ্রামের বাড়ি থেকে যশোর নিয়ে যাওয়া হয়। মঙ্গলবার ভোরে তাকে পাচারের উদ্দেশ্যে যশোরের চাষাড়া বাসস্ট্যান্ডে নেয়া হয়। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বেসরকারি সংস্থা অপারেশন জেনারেশনের নারী কর্মীরা তাকে উদ্ধার করে মহিলা অধিদফতর নিয়ে যায়।

পরে যশোর মহিলা অধিদফতর থেকে শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) পারভেজ হাসানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। জেলা প্রশাসন থেকে মঙ্গলবার বিকেলে ওই কিশোরীর পরিবারকে উদ্ধার হওয়ার খবর দেয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

কিশোরীর পরিবার জানায়, সদর উপজেলার একটি গ্রামের ভ্যান চালকের মেয়ে ওই কিশোরী। তার মা প্রবাসে থাকায় বাবার সঙ্গেই মেয়েটি বসবাস করত। বিদ্যালয় বন্ধ থাকায় ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আসক্ত হয়ে পড়ে। ছয় মাস আগে মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার লক্ষ্মীপুর গ্রামের মাজহারুল নামে এক যুবকের সঙ্গে ফেসবুকে প্রেম করে বিয়ে করে। চার মাস সংসার করার পর প্রতারিত হয়েছে এমন ভেবে তাকে ছেড়ে চলে আসে।

এরপর এক মাস আগে ফেসবুকে যশোরের এমডি শিহাব খান নামের এক যুবকের সঙ্গে পরিচয় হয়। পরিচয় থেকে প্রেমের সম্পর্ক হয়। রোববার ওই শিহাব খান কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে যশোর যেতে বলেন। কিশোরী সোমবার দুপুরে একটি মোটরসাইকেল ভাড়ায় নিয়ে রাত ৯টায় যশোর পৌঁছে। সেখানে অপেক্ষারত ওই যুবক তাকে মনিহার এলাকার একটি হোটেলে নিয়ে যায়।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু কিশোরী হোটেলে থাকতে অনীহা প্রকাশ করে। তখন তাকে শহরের একটি বস্তিতে এক নারীর কাছে রাখা হয়। রাতেই তার কাছে থাকা তিন হাজার টাকা ও মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়া হয়।

এরপর ভোর ৪টার দিকে ওই কিশোরীকে নেয়া হয় চাষাড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায়। ওই বাসস্টান্ড থেকে ভারতের সীমান্তবর্তী বিভিন্ন এলাকায় বাস চলাচল করে।

সম্প্রতি ভারতে নারী পাচারের বিভিন্ন ঘটনা দেশে আলোচিত হচ্ছে। এ কারণে প্রশাসন, নারী ও শিশু পাচার রোধে কাজ করা এনজিওগুলোর তৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে সীমান্ত এলাকায় যাতায়াতের রুটগুলোতে। ওই কিশোরীকে পাচার করা হচ্ছে এমন সন্দেহ হয় যশোরের বেসরকারি সংস্থা অপারেশন জেনারেশনের মাঠ তদন্তকারী কর্মকর্তা সুনিতা সরকারের। তিনি তখন ওই কিশোরীর সঙ্গে কথা বলেন। কিশোরী তাকে সব ঘটনা জানায়। ততক্ষণে ওই যুবক সেখান থেকে পালিয়ে যায়। কিশোরীকে উদ্ধার করে সকাল ১০টায় নেয়া হয় যশোর মহিলা অধিদফতর কার্যালয়ে।

ওই কিশোরী বলেন, ‘এক মাস আগে এমডি শিহাব খান নামের ফেসবুক আইডিতে পরিচয় হয়। প্রতিদিন কথা হতো। বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। তাই পালিয়ে যশোর এসেছি। আমি বুঝতে পারিনি আমাকে পাচারের জন্য ফেসবুকে প্রেমের ফাঁদ পাতা হয়েছিল। আল্লাহর অশেষ রহমতে আমি রক্ষা পেয়েছি।’

কিশোরীর বাবা বলেন, ‘আমি গরীব মানুষ। দুই মেয়ে বিয়ে দিয়েছি, ছোট মেয়ে নিয়ে বাড়িতে থাকি। কীভাবে কী হয়েছে বুঝতে পারছি না। সোমবার দুপুরে বাড়ি ফিরে দেখি মেয়ে নেই। তাকে ফোন করলে ফোন বন্ধ পাই। তার সাবেক স্বামীকে ফোন দিয়ে জানতে পারি সেখানেও যায়নি। তখন খুব চিন্তায় পড়ে যাই। ডিসি অফিসের মাধ্যমে জানতে পারি পাচারকালে মেয়ে যশোরে উদ্ধার হয়েছে।’

বেসরকারি সংস্থা অপারেশন জেনারেশনের মাঠ তদন্ত কর্মকর্তা সুনিতা সরকার বলেন, ‘মেয়েটির ভাগ্য ভালো আমাদের নজরে পড়েছিল। তা না হলে ভারতে পাচার করা হত। যে চক্র তাকে যশোর এনেছিল তারা সুযোগের অপেক্ষায় ছিল।’

যশোর মহিলা অধিদফতরের উপ-পরিচালক সখিনা খাতুন বলেন, ‘ফেসবুকে প্রেমের ফাঁদ পেতে কিশোরী মেয়েদের পাচারসহ নানা অপরাধে জড়ানো হচ্ছে। একটি এনজিওর তৎপরতায় শরীয়তপুরের কিশোরী রক্ষা পেয়েছে।’

শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক মো. পারভেজ হাসান বলেন, ‘কিশোরী যশোরে নিরাপদ আশ্রয়ে রয়েছে। তাকে উদ্ধার করার তথ্য তার পরিবারকে জানানো হয়েছে। বুধবার আমরা ওই মেয়েকে তার পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করব।’

:রাজধানীর হাতিরঝিল ও আশপাশের এলাকা থেকে ৫৪ আটক।

ঢাকা:রাজধানীর হাতিরঝিল ও আশপাশের এলাকা থেকে গতকাল মঙ্গলবার আরো ৫৪ জনকে আটক ।
দে‌শের বি‌ভিন্ন স্থান থে‌কে বেড়াতে আসা বিনোদনপ্রেমীদের অবসর উদযাপন নির্বিঘ্ন, শান্তিপূর্ণ ও হয়রানিমুক্ত রাখতে চলমান বিশেষ অভিযানের অংশ হিসেবে রাজধানীর হাতিরঝিল ও আশপাশের এলাকা থেকে গতকাল মঙ্গলবার আরো ৫৪ জনকে আটক করেছে হাতিরঝিল থানা পুলিশ এবং ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএম‌পি) বি‌শেষ দল।

শেষে আটককৃতদের -যাচাই-বাছাই-মধ্যে ৪৩ জনকে শর্তসা‌পে‌ক্ষে তাঁদের অভিভাবকের জিম্মায় দেওয়া হয়েছে। বাকি ১১ জনের বিরুদ্ধে ডিএমপি অর্ডিন্যান্স অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। পুলিশ সদর দপ্তরের সহকারী মহাপরিদর্শক (মি‌ডিয়া অ্যান্ড পাব‌লিক রি‌লেশন্স) মো. সো‌হেল রানা এসব তথ্য জানিয়েছেন।

গত ২৭ জানুয়ারি থেকে হাতিরঝিল ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় পরিচালিত বিশেষ অভিযানে এ পর্যন্ত ১৫৬ জনকে আটক করে উপযুক্ত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

সম্প্রতি পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স শাখা পরিচালিত ফেসবুক পেইজে এক নাগরিক জানান, রাজধানীর হাতিরঝিল এলাকায় অবসরে বিনোদন এবং সুন্দরভাবে সময় কাটানোর জন্য যাওয়া বিনোদনপ্রেমীরা হয়রানির শিকার হচ্ছেন। এসব হয়রানি করছে ঝিলে আসা কিশোররা।

হাতিরঝিল এলাকায় অবসর কাটাতে বা বেড়াতে আসা মানুষের নিরাপত্তা দিতে পুলিশের প্রয়োজনীয় আয়োজন থাকা সত্ত্বেও বিষয়টি গুরুত্বসহ দেখার জন্য পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স থেকে হাতিরঝিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে জানানো হয়।

1 2 3