বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে বৃদ্ধকে কাদের মির্জার ঘুষি মারার ভিডিও ভাইরাল

ইমাম উদ্দিন সুমন, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট: এবার বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার এক অসহায় বৃদ্ধকে ঘুষি মারার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পড়েছে।

শুক্রবার (১৬ জুলাই) সকাল ১০টার দিকে ঈদুল আজহা উপলক্ষে গরিব মানুষের মাঝে শাড়ি ও লুঙ্গি বিতরণের সময় ওই বৃদ্ধকে ঘুষি দেন কাদের মির্জা। বর্তমানে বৃদ্ধকে ঘুষি মারার চুম্বক অংশের ১মিনিট ১৪ সেকেন্ডের একটি ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।এমন আচরণে সামাজিক মাধ্যমে বেশ সমালোচনার মুখে পড়েছেন কাদের মির্জা।

ফেসবুকে রফিকুন বিন তাহের নামে একটি আইডি থেকে লেখা হয়েছে, আমাদের রাষ্ট্র নায়করা কোথায়? উনারা কি এই ভিডিও ক্লিপ গুলো দেখেন না। মারওয়ান আল মাংকি নামে একটি আইডি থেকে লেখা হয়েছে, জুলুমের মাত্রা বেড়ে গেলেই এমন হয়।এদের ধ্বংস অনিবার্য। খালেদ সাইফুল্যাহ নামে একটি আইডি থেকে লেখা হয়েছে, অহংকার পতনের মূল” কথাটা কালে কালে সত্যে রুপান্তরিত হয়েছে, হবে। ডা.হামিদুর রহমান নামে একটি আইডি থেকে লেখা হয়েছে, ভাই আপনার একজন ভক্ত আমি আপনার অনেক প্রশংসা করি। কিন্তু আজ বুড়া লোকটার সাথে যে ব্যবহার করেছেন তা সারা পৃথিবীসহ সকলে দেখেছে। সবাই কিন্তু খারাপ বলছে, অল্প থেকেই অনেক বড় হোয়ে যায়,(ধৈর্য ধরুন)। রাসেল নোয়াখালী আইডি থেকে লেখা হয়েছে,মানুষকে দোষারোপ করার আগে তাদের দোষারোপ করো যারা যত্রতত্র লাইভ দেয়। একটা জিনিস বিতরণ করতে ধৈর্য হারা হয় অনেকে। যদি লাইভ না থাকতো তাহলে এই ইস্যু হোতনা । অভি ও স্বপন দায়ী এটার জন্য।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার সকালে পৌর ভবনের নিচে এবং ওপরে কাদের মির্জা পর্যায়ক্রমে ঈদুল আজহা উপলক্ষে লাড়ি-লুঙ্গি বিতরণ করেন। বিপত্তি বাধে পৌরসভার নিচে শাড়ি বিতরণ কালে এক বৃদ্ধের হাতে একটি শাড়ি তুলে দেন কাদের মির্জা। বৃদ্ধ শাড়িটি পরিবর্তন করতে চাইলে কাদের মির্জা তার বুকে ঘুষি মেরে তাকে সরিয়ে দেন। এ সময় কাদের মির্জার অনুসারীরা শাড়ি-লুঙ্গি বিতরণ অনুষ্ঠানটি ফেসবুকে লাইভ করছিল। অল্প কিছুক্ষণের মধ্যে বৃদ্ধকে ঘুষি মারারা ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়ে।

এ বিষয়ে জানতে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহনও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই বসুরহাট পৌরসভার মেয়র গত ৭ মাস ধরে আ.লীগের জাতীয় নেতা, আ.লীগের স্থানীয় নেতাদেরকে নিয়ে তীর্যক মন্তব্য করে ব্যাপক আলোচনায় আসেন। কাদের মির্জা জনগণের ভোটের অধিকার নিশ্চিত হয়নি বলেও মন্তব্য করেন। ইতিমধ্যে ঘরে বাইরে সর্ব ক্ষেত্রে তীর্যক মন্তব্য করে সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে তার একটি পরিচিতি এসেছে।

শরীয়তপুরে ডামুড্যায় মসজিদে মসজিদে পুলিশের করোনা সচেতনতা প্রচার

আমান আহমেদ সজীব :
করোনা সচেতনতায় মসজিদে মসজিদে পুলিশের প্রচার।সম্প্রতি করোনা ভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ার কারণে ডামুড্যায় করোনা সচেতনতায় মসজিদভিত্তিক প্রচারণায় নেমেছে ডামুড্যা উপজেলা পুলিশের সদস্যরা।

শুক্রবার জুমার নামাজের প্রাক্কালে উপজেলা শহরসহ প্রতিটি বিট পুলিশ কর্মকর্তারা মসজিদে আগত মুসল্লিদের উদ্দেশে করোনা মহামারির এই কঠিন সময়ে জনগণের করণীয় সম্পর্কে সচেতনতামূলক বক্তব্য প্রদান করেন।

প্রচারকালে জনগণকে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে না যাওয়া, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, লোকসমাগম এড়িয়ে চলাসহ সরকারি বিধিনিষেধ মেনে চলতে অনুরোধ করা হয়।

এছাড়া সাধ্যমতো পুষ্টিকর খাবার খাওয়া, জ্বর-সর্দি ও কাশি হলে অবহেলা না করে নিকটস্থ হাসপাতালে করোনা পরীক্ষা করার জন্য অনুরোধ করা হয়। উপজেলায় বসবাসরত সকল নাগরিককে করোনা মহামারিতে তার পার্শ্ববর্তী অসহায়, নিঃস্ব দরিদ্র ও কর্মহীন লোকদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান পুলিশ কর্মকর্তারা।

মসজিদের পুলিশের প্রচার প্রসঙ্গে ডামুড্যা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শরীফ আহমেদ বলেন, ঢাকা রেঞ্জর ডিআইজি হাবিবুর রহমান স্যারের নির্দেশে এবং শরীয়তপুরের পুলিশ সুপার এস,এম আশরাফুজ্জামানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ০৮টি বিটে এই কার্যক্রম পরিচালনা করি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, ডামুড্যা পৌর মেয়র রাজা ছৈয়াল, ডামুড্যা হামিদিয়া কামিল মাদ্রাসার আরবি বিভাগের প্রভাষক ও উক্ত মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা আবুবকর ছিদ্দিক ডামুড্যা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি মিরাজ সিকদার, প্রেসক্লাব সভাপতি শফিকুল ইসলাম সোহেল,যুবলীগ নেতা মুন্না, মানবতার ডাক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের উদ্যোগতা আশিক মাহমুদসহ ডামুড্যা বাজারের ব্যবসায়ীগন।

২৫ লাখ টাকা ফেরত দিয়ে প্রশংসায় ভাসছেন রংপুরের সেই ইউএনও

আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাড়ি নির্মাণের উদ্বৃত্ত টাকা সরকারি কোষাগারে ফেরত দিয়ে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মেহেদী হাসান।

বিষয়টি নিয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশের পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার প্রশংসা করা হচ্ছে। দায়িত্ববোধ ও স্বচ্ছতার জন্য তাকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন সবাই।

জানা গেছে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বদরগঞ্জ উপজেলায় ২৯৬ জন ভূমি ও গৃহহীন পরিবারকে দুই শতক জমিসহ বাড়ি বরাদ্দ দেওয়া হয়।

প্রথম পর্যায়ে প্রত্যেক বাড়ি নির্মাণের জন্য ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা ব্যয়ে ২৮৬টি বাড়ির বরাদ্দ পান ইউএনও মেহেদী

হাসান। দ্বিতীয় পর্যায়ে ১ লাখ ৯১ হাজার টাকা ব্যয়ে আরও ১০টি বাড়ি নির্মাণে অর্থ বরাদ্দ পান।এ ছাড়া জায়গা আছে

ঘর নেই- এমন ক্ষুদ্র-নৃগোষ্ঠীদের জন্য ৩০টি বাড়ি এবং ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত ৮টি পরিবারের জন্য বাড়ি নির্মাণে বরাদ্দ পান।

শরীয়তপুর বিএমএসএফ ৯ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে জেলা প্রশাসক.পারভেজ হাসান এর বৃক্ষরোপন

শরীয়তপুর বিএমএসএফ ৯ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে জেলা প্রশাসক.পারভেজ হাসান এর
বৃক্ষরোপন

আমান আহম্মেদ সজীব // বিশেষ প্রতিনিধিঃ
বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) এর নবম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসন, আইনজীবী ও সাংবাদিক এর বৃক্ষ রোপন এবং মাক্স বিতরণ অনুষ্ঠিত।

বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) সকাল ১০.৩০ মিনিটে শরীয়তপুর সার্কিট হাউস এ জেলা প্রশাসক মোঃ পারভেজ হাসান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে
তিনি বৃক্ষ রোপন করেন।

এর পর শরীয়তপুর জেলা আইনজিবী সমিতির সামনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এডভোকেট সাঈদ আহমেদ সাধারণ সম্পাদক শরীয়তপুর জেলা আইনজিবী সমিতি। বৃক্ষ রোপন কর্ম সূচি পালন করা হয়। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন এডভোকেট মাসুদুর রহমান সভাপতি বিডি ক্লিন শরীয়তপুর।

এবং শরীয়তপুর সদরের বিভিন্নন স্থানে করোনা ভাইরাস সংক্রমনে সচেনতার লক্ষে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাক্স বিতরণ করা হয়।

এর পর বিকাল ৫ টায় বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) নবম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী কেক কেটে উদযাপন করা হয়। এসমর এর সভাপতিত্ব দিয়েছেন মোঃ ফারুক আহমেদ মোল্লা সভাপতি বিএমএসএফ শরীয়তপুর জেলা। ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ বেলাল।
উপস্থিত শরীয়তপুর জেলা মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম এর সকল নেতৃবৃন্দ।

এসময় জেলা প্রশাসক পারভেজ হাসান বলেন গাছ একটি জীবন্ত সত্তা আমরা সবাই মিলে বৃক্ষ রোপন করবো, তার সাথে আমরা ডামুড্যা থেকে বৃক্ষ রোপন শুরু করেছি, আমরা সেখানে তাল,নারিকেল,সুপারি গাছ আমরা রোপন করেছি। এবং আজকে এখানে এই প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে বৃক্ষ রোপন করেছি, এই সুন্দর উদ্যোগ নিয়েছে, এবং আমরা জুলাই পুরা মাস আমরা বৃক্ষ রোপন করবো। এই উদ্যোগ নেওয়াকে আমি ধন্যবাদ ও সাদুবাদ জাইনাই।

করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরন করা গৃহবধূর লাশ দাফন দিলেন ভেদরগঞ্জ থানা পুলিশ

আমান আহমেদ সজীব,শরীয়তপুরের প্রতিনিধি :
শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জে করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করা আসমা বেগম (৪৫) নামে এক গৃহবধূর লাশ পরিবারের লোকজন গ্রহণ না করায় দাফন করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই ) ভেদরগঞ্জ থানা পুলিশের উদ্যোগে ও ইসলামিক ফাউণ্ডেশন ভেদরগঞ্জ শাখার সহযোগিতায় তাদের নিজস্ব কবরস্থানে দাফনের ব্যবস্থা করা হয়।
এর আগে,তিনি ৭ জুলাই করোনা পজিটিভ বাবার মৃত্যুর সংবাদ পেতে গ্রামে আসেন।

পরবর্তীতে শরীরে ব্যথা ও জ্বর অনুভব করায় ১৩ জুলাই ভেদরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা পরিক্ষা করান এবং জানতে পারেন তিনি করোনা পজিটিভ। গৃহবধূ আসমা বেগম শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ থানার কাঁইচকুড়ি গ্রামের দেলোয়ার হোসেন ঢালীর স্ত্রী।

ভেদরগঞ্জ থানা পুলিশের মিডিয়া সমন্বয়ক ও ভেদরগঞ্জ থানার এস আই আনিচুর রহমান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
পরিবারের সদস্য জানায়, বাবার মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে গ্রামে আসেন আসমা বেগম। তিনি পরিবারের সঙ্গে ঢাকায় বসবাস করতেন। ১৫ জুলাই থেকে জ্বর, শরীর ব্যথা,কাশি, বমি ও খাবারে অরুচিসহ বিভিন্ন লক্ষণ দেখা দেয়। পরিবারের সদস্য”রা আরও জানান হঠাৎ মাথা ব্যথা ও শ্বাসকষ্টজনিত কারণে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি হন তিনি। বৃহস্পতিবার শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন। করোনায় তার মৃত্যু হয়েছে এমন ভয়ে স্বামীর পরিবার ও বাবার বাড়ির লোকজন লাশ গ্রহণ করতে রাজি হননি। পরে ভেদরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ.বি.এম রাশেদুল বারী”র নির্দেশে ভেদরগঞ্জ থানা পুলিশ লাশ গ্রহণ করেন পরবর্তীতে মৃত আসমা বেগমের শশুর বাড়িতে তাদের নিজ কবরস্থানে জানাজা শেষে লাশ দাফন করে।