দুই স্ত্রীর পরিবার নিয়ে ভালোই আছেন ইসলামিক বক্তা আবু ত্ব-হা মোহাম্মদ আদনান

দেশজুড়ে ব্যাপক আলোচিত হয় আবু ত্ব-হা মোহাম্মদ আদনানের হঠাৎ নিঁখোজ হওয়ার বিষয়টি।

‘আত্মগোপনে’ গিয়ে নতুন করে আলোচনায় আসা ইসলামি বক্তা আবু ত্ব-হা মোহাম্মদ আদনান জানিয়েছেন, তিনি ভালো আছেন। দুই স্ত্রীর পরিবার নিয়ে কোনো ঝামেলা নেই তার।

দেশের অন্যতম একটি অনলাইন নিউজের সঙ্গে আলাপকালে মঙ্গলবার এসব কথা জানান তিনি।

‘আত্মগোপন’ থেকে ফেরার পর এই প্রথম তিনি কোনো সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বললেন।

ঢাকা থেকে গত ১০ জুন রাতে নিখোঁজ হন এই ইসলামি বক্তা। ১৮ জুন পুলিশ প্রথম স্ত্রীর বাবার বাড়ি রংপুর মহানগরীর আবহাওয়া অফিস মাস্টারপাড়ায় পায় ত্ব-হাকে।

ওই দিন বিকেলেই নগর পুলিশ এক সংবাদ সম্মেলন করে তার নিখোঁজ হওয়ার কারণ ও উদ্ধার হওয়ার বিষয়টি জানায়।

নগর পুলিশের উপকমিশনার (অপরাধ) আবু মারুফ হোসেন জানিয়েছিলেন, ব্যক্তিগত কারণে ত্ব-হা আত্মগোপনে ছিলেন।

কী সেই ব্যক্তিগত কারণ, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘যেহেতু ব্যক্তিগত কারণ, আমরা সেটি এখনই পাবলিকলি না বলি। আগে ভেরিফাই করতে হবে। তবে কোনো অপরাধ ঘটেনি বলে আমাদের তারা জানিয়েছে।’

ওই রাতেই ত্ব-হা ও তার দুই সঙ্গীকে আদালতে নেয়া হয়। শুনানি শেষে আদালত তাদের নিজ জিম্মায় জামিন দেন। রাতেই তারা বাসায় ফেরেন। কিন্তু সাংবাদিকদের সঙ্গে কোনো কথা বলেননি।

মুখ খুললেন ত্ব-হা, বললেন পরিবারে নেই কোন ঝামেলা…………..

ত্ব-হার মা আজেদা বেগম সে সময় সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, ত্ব-হা দুই স্ত্রীর সংসার নিয়ে খুব অশান্তিতে ছিলেন।

এসব ঘটনার প্রায় এক মাস পর গণমাধ্যমে কথা বলেন ত্ব-হা। সেই অনলাইনের প্রতিবেদকের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা হয় তার।

ত্ব-হা জানান, তিনি এখন রংপুরে অবস্থান করছেন। কোনো অসুবিধা নেই।

তিনি বলেন, ‘সমস্যা নেই। একটা কিছু হলে তো প্রভাব থাকে। তাই না?…সেগুলো আমরা রিকভার করার চেষ্টা করছি ধীরে ধীরে… আমাদের পরিবারে কোনো ঝামেলা নেই। আলহামদুলিল্লাহ, ভালো আছি আমরা।’

দুই ডোজ টিকা নিয়েও করোনা আক্রান্ত সংবাদ পাঠিকা কবিতা

দুই ডোজ টিকা নেওয়ার পরও করোনা আক্রান্ত হয়েছেন সংবাদ পাঠিকা ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট রোকসানা পারভীন কবিতা।

রোকসানা পারভীন কবিতা বেসরকারি টেলিভিশন এনটিভির সংবাদ পাঠিকা। তিনি রাজধানীর মগবাজারের বাসায় থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

সোমবার (১২ জুলাই) সকালে রোকসানা পারভীন কবিতা বলেন, গত ১৭ এপ্রিল আমি কোভিশিল্ডের ২য় ডোজ টিকা সম্পন্ন করেছি। এরপরও করোনা পজিটিভ এলো।

তিনি জানান, গত কয়েকদিন ধরে নাকে কোনো ঘ্রাণ পাচ্ছিলাম না। এছাড়া নাক দিয়ে পানি পড়ছিল এবং নাক বন্ধ ছিল। মাথাটাও সামনে এবং দুপাশে ব্যথা করছিল। সন্দেহ থেকে গত ১০ জুলাই আইসিডিডিআরবিতে করোনার নমুনা পরীক্ষা করতে দেই। গতকাল করোনার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।

বিএনপি জোট ছাড়লেন জমিয়ত, নেপথ্যে যেসব কারণ

ঢাকা- বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট থেকে বেরিয়ে গেছে ধর্মভিত্তিক আরও একটি দল। কওমি মাদ্রাসাকেন্দ্রিক দল জমিয়তে ওলামায়ে ইসলামীর একাংশ জানিয়েছে, তারা বিএনপি-জামায়াতের সঙ্গে আর সম্পর্ক রাখছে না।

বুধবার (১৪ জুলাই) পুরানা পল্টনে দলীয় রাজনৈতিক কার্যালয়ে জরুরি এক সংবাদ সম্মেলন ডেকে এই ঘোষণা দেন দলটির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মাওলানা বাহাউদ্দিন জাকারিয়া।

তিনি বলেন, ২০ দলীয় জোট ত্যাগ করা জমিয়তের জন্য কল্যাণকর। আজ থেকে জোটের কোনো কার্যক্রমে জমিয়ত থাকবে না।

জোট ছাড়ার কারণ প্রসঙ্গে মাওলানা জাকারিয়া বলেন, জোটের শরিক দলের যথাযথ মূল্যায়ন না করা, শরিকদের সঙ্গে পরামর্শ না করেই উপনির্বাচন এককভাবে বর্জন করা, আলমদের গ্রেফতারের প্রতিবাদ না করা, প্রয়াত জমিয়ত মহাসচিব নূর হোসাইন কাসেমীর মৃত্যুতে বিএনপির পক্ষ থেকে সমবেদনা না জানানো এবং তার জানাজায় শরিক না হওয়া।

সংবাদ সম্মেলনে জমিয়তের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাওলানা জিয়া উদ্দীন আহমেদ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া সংবাদ সম্মেলনে মাদ্রাসা খুলে দেওয়া, কোরবানির পশুর চামড়ার ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করার দাবি জানানো হয়।

জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের দুটি অংশ। একটি অংশের নেতৃত্বে ছিলেন প্রয়াত নূর হোসাইন কাসেমী। অপর অংশের নেতৃত্বে ছিলেন প্রয়াত মুফতি ওয়াক্কাস।

নূর হোসাইন কাসেমীর অংশ ২০ দলীয় জোট ছাড়ার ঘোষণা দিলেও মুফতি ওয়াক্কাসের অনুসারীরা এখনো কোনো ঘোষণা দেননি। ফলে জোটে দলের সংখ্যা একই থাকছে।

মানিকগঞ্জের শ্রেষ্ঠ ডিএসবি সিংগাইর জোনের এএস আই আনোয়ার হোসেন

বিশেষ প্রতিনিধিঃ
জেলার বিশেষ শাখা মানিকগঞ্জ সিংগাইর জোনের এএসআই মো.আনোয়ার হোসেনকে শ্রেষ্ঠ ডিএসবি অফিসার হিসেবে ক্রেষ্ট ও সনদ তুলে দেন-পুলিশ সুপার(এসপি)রিফাত রহমান শামীম।

সোমবার(১২ জুলাই) সকাল ১০ টার দিকে মানিকগঞ্জ পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে বিভিন্ন আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা শেষে জেলার বিশেষ শাখা মানিকগঞ্জ, সিংগাইর জোনে দায়িত্বরত এএসআই মো.আনোয়ার হোসেনকে সর্বো”চ গোয়েন্দা রিপোর্টের আলোকে জুন ২০২১ইং মাসের জন্য শ্রেষ্ঠ ডিএসবির অফিসার হিসেবে নির্বাচিত করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন-মানিকগঞ্জ জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(প্রশাসন ও অপরাধ)হাফিজুর রহমান,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(সদর) হোসাইন মোহাম্মদ রায়হান,সদর সার্কেল ভাস্কর সাহা,শিবালয় সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানিয়া সুলতানা,সিংগাইর সার্কেলের সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার মোহা.রেজাউল হকসহ জেলার সকল থানার অফিসার ইনর্চাজ উপ¯ি’ত ছিলেন।

জেলা বিশেষ শাখা মানিকগঞ্জ সিংগাইর জোনে কর্মরত এএসআই মো.আনোয়ার হোসেন এর কাছে শ্রেষ্ঠ ডিএসবি অফিসার হওয়ার অনুভূতি জানতে চাইলে তিনি বলেন- এ পুরস্কারের মাধ্যমে আমার দায়িত্ব আরো বেড়ে গেল। এসপি স্যার আমার কাজের মূল্যায়ন করায় আমি অনেক খুশি। সেই সাথে এসপি মহোদয়ের কাছে কৃজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।

ফেসবুকে লাইভে এসে ট্রাফিক সার্জেন্টকে হুমকি দেওয়া , সেই কথিত সাংবাদিক গ্রেপ্তার

, সিলেট- সিলেটে আইন অমান্য করায় মোটরসাইকেল আটকের পর ট্রাফিক সার্জেন্টকে হুমকি-ধামকি দিয়ে ফেসবুকে লাইভের মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া সেই সাংবাদিক পরিচয়ধারী ফয়ছল কাদিরকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-৯।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে অভিযান চালিয়ে শহরতলীর পীরের বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

র‌্যাব-৯ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সামিউল আলম গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে রোববার (১১ জুলাই) রাতে সার্জেন্ট মো. নুরুল আফসার ভূইয়া বাদী হয়ে ফয়ছল কাদির (৪০) নামে ওই ভুয়া সাংবাদিকের বিরুদ্ধে শাহপরান থানায় মামলাটি দায়ের করেন। তিনি ‘পিকে টিভি’ নামে একটি ফেসবুক পেজের সাংবাদিক হিসেবে পরিচয় দেন।

পুলিশ জানায়, ফয়ছল কাদিরের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিভিন্ন মিথ্যা তথ্য সরাসরি প্রচার করে অস্থিরতা, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ও আইন-শৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর অভিযোগ আনা হয়েছে।

পুলিশ আরও জানায়, গত ৯ জুলাই সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সুরমা গেট এলাকায় সার্জেন্ট মো. নুরুল আফসার ভূইয়া চেকপোস্টে দায়িত্ব পালনকালে সিলেট শহরমুখী হেলমেট ছাড়া তিনজন আরোহীসহ একটি রেজিস্ট্রেশনবিহীন মোটরসাইকেলকে থামান। এ সময় চালক ফয়ছল কাদিরের কাছে গাড়ির কাগজপত্র এবং হেলমেটবিহীন মোটরসাইকেলে চালানোর কারণ জানতে চাইলে তিনি কোনোকিছুই প্রদর্শন করতে পারেননি।

এ সময় তিনি নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দেন। এ অবস্থায় সার্জেন্ট অতিরিক্ত যাত্রী বহন, হেলমেট ছাড়া রেজিস্ট্রেশনবিহীন গাড়ি চালানোর অপরাধে সড়ক পরিবহন আইনে মামলা এবং মোটরসাইকেলটি জব্দ করেন। এরই জেরে ফয়ছল কাদির ফেসবুকে বিভিন্ন মিথ্যা তথ্য সরাসরি প্রচার করে অস্থিরতা, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ও আইন-শৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর চেষ্টা করেন।

ঈদে বাড়ি যাবেতো তবে ফিরতে হবে কিন্তু ঈদের পরদিনই

ঢাকা- আগামী ১৪ জুলাই মধ্যরাত থেকে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা পর্যন্ত চলমান কঠোর লকডাউন শিথিল করা হয়েছে। এই সময়ে চলবে গণপরিবহণ। ফলে স্বজনদের সঙ্গে ঈদ করতে বাড়ি যাওয়া যাবে। তবে ফিরতে হবে ঈদের পরদিনই।

আগামী ২১ জুলাই পবিত্র ঈদুল আজহা। পরের দিন ২২ জুলাই পর্যন্ত গণপরিবহন চালু থাকবে। এরপরদিন ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে ৫ আগস্ট মধ্যরাত পর্যন্ত আবার কঠোর লকডাউন শুরু হবে। তখন বন্ধ থাকবে সব ধরনের গণপরিবহণ।

চলমান লকডাউন শিথিল ও ঈদের পর থেকে আবার লকডাউন ঘোষণা করে মঙ্গলবার সকালে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

এর আগে সোমবার কঠোর লকডাউন শিথিলের সিদ্ধান্তের কথা জানায় সরকার।

কুরবানি ঈদের মানুষের চলাচল ও পশুরহাটে কেনাবেচার বিবেচনায় লকডাউন শিথিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই সময়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবে গণপরিবহণ। খোলা থাকবে শপিংমল ও দোকানপাট। তবে বেসরকারি অফিস বন্ধ থাকবে। আর সরকারি অফিসের কার্যক্রম ভার্চুয়ালি চলবে।

তবে নতুন এক প্রজ্ঞাপনে সরকার জানিয়েছে, করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে ৫ আগস্ট রাত ১২টা পর্যন্ত আবারও কঠোর বিধি নিষেধ আরোপ করা হবে।

এ সময় সড়কে গণপরিবহনসহ কোনো যানবাহন চলবে না। বন্ধ থাকবে সব অফিস, আদালত, শিল্প প্রতিষ্ঠান। সড়কে গণপরিবহন বা যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা থাকায় সময়ে কেউ চাইলেই ঢাকায় ফিরতে পারবেন না।

সরকারের নির্দেশনা পাওয়ার পর এরই মধ্যে ১৫ থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত বাস, লঞ্চ ও অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটের টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। এছাড়া ২২ জুলাই পর্যন্ত অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট ঘোষণা করেছে দেশি তিন এয়ারলাইনস।

মঙ্গলবার থেকে ট্রেনের বিক্রি শুরু হওয়ার কথা থাকলেও সার্ভার জটিলতায় সেটি সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। সংস্থাটি বলছে, বুধবার সকাল ৮টা থেকে অনলাইনে টিকেট বিক্রি শুরু হবে।

তবে ২১ জুলাই ঈদের দিন হওয়ায় সেদিন ট্রেন বন্ধ থাকবে।

ট্রেনের ৫০ শতাংশ) টিকিট ইস্যু করা হবে

ঢাকা- ১৪ জুলাই মধ্যরাত থেকে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধিসহ অন্যান্য শর্ত মেনে ট্রেন পরিচালনা করবে বাংলাদেশ রেলওয়ে। এসময় বিদ্যমান আসনের অর্ধেক (৫০ শতাংশ) টিকিট ইস্যু করা হবে। তবে ঈদুল আজহার দিন ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকবে।

মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) বাংলাদেশ রেলওয়ের পরিচালক (জনসংযোগ) মোহাম্মদ সফিকুর রহমান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এক্ষেত্রে ১৫, ১৬, ১৭ ও ১৮ জুলাইয়ের আন্ত:নগর ট্রেনের সকল টিকিট আজ বুধবার (১৪ জুলাই) সকাল ৮টা হতে শুধুমাত্র অনলাইনের মাধ্যমে অগ্রিম ব্যবস্থাপনায় ইস্যু করা হবে।

করোনার কারণে কাউন্টার থেকে আন্তনঃগর ট্রেনের কোনো টিকিট বিক্রি করা হবে না বলে আগেই জানিয়েছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। আর অনলাইন বা মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে বিক্রি করা কোনো টিকিট ফেরতও নেয়া হবে না। সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে আন্তঃনগর ট্রেনে সব স্ট্যান্ডিং টিকিট ইস্যু।

বাংলাদেশ রেলওয়ের উপপরিচালক (টিসি) মো. নাহিদ হাসান খাঁন স্বাক্ষরিত নির্দেশনাপত্রে বলা হয়, যাত্রার দিনসহ পাঁচদিন আগে আন্তঃনগর ট্রেনের আগাম টিকিট ইস্যু করা হবে। টিকিট রিফান্ড করা হবে না। যাত্রীদের সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে আন্তঃনগর ট্রেনের মোট আসন সংখ্যার অর্ধেক টিকিট ইস্যু করা হবে। আন্তঃনগর ট্রেন ম্যানুয়াল অনুসারে, নির্ধারিত পাস, কোটা ছাড়া টিকিট বিক্রিতে বিদ্যমান সব ধরনের কোটা রহিত থাকবে। আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট শুধুমাত্র অনলাইন ও মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে সকাল ৮টা থেকে আগাম ব্যবস্থাপনায় ইস্যু করা হবে। আন্তঃনগর ট্রেনে সব ধরনের স্ট্যান্ডিং টিকিট ইস্যু করা হবে না।

আন্তঃনগর ট্রেনে ক্যাটারিং সেবা প্রদান ও ট্রেনে রাতে বেডিং সরবরাহের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মানা হবে। ১৫ থেকে ১৯ জুলাই ট্রেনযাত্রার টিকিট ইস্যু করা হবে। ২০ ও ২২ জুলাই যেসব আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করবে শুধু সেগুলোর টিকিট ইস্যু করা হবে।

জানা গেছে, বিদ্যমান স্বাস্থ্যবিধি মেনে ট্রেনে চা, কফি, বোতলজাত পানি, প্যাকেটজাত খাবার (চিপস, বিস্কিট ইত্যাদি) সরবরাহ করা হবে। এইচওআর, রেলওয়ে পাস এবং মিলিটারি ওয়ারেন্টের টিকিট আগের মতো ইস্যু করার ব্যবস্থা থাকবে। ২ শতাংশ টিকিট রেলওয়ের কর্মচারীদের জন্য যাত্রার ২৪ ঘণ্টা আগে পর্যন্ত সংরক্ষণ করা থাকবে। কমিউটার ও মেইল এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিট স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাউন্টার থেকে বিক্রি করতে হবে।

কুলি, ট্রলি ব্যবহারের ক্ষেত্রে অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে। ট্রেনের প্রতিটি কোচ ও ইঞ্জিন চলাচলের আগে স্বাস্থ্যবিধি মোতাবেক জীবাণুমুক্ত করতে হবে।

উল্লেখ্য, ১৫ জুলাই (বৃহস্পতিবার) থেকে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা পর্যন্ত সারা দেশে বিভিন্ন গন্তব্যে আন্তঃনগর ও মেইল এক্সপ্রেস মিলিয়ে ৫৭ জোড়া ট্রেন চলবে।