স্কাসের নতুন প্রকল্পের অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত

সংবাদদাতাঃ

সম্প্রদায় স্তরে যুব শান্তি প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বেসরকারি সংস্থা সমাজ কল্যাণ ও উন্নয়ন সংস্থা (স্কাস) কক্সবাজার জেলার উখিয়া, বান্দরবান সদর ও রাঙ্গামাটি জেলার কাপ্তাই উপজেলায় মানুষের মধ্যে সহনশীলতা ও অন্তর্ভুক্তির প্রচারে একটি নতুন প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে। এ প্রকল্পে সহায়তা করছে ইউএনডিপি।

 

১৫ সেপ্টেম্বর (বুধবার) সকালে উখিয়া উপজেলা পরিষদ হলরুমে সমাজ কল্যাণ ও উন্নয়ন সংস্থা (স্কাস) এর চেয়ারপার্সন জেসমিন প্রেমার সভাপতিত্বে প্রকল্পটির অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন আহমেদ।প্রকল্পের কার্যক্রম সম্পর্কে ধারণা প্রদান করেন প্রকল্পের ফোকালপার্সন মোঃ তোফাজ্জল হোসেন।

অনুষ্ঠানে প্রকল্পের বিভিন্ন দিক নিয়ে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ইউএনডিপি রিসার্চ এসোসিয়েট রোকন উদ্দিন, পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এম. গফুর উদ্দিন চৌধুরী, উখিয়া উপজেলা সহকারী যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মির্জা শামীম উদ্দিন আহমেদ, ইউএনডিপি প্রতিনিধি জিন্নাহ দেওয়ান, উখিয়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি স্বপন শর্মা রনি, ইউপি সদস্য মোঃ সালাউদ্দিন, রিপোর্টার্স ইউনিটি উখিয়ার সভাপতি শরীফ আজাদ, উখিয়া অনলাইন প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক পলাশ বড়ুয়া ও যুব প্রতিনিধি ইমরান আল মাহমুদ।

 

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন নুসরাত জাহান ও শিউলি বড়ুয়া।

বিএনপির গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার কথা হাস্যকর: কাদের

নিউজ২৪লাইন, ঢাকা- আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, যাদের দলের অভ্যন্তরে গণতন্ত্রের চর্চা নেই তারা দেশে কীভাবে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবে। বিএনপির জাতীয় সম্মেলন তো দূরের কথা গত এক যুগে তৃণমূল পর্যায়েও তারা কোনও সম্মেলন করতে পারেনি। যাদের দলেই গণতন্ত্র নেই তারা দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবে, এটা হাস্যকর ছাড়া আর কিছু নয়।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সকালে তার বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংকালে এসব কথা বলেন তিনি।

গণতন্ত্র একটি বিকাশমান প্রক্রিয়া, একদিন বা এক বছরের বিষয় নয়, এটি সুদীর্ঘ প্রক্রিয়া উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সরকার ও বিরোধীদলের আন্তরিক সহযোগিতা এবং চর্চার মধ্য দিয়ে গণতান্ত্রিক অভিযাত্রা এগিয়ে চলে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দেশের গণতন্ত্রের বিকাশ ও অগ্রযাত্রায় শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে।’

কারফিউ গণতন্ত্র আর মুখোশধারী সেবকদের হাত থেকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধকে পুনরুদ্ধার করেছেন শেখ হাসিনা উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘চলার পথে ভুলত্রুটি যে হয়নি এমন নয়, তবে এ ত্রুটি সংশোধনের সৎ সাহস শেখ হাসিনা দেখিয়েছেন।’

তিনি জানান, গণতন্ত্র বিকাশের পথে বহু বাধা বিপত্তিকে অতিক্রম করে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা অবিরাম কর্মপ্রয়াস অব্যাহত রেখেছেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দলগতভাবেও আওয়ামী লীগ আভ্যন্তরীণ গণতন্ত্র চর্চায় দেশের যেকোন রাজনৈতিক দলের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে।’

নির্বাচন বিমুখ একটি দল কীভাবে গণতন্ত্রের কথা বলে? যে দলের মহাসচিব জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে পদত্যাগ করে, কিন্তু তার দল সংসদে রয়েছে, এটা কোন গণতন্ত্র-প্রশ্ন ওবায়দুল কাদেরের।

বিএনপি যতই কাল্পনিক অভিযোগ করুক প্রকৃতপক্ষে সরকার নয়, বিএনপিই গণতন্ত্রের বিকাশের পথকে সংকুচিত করেছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘বিএনপিই নির্বাচনের দিন ভোট কেন্দ্রে না গিয়ে জনগণের ভোটাধিকার প্রয়োগের অধিকার হরণ করে, গণতন্ত্রকে সংকুচিত করে।’

অনিবন্ধিত সব অনলাইন বন্ধ করে দেওয়া সমীচীন হবে না: তথ্যমন্ত্রী

নিউজ২৪ লাইন: ঢাকা- সাত দিনের মধ্যে অনিবন্ধিত সব অনলাইন নিউজপোর্টাল বন্ধ করে দেওয়া সমীচীন হবে না বলে মনে করেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী হাছান মাহমুদ। এ বিষয়ে আদালতকে অবহিত করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ তথ্য জানান।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘অনলাইন বন্ধ করে দেয়ার বিষয়ে আদালত যে নির্দেশ দিয়েছে সেটি আমরা গণমাধ্যমে শুনেছি। এখনও নোটিশ পাইনি। আদালতের নির্দেশ পেলে নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে আমরা কিছু অনলাইন বন্ধ করে দেবো। তবে ঢালাওভাবে সব বন্ধ করাটাও ঠিক হবে না।’

নিবন্ধনের জন্য কয়েক হাজার নিউজপোর্টাল আবেদন করেছে। কিন্তু দীর্ঘসময় চলে গেলেও অল্প কিছু গণমাধ্যমকে নিবন্ধনের আওতায় আনা হয়েছে। বাকিগুলোর বিষয়ে কী সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে- জানতে চাইলে তিনি বলেন, আবেদনের পর যাচাই-বাছাই করার জন্য আমরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠাই। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এগুলো তদন্তকারী সংস্থাকে দেয়। সেটি শেষ করে না আসা পর্যন্ত তো আমরা নিবন্ধন দিতে পারি না। এ কারণেই সময় লাগছে।

নিউজ পোর্টালের পাশাপাশি ইউটিউব চ্যানেল ও আইপি টিভিও রেজিস্ট্রেশনের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘রেজিস্ট্রেশন একটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়া। এ বিষয়টি আমরা আদালতের নজরে আনব। একই সঙ্গে ইউটিউব চ্যানেল ও আইপি টিভিও রেজিস্ট্রেশনের আওতায় আনা হবে।’

এর আগে মঙ্গলবার অনিবন্ধিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল বন্ধের নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। আদালতের আদেশ পাওয়ার ৭ দিনের মধ্যে বিটিআরসির চেয়ারম্যান ও প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যানকে এ নির্দেশ বাস্তবায়ন করতে বলা হয়। এদিন বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট রাশিদা চৌধুরী নিলু ও ব্যারিস্টার জারিন রহমান।

শরীয়তপুরে প্রধান শিক্ষক হত্যা : ৪ জনের মৃত্যুদণ্ড, ৯ জনের যাবজ্জীবন

নিউজ২৪লাইন:
প্রধান শিক্ষক হত্যা : ৪ জনের মৃত্যুদণ্ড, ৯ জনের যাবজ্জীবন
শরীয়তপুরের পালং থানার চিকন্দী আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সামাদ আজাদকে হত্যার ঘটনায় ৪ জনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে আদালত ৯ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৩ এর বিচারক মনির কামাল এ রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- চান মিয়া খান, নুরুজ্জামান খান, জাহাঙ্গীর মাদবর ও জুলহাস মাদবর।

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- আবদুল হালিম মোল্লা, ফারুক খান, আজিজুর মাদবর, জলিল মাদবর, আজাহার মাদবর, লাল মিয়া মীর, মিজান মীর, এমদাদ মাদবর ও আকতার গাজী।

এদিকে আরও ৬ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদের খালাস দিয়েছেন আদালত। খালাসপ্রাপ্তরা হলেন- আজিবর বালি, খোকন বেপারী, সোহরাব মোল্লা, আজাহার মোল্লা ও আব্দুল খন্দকার।

সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনালের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর মাহবুবুর রহমান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

২০১০ সালে আসামিরা শরীয়তপুর জেলার পালং থানার সন্তোষপুরের বাসিন্দা ও চিকন্দী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সামাদ আজাদকে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে। এ ঘটনায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সুলতান মাহমুদ অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

এরপর ২০১৬ সালের ২০ জানুয়ারি আদালত অভিযোগ গঠন করেন। রাষ্ট্রপক্ষ বিভিন্ন সময়ে ১৪ জন সাক্ষী আদালতে উপস্থাপন করেন।

কেমন আছেন শাকিব খানের ব্যক্তিগত মেকআপ আর্টিস্ট সবুজ খান

বিনোদন ডেস্ক :
শরীয়তপুরের ছেলে সবুজ খান , ঢাকাই চলচ্চিত্রের অন্যতম সুপারহিট নায়ক শাকিব খান এর কাছের মানুষ চলচ্চিত্রের সুপরিচিত মেকআপ আটিস্টি সবুজ খান,
সবুজ খান জনপ্রিয় নায়ক শাকিব খানের ব্যক্তিগত মেকআপ আটিস্টি হিসাবে কাজ করেন।। সবুজ খান জানান চলচ্চিত্রের কাজ কমে যাওয়ায় কেউ ভালো নেই
অনেকেই মেকআপ আর্টিস্ট এর পাশাপাশি বিভিন্ন কাজ পরে থাকেন।

তেমনি আমি সাকিব ভাইয়ের পরামর্শে শরীয়তপুরে আমার গ্রামের বাড়িতে আমি মুরগির খামারে ব্যবসা এবং ওয়াইফাই লাইনের ব্যবসা চালু করেছি
সাকিব ভাইয়া বলেছিলেন মেকআপ এর পাশাপাশি বিকল্প কোন ব্যবসা যেন আমি করি তাই সাকিব ভাইয়ার কথামতো ব্যবসা চালু করে দিয়েছি।। চলচ্চিত্রে প্রায় ১২০ জনের মত মেকআপ আর্টিস্ট রয়েছে সবুজ খান তাঁদের মধ্যে ব্যস্ত মেকআপ আর্টিস্ট হিসেবে পরিচিত সবুজ খান বলেন ১৯বছরের কর্মজীবনে চলচ্চিত্রের মন্দা সময় এর পাশাপাশি করোনাকালীন সময়ে এত সংকট কখনো অনুভব করিনি তাই চেষ্টা করছি অন্য কিছু করার

গভীর রাতে কান্নার শব্দ-রাস্তার পাশে মিলল ফুটফুটে নবজাতক

নিউজ২৪লাইন: শাহজালাল আশিক:

গভীর রাতে কান্নার শব্দ-রাস্তার পাশে মিলল ফুটফুটে নবজাতক

রাত ১১টা, গ্রামীণ পরিবেশে ছিল সুনশান নিরবতা। তারই মাঝে হঠাৎ নবজাতকের চিৎকার-কান্না। কিছুক্ষণ থেমে থেমে ভেসে আসতে থাকে শিশুর কান্নার শব্দ। রাস্তার কাছাকাছি বাড়ি মোঃ লাভলু মিয়ার। কান্নার উৎস খুঁজতে তারা বের হয়ে আসেন রাস্তায়। অবশেষে মুঠোফোনের আলোয় মিললো এক ফুটফুটে নবজাতক মেয়ে। মাটিতে গড়াগড়ি করছিল শিশুটি, গায়ে ছিল না কোন কাপড়। শরীরের রক্তের দাগ। তখনও পড়েনি শিশুটির নাভী। মুহূর্তেই কোলে তুলে নেন লাভলুর স্ত্রী বাসনা আক্তার। বাড়ি নিয়ে কাপড়ে জড়িয়ে মুখে দেন গাভীর দুধ। পরম মমতায় মাতৃস্নেহে বুকে জড়িয়ে কাটান সারারাত। শিশুটির নামও রাখে এলাকাবাসী বিলকিছ। হদিস মেলেনি তার পিতামাতার। ঘটনাটি মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার বালিয়াখোড়া ইউনিয়নের পুটিয়াজানী গ্রামে।
মঙ্গলবার সকালে খবর পেয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ওয়াদিয়া শাবাব, থানার ওসি মোঃ রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ বিপ্লব, ওসি তদন্ত মোহাব্বত খান, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আব্দুল মান্নান, এসআই আল মামুনসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা ওই মেয়ে নবজাতককে লাভলুর বাড়ি থেকে উদ্ধার করে ঘিওর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

বাসনা আক্তারের শাশুড়ি প্রবীণ লাইলী বেগম বলেন, সোমবার রাতে তার স্বামী নদী থেকে মাছ ধরে আনেন। দিবাগত রাত ১১টার তিনি নিজ বাড়ির টিউবওয়েলের পাশে মাছ ধোয়ার সময় শিশুর কান্নার শব্দ শুনতে পান। পরে তার স্বামীকে ঘর থেকে ডেকে নিয়ে দেখতে পান রাস্তায় মাটিতে শুয়ে কাঁদছিল ওই শিশুটি। নবজাতককে দেখে মনে হয়েছে কয়েক ঘন্টা পূর্বে তার জন্ম হয়েছে।
পরে বিষয়টি স্থানীয় ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মাহেলা ও বালিয়াখোড়া ইউনিয়নের সংরক্ষিত আসনের মেম্বার নাছিমা আক্তার মল্লিকা প্রশাসনকে খবর দেয়ার পর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
সরজমিন ঘিওর হাসপাতালে গিয়ে দেখা গেছে, শিশু ওয়ার্ডে বাসনা আক্তারের কোলে শুয়ে আছে শিশুটি। বেশ আন্তরিকতার সাথে ডাক্তার-নার্সরা দিচ্ছেন চিকিৎসা সেবা।
ঘিওর থানার ওসি মো: রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ বিপ্লব বলেন, গতকাল রাত ১১ টার দিকে ওই শিশুটিকে উদ্ধার করে স্থানীয় গ্রামবাসী। আজ সকালে উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তা গিয়ে শিশুটিকে ঘিওর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। এই শিশুর অভিভাবকদের চিহ্নিত করতে পুলিশ কাজ শুরু করেছে বলে তিনি জানান। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই শিশুটিকে সার্বক্ষণিক দেখামোনা ও নিরাপত্তার বিষয়টি বেশ গুরুত্বের সাথে দেখছি বলে জানান ওসি রিয়াজ।
শিশুটির উদ্ধারকারী বাসনা আক্তার (৩৩) বলেন, মেয়ে শিশুটিকে পাবার পর থেকে সারা রাত আমার বুকে ছিল। আজ হাসপাতালে আনার পর থেকে আমার কাছেই রয়েছে। অনেক মায়া পরে গেছে। আমার কোন মেয়ে নেই। এই মেয়েটিকে আমার মেয়ে হিসেবে মানুষ করতে চাই।
ঘিওর হাসপাতালের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ হাসিব আহসান জানান, শিশুটিকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শিশুটি বর্তমানে সুস্থ রয়েছে। তবে আরো নিবীড় পর্যবেক্ষনে রেখে চিকিৎসা প্রদান করা হবে।
উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ওয়াদিয়া শাবাব জানান, শিশুটিকে হাসপাতে ভর্তি করে তার চিকিৎসা নিশ্চিত করা হয়েছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। শিশুটির চিকিৎসা ও সুরক্ষায় সমাজ সেবা কর্মকর্তা, হাসপাতালের চিকিৎসক ও পুলিশকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। শিশুটি সুস্থ হয়ে ওঠার পর এ বিষয়ে পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।

শরীয়তপুর জেলা নড়িয়া উপজেলায় বিদ্যালয় প্লাবিত, খোলা আকাশের নিচে পাঠদান

আমান আহম্মেদ সজিব শরীয়তপুর থেকে :

শরীয়তপুর জেলা নড়িয়া উপজেলায় বিদ্যালয় প্লাবিত, খোলা আকাশের নিচে পাঠদান।
জোয়ারের পানি প্রবেশ করায় শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার তিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাঠদানে বিঘ্ন ঘটেছে। এর মধ্যে দুটি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা খোলা আকাশের নিচে ও অপর বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পাশের বাড়ির বারান্দায় ক্লাস করতে দেখা গেছে।

প্রায় দেড় বছর পর ১২ সেপ্টেম্বর থেকে বিদ্যালয় খুললেও জোয়ারের পানি ঢুকে পড়ায় উপজেলার চর জপসা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মৃধা কান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও পূর্ব নড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শেণিকক্ষ পাঠদানের উপযোগী ছিলো না। ফলে দুটি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা খোলা আকাশের নিচে ও অপরটির শিক্ষার্থীদের পাঠদান চলে পাশের বাড়ির বারান্দায়।

স্থানীয়রা জানান, ২০১৮ সালে পদ্মার ভাঙনের শিকার উপজেলার পূর্ব নড়িয়া গ্রামটি। ওই গ্রামেই ছিল পূর্ব নড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাকা ভবন। পদ্মার ভাঙনে একই বছর বিলীন হয়ে যায় ভবনটি। এতে ভেঙে পড়ে পাঠদান ব্যবস্থা। পরে ওই গ্রামে অস্থায়ীভাবে চার রুম বিশিষ্ট একটি টিনের ঘরে পাঠদান শুরু হয়। কিন্তু করোনায় এক বছর আট মাস ক্লাস বন্ধ থাকে। গত ১২ সেপ্টেম্বর ক্লাস চালু হলেও বিদ্যালয়টির চারদিকে জোয়ারের পানি থাকায় ক্লাস করা সম্ভব হচ্ছে না।
পূর্ব নড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা আসমা আক্তার তার নির্দেশে জোয়ারের পানি ও কাদা থাকায় বিদ্যালয়ে কাছাকাছি একটি বাড়ির আঙিনায় বিদ্যালয়ের বেঞ্চ নিয়ে ক্লাস করাচ্ছেন
ওই বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী আনিকা ও সাব্বির হোসেন বলেন জোয়ারের পানির কারণে ওইখানে আমরা পড়তে যাইতে পারতাছি না। বর্তমানে পাশের একটি বাড়িতে ক্লাস নেওয়া হয়। আমাদের একটি পাকা স্কুল হলে ভালো হতো।

চর জপসা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হেলেনা আক্তার আরও বলেন, বিদ্যালয়ের মাঠে জোয়ারের পানি ঢোকায় বিদ্যালয়ে ক্লাস নেয়া সম্ভব হচ্ছে না। তাই বিদ্যালয়ের নিকটবর্তী একটি বাড়ির উঠানে ক্লাস নিচ্ছি। শিক্ষার্থী ও আমাদের কষ্ট হচ্ছে।
শরীয়তপুর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বলেন, পূর্ব নড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চর জপসা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মৃধা কান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে পানি। তাই অন্যত্র ক্লাস চলছে। পানি কমে গেলে বিদ্যালয়ে ক্লাস শুরু হবে।

1 2