টেকনাফে শ্বশুরবাড়ি থেকে ২৫ রোকেয়া বেগমেরমরদেহ উদ্ধার

আজ বুধবার (৭ জুলাই) দুপুরে টেকনাফ ইউনিয়নের মহেশখালীয়া পাড়ার শ্বশুরবাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে। পারিবারিক কলহের জের ধরে শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাকে পিটিয়ে খুন করার অভিযোগ করেছেন নিহতের পরিবার।
দুপুর ১টার দিকে টেকনাফ মডেল থানার এসআই রাফি খবর পেয়ে বিশেষ ফোর্স নিয়ে সদর ইউপির মহেশখালীয়া পাড়ার নুরুল হকের পুত্র মোহাম্মদ আজিজের বাড়ি হতে তার স্ত্রী এক সন্তানের জননী রোকেয়া বেগমের (২৫) মরদেহ উদ্ধার করে। তিনি হ্নীলা ইউনিয়নের রঙ্গিখালী লামার পাড়ার মমতাজের মেয়ে।
নিহত রোকেয়ার শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে নিহতের পরিবারের লোকজন দাবি করে।
এ ঘটনার পর থেকে নিহত রোকেয়ার ৬ বছর বয়সী একমাত্র ছেলেটি ছাড়া স্বামী, শ্বশুর-শাশুড়িসহ সকলে পলাতক রয়েছে।
এ ব্যাপারে টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছে।
এদিকে, নিহতের পরিবারের দাবি, মোহাম্মদ আজিজ টেকনাফ থেকে রোহিঙ্গা বশোংদ্ভুত এক নারীকে প্রথমে বিয়ে করেন। বিয়ের পর সংসারে মিল না হওয়ায় তাকে তাড়িয়ে দিয়ে পরে রোকেয়াকে বিয়ে করেন। তাদের সংসারে ৬ বছরের মোহাম্মদ হোছাইন নামে এক সন্তান রয়েছে কিন্তু আজিজের মা-বাবা রোকেয়াকে পছন্দ করত না।
এছাড়া সংসারের অন্যান্য বিষয় নিয়ে প্রায় সময় তাদের মধ্যে ঝগড়া-ঝাটি হতো। গত তিন মাস পূর্বেও রোকেয়াকে মারধর করে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় বাপের বাড়ি পাঠিয়ে দেয়া হয়। তা নিয়ে টেকনাফ মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করা হলে স্থানীয়ভাবে সমঝোতার মাধ্যমে রোকেয়াকে স্বামীর ঘরে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।
আজ বুধবার সকাল ১১টার দিকে হঠাৎ ঐ এলাকার এক মহিলার মাধ্যমে রোকেয়াকে মেরে খুুন করার খবর পেয়ে হ্নীলা ইউপি চেয়ারম্যান রাশেদ মোহাম্মদ আলীর মাধ্যমে পুলিশ সদস্যরা তার মরদেহ উদ্ধার করা করে

শরীয়তপুরের সখিপুরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে কোরবানী পশুর হাট

আমান আহমেদ সজিব// শরীয়তপুর প্রতিনিধি :
সারাদেশে বেশির ভাগ জায়গায় যেখানে সামাজিক দূরত্ব, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিতে ব্যর্থ হচ্ছে গরুর হাটের ইজাদাররা। শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুরে ঐতিহ্যবাহী গরু ছাগলের হাট। বাজারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুরু হয়েছে ব্যতিক্রমী এক কোরবানীর পশুর হাট।

‘সারাদেশে যখন করোনা ভাইরাস সংক্রমণ বেড়েই চলছে। ঠিক তেমনি সময় পবিত্র ঈদুল -আযহা কে সামনে রেখে প্রশাসনের পক্ষ থেকে উপজেলার হাট বাজারে নজরদারি রেখেছে, যাতে করে হাটে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ক্রেতা-বিক্রেতারা গরু ছাগল কেনা বেচা করতে পারেন।’
নিয়মতান্ত্রিকভাবে সপ্তাহে প্রতি বুধবার বসছে এই পশুর হাট। হাটে শরীয়তপুর জেলাসহ বিভিন্ন জেলা থেকে ক্রেতা এবং বিক্রেতা আসে এখানে গরু ছাগল কেনার জন্য এটি একটি অন্যতম পশুর হাট।

সখিপুর বাজার পশুর হাটে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সখিপুর ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বিশাল এক পশুর হাট। এ হাটে ক্রেতা-বিক্রেতাদের জন্য হ্যান্ড স্যানিটাইজার, মাস্ক ও হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করেছে হাট কর্তৃপক্ষ। এছাড়া সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)তানভীর আল-নাসীফ, ভেদরগঞ্জ (সহকারী কমিশনার ভুমি ) শংকর চন্দ্র বৈদ্য, এক্সিকিউটিভ মেজিস্টিস অভিজিৎ সুত্রধর, আসাদুজ্জামান আসাদ হাওলাদার অফিসার ইনচার্জ সখিপুর থানা পুলিশ ও আনসার ব্যাটেলিয়ান সদস্যদের সহায়তা নিয়ে
(০৭ জুলাই) বুধবার দুপুর ১২টার দিকে সখিপুর বাজারে পশুর হাট পরিদর্শনে আসেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সখিপুর বাজার ইজারাদার, রাসেল আহমেদ পলাশ সরদার, ইউপি সচিব কবির হোসেন মুন্সী, সাব্বির আহমেদ মাদবর, আতিকুর রহমান সোমেল সরদার, মোঃ রাতুল সরদার, রবিন সরদার সহ অনান্য নেতৃবৃন্দ।

এসময় ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)তানভীর আল-নাসীফ,বলেন ভেদরগঞ্জ (সহকারী কমিশনার ভুমি ) ও শরীয়তপুর এক্সিকিউটিভ মেজিস্টিস এবং অফিসার ইনচার্জ সখিপুর থানা ও পুলিশ আনসার ব্যাটেলিয়ান এর সহযোগিতায় আজকে সখিপুর গো- হাট পরিদর্শনে আসি। দুপুর থেকেই বৃষ্টি হচ্ছে, বৃষ্টির কারনে মানুষ অনেক সময় এলোমেলো হয়। কিন্তু আমরা সামাজিত দূরত্ব নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি,
জনস্বার্থে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।
সবাইকে আইন মেনে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনের জন্য অনুরোধ জানানো যাচ্ছে।

দেশে একদিনে মৃত্যু ২০১ জনের

দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি আরও অবনতি হচ্ছে। করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ২০১ জনের, যা একদিনের হিসাবে সর্বোচ্চ। একই সময়ে দেশে করোনার সংক্রমণ ধরা পড়েছে ১১ হাজার ১৬২ জনের শরীরে।

দেশে এ পর্যন্ত করোনা ধরা পড়েছে ৯ লাখ ৭৭ হাজার ৫৬৮ জনের দেহে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১৫ হাজার ৫৯৩ জনের।

বুধবার (৭ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এর আগে, গতকালই একদিনে সর্বাধিক ১৬৩ জন মারা যাওয়ার রেকর্ড হয়েছিল। এছাড়া কয়েকদিন ধরে প্রতিদিনই মৃত্যুর নতুন রেকর্ড হচ্ছে। গত ১ জুলাই ১৪৩, ২ জুলাই ১৩২ ৩ জুলাই ১৩৪ এবং ৪ জুলাই ১৫৩ জনের মৃত্যু হয়।

সেই ইউএনওকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি, এলাকায় আনন্দের বন্যা

মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে হতদরিদ্রদের জন্য বরাদ্দ করা ঘর নিয়ে অনিয়ম ও দুর্নীতির সত্যতা পাওয়ায় আমতলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আসাদুজ্জামানকে বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওএসডি) করা হয়েছে।

সোমবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আবুল ফাতেহ মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক আদেশে তাকে ওএসডি করা হয়।

এ ছাড়া তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। সোমবার রাতে ইউএনওকে ওএসডির খবরে আমতলী সাধারণ মানুষের মাঝে আনন্দের বন্যা বইছে।

জানা গেছে, মো. আসাদুজ্জামান গত বছর ৪ সেপ্টেম্বর আমতলীতে ইউএনও হিসেবে যোগদান করেন। মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া আশ্রয়ণ প্রকল্প ২-এর অধীনে দ্বিতীয় ধাপে আমতলীর হতদরিদ্রদের ৩৫০টি ঘর বরাদ্দ দেওয়া হয়।

ওই প্রকল্পের ঘরপ্রতি ৩০-৪০ হাজার টাকা করে কোটি টাকা হাতিয়ে নেন ইউএনও মো. আসাদুজ্জামান এমন অভিযোগ করেন ভুক্তভোগীরা। ঘরপ্রতি বরাদ্দে এক লাখ ৯০ হাজার টাকা থাকলেও তিনি তার প্রতিনিধির মাধ্যমে নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে ঘর নির্মাণ করেন।

এ ছাড়া তার কার্যালয়ের সাঁটমুদ্রাক্ষরিক-কাম-কম্পিউটার অপারেটর মো. এনামুল হক বাদশার নিজ গ্রাম হরিদ্রবাড়িয়ায়ায় টাকার বিনিময়ে ধনাট্য ব্যক্তিদের ৩০টি ঘর বরাদ্দ দেন ইউএনও।

ইউএনও আসাদুজ্জামান ঘর নির্মাণে সুজন মুসল্লি ও হাবিব গাজী নামে দুজনকে প্রতিনিধি হিসেবে নিয়োগ দেন। তারা ঘরপ্রতি ৩০-৪০ হাজার টাকা আদায় করে এনামুলের মাধ্যমে ইউএনওর হাতে পৌঁছে দেন। যারা টাকা দেন তাদের বাড়িতেই পৌঁছে যায় ঘর নির্মাণের নিম্নমানের সামগ্রী।

ইউএনও ঘর বরাদ্দের অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়ে গত ২৫ এপ্রিল থেকে দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায় ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদন নজরে আসে বরগুনা জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমানের। তাৎক্ষণিক তিনি তদন্ত কমিটি গঠন করেন।

ওই তদন্ত কমিটি ঘরের তালিকা তৈরিতে অনিয়ম, দুর্নীতি ও টাকার বিনিময়ে ধনাঢ্য ব্যক্তিদের ঘর দেওয়ার সত্যতা পায়। এর পর বরগুনা জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান ওই প্রতিবেদন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়ে দেন।

ওই প্রতিবেদনের আলোকে রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে সোমবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আবুল ফাতেহ মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক আদেশে আমতলীর ইউওনও মো. আসাদুজ্জামানকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওএসডি) করা হয়।

এ ছাড়া তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। একই অভিযোগে গত ৫ মে তার কার্যালয়ের সাঁটমুদ্রাক্ষরিক-কাম-কম্পিউটার অপারেটর মো. এনামুল হক বাদশাকে সাময়িক বরখাস্ত করেছেন জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান।

এদিকে সোমবার রাতে ইউএনও আসাদুজ্জামানকে ওএসডির খবর আমতলীতে জানাজানি হলে সাধারণ মানুষের মাঝে আনন্দের বন্যা বইতে শুরু করে।

বরগুনা জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান বলেন, আমতলীর ইউএনও মো. আসাদুজ্জামানকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা করার আদেশের কপি হাতে পেয়েছি। আদেশ মোতাবেক তাকে ইতোমধ্যে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে।

শরিয়তপুরে জোরপূর্বক জমি দখল করে পাকা ঘর উত্তোলন ও সন্ত্রাসীদের হুমকি ধামকির প্রতিবাদে প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্টমন্ত্রীর সাহায্য কামনা

শরিয়তপুর প্রতিনিধিঃ
জোরপূর্বক জমি দখল,ঘর উত্তোলন ও সন্ত্রাসীদের হুমকি ধামকির প্রতিবাদে প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্টমন্ত্রীর সাহায্য এবং অাইন সৃঙ্খলা বাহীনির সুদৃষ্টি কামনা করে সংবাদ সম্মেলন করেছেন তুলাসার গ্রামের হাসপাতালের চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারি অসহায় অালেয়া বেগম ৷ ৬জুলাই মঙ্গলবার বেলা বারটার সময় শরীয়তপুর ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের অফিস কক্ষে এই সংবাদ সম্মেলন করেন ভুক্তভোগীর পরিবার ৷

সংবাদ সম্মেলনে অসহায় অালেয়া বেগম বলেন-শরীয়তপুর পালং থানার অন্তর্গত ৭৯নং তুলাসার মৌজার এস এ ৯২,৮২,৮৯ নং খতিয়ানে ২১৩ নং দাগে১.৮৬একর হইতে ৪০ শতাংশ জমি অামাদের পৈতিক সম্পত্তি ৷ যাহা অামরা দীর্ঘ দিন যাবৎ ভোগ দখল করে অাসতেছি ৷

কিন্তু উক্ত সম্পত্তিতে অামার চাচা ও চাচাত ভাই মোকফর উদ্দিন খান,মোশারফ খান,মমিন উদ্দিন খান ও নুরমোহাম্মদ খান সর্ব সাং তুলাসার জোর পূর্বক অাদালতের রায় অমান্য করে জমির উপর একটি চারতলা বিল্ডিং সহ দোকান ঘর নির্মান করেছেন ৷ অামি বাধা দিতে গেলে অামাকে একাধিকবার অমানুষিক ভাবে মারপিট করে ৷

যার ফলে উক্ত চাচা ও চাচাত ভাইদের বিরুদ্ধে একাধিক ফৌজদারি মামলা দায়ের করি ৷ মামলা এখনও চলমান ৷ কিন্তু মোকফর উদ্দিন খান স্থানীয় সন্ত্রাসীদের সহায়তায় রাতের আধারে আমাদের ডিক্রিকৃত সম্পত্তির সামনের পজিশনে জোর পুর্বক চারতলা ফাউন্ডেশন দিয়ে একটি বিল্ডিং এর কাজ করে যাচ্ছে ৷ এমতাবস্থায় আমি নিরুপায় হয়ে আমিপনাদের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্টমন্ত্রীর সাহায্য এবং আইন সৃঙ্খলা বাহীনির সুদৃষ্টি কামনা করছি ৷

শরীয়তপুরে জাজিরা থানা পুলিশের অভিযানে ২৩পিচ ইয়াবা সহ ১ জন আটক

শরীয়তপুর প্রতিনিধি :

বিকেলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে জাজিরা থানার নাওডোবা ইউনিয়নের ইসাহাক মাদবর কান্দি মৃধাবাড়ী জামে মসজিদ এর সামন থেকে হান্নান শেখ (৩৭) নামের একজনকে আটক করেছে জাজিরা থানা পুলিশ।

এসময় তার কাছে থাকা ২৩ পিছ ইয়াবা জব্দ করা হয়। আটককৃত হান্নান শেখ ঐ এলাকার মান্নান শেখের ছেলে। হান্নান দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যাবসায় জড়িত বলে জানা গেছে।

এবিষয়ে জাজিরা থানার ওসি মোঃ মাহবুবুর রহমান জানান গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এসআই সোহাগের নেতৃত্বে একটি টিম নাওডোবা হতে কুখ্যাত মাদক ব্যাবসায়ী হান্নান শেখ নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে। তার বিরুদ্ধে এসআই সোহাগ বাদি হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮সালের ৩৬(১) এর ১০(ক)/৪১ ধারায় মামলা করেছে। যার তদন্তভার জাজিরা থানার এসআই রোকনুজ্জামানকে দেয়া হয়েছে।

ফাইনালে আর্জেন্টিনা

স্পোর্টস ডেস্কঃ কলম্বিয়াকে হারিয়ে কোপা আমেরিকার ফাইনালে উঠেছে আর্জেন্টিনা। ম্যাচের শুরুতে লাউতারো মার্টিনেজের গোলে এগিয়ে যায় আলবেসেলেস্তারা।

দ্বিতীয়ার্ধে এসে কলম্বিয়াকে সমতায় ফেরান লুইস দিয়াস। এরপর টাইব্রেকারে গড়ালে গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্টিনেজের দারুণ দক্ষতায় ফাইনাল নিশ্চিত করে লিওনেল মেসিরা।

আজ বুধবার সকালে মানে গরনিঞ্চা ব্রাসিলিয়ায় ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়। পরে টাইব্রেকারে ৩-২ গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে লিওনেল স্কোলানির দল।

ম্যাচের সপ্তম মিনিটে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। লিওনেল মেসির পা থেকে বল পেয়ে দূরের পোস্ট ঘেঁষে বল জালে জড়ান লাউতারো মার্টিনেজ। ৩৬তম মিনিটে কলম্বিয়ার উল্লেখযোগ্য দুটো আক্রমণই পোস্টের বাধায় আটকে যায়। এতে সমতায় ফেরা হয়নি তাদের।

বিরতির আগে ব্যবধান বাড়াতে পারতো আলবেসেলাস্তরা। মেসির কর্নার থেকে সিক্স ইয়ার্ড বক্সে দারুণ এক হেড নেন নিকোলাস গঞ্জালেস। তবে তার হেড গোলরক্ষকের বাধায় জালের উপরে দিয়ে বাইরে চলে যায়।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকে গোলের জন্য মরিয়া হয়ে উঠে কলম্বিয়া। ৬১তম মিনিটে কাঙ্খিত গোলও পেয়ে যায় তারা। বাম পাশ থেকে লুইস দিয়াসের দারুণ এক শটে সমতায় ফেরে কলম্বিয়া।

৭২তম মিনিটে ফাঁকা জাল পেয়েও গোল করতে পারেননি মার্টিনেজ। ডি-বক্সের ভেতর দি মারিয়ার দারুণ ক্রসে বল পেয়ে যান তিনি। তার শট প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডারের গায়ে লেগে ফেরে। একের পর এক সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেনি আর্জেন্টিনা। শেষের দিকে পুরো ম্যাচ জমে উঠলেও গোলের দেখা পায়নি কেউই।

নির্ধারিত সময়ে ১-১ গোলে সমতা হওয়ায় নিয়ম অনুযায়ী ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। সেখানে গোলরক্ষক মার্টিনেজের দারুণ দক্ষতায় ৩-২ গোলে জয় নিয়ে ফাইনালে উঠে লিওনেল মেসিরা। আগামী শনিবার সকাল ৬টায় ব্রাজিলের মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা।

1 2