ই-কমার্স থেকে সরঞ্জাম কিনে ই-বেবির জননী তিনি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
ইডেনের সঙ্গে মা স্টেফানি

তথ্য প্রযুক্তির যুগে অনেক অবাক করা সংবাদ সামনে আসে। এবার এক নারী অনলাইনে কিনলেন শুক্রাণু। ইউটিউব দেখে গর্ভে সেই শুক্রাণু প্রবেশ করানো প্রক্রিয়া শিখেছেন। শেষ পর্যন্ত জন্ম দিয়েছেন সন্তান। ৩৩ বছর বয়সী স্টেফানি মেয়ের নাম রেখেছেন ইডেন। তবে তার আশে পাশের মানুষজন নাম দিয়েছেন ‘ই-বেবি’।

অনলাইন সংক্রান্ত বিষয় গুলোর সঙ্গে ‘ই’ শব্দটি জুড়ে আছে। ‘ইলেকট্রনিক্স’ থেকেই ‘ই’ শব্দটি সামনে এসেছে। বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম ই-বে থেকে কিনেছেন প্রজনন প্রক্রিয়ার প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র।

ইংল্যান্ডের নুন্থরোপের বাসিন্দা স্টেফানি টেইলর নিজেদের দ্বিতীয় সন্তান নিতে যখন আগ্রহী হলেন তখন দেখলেন, স্থানীয় ক্লিনিকগুলোতে বেশ ব্যয় বহুল। তাই বিকল্প পথ খুঁজতে থাকেন তিনি।

এক বন্ধুর সাহায্যে একটি অ্যাপের সন্ধান পান তিনি। যেখানে শুক্রাণু অর্ডার করেন। এর পর ই-বে থেকে কিনে নেন সরঞ্জামগুলো। ব্রিটিশ গণমাধ্যম ডেইলি স্টারকে তিনি বলেন, প্রথমবারের চেষ্টাতেই তিনি গর্ভবতী হন। ওই ডোনার তার বাসাতেই শুক্রাণু দিতে হাজির হয়েছিলেন। তার মতে সন্তানটি সত্যিকারের ‘অনলাইন বেবি’ যা ‘বিস্ময়ের’ মতোই।

তার প্রথম সন্তানের বয়স পাঁচ বছর। সাবেক সঙ্গীর সঙ্গে এখন আর সম্পর্ক নেই স্টেফানির। তার চাওয়া ছেলে সন্তান যেন একা বড় না হয়। সেই জন্যই আরেকটি সন্তান নিতে চাচ্ছিলেন। তবে অর্থনৈতিক বিষয়টির বিবেচনায় যা ছিল তার জন্য বেশ কঠিন ছিল। যদি অনলাইনে এমন সার্ভিস না থাকতো তাহলে কখনওই তিনি সন্তানের মা হতে পারতেন না।

এদিকে স্টেফানির চাওয়া ছিল, বড় সন্তানের মতো যাতে ছোট সন্তানের মিল থাকে। তাই দেখতে অনেকটা তার মতো একজন শুক্রাণু ডোনার খুঁজে নেন তিনি। শারীরিকভাবে যিনি সুস্থ ও গঠনও যাতে তার সঙ্গে মিলে এমনই একজনকে খুঁজে নেন তিনি। শুধু তাই নয় স্বভাবের দিক থেকেও পরিবারমুখী একজন ডোনার খুঁজতেও সফল হন তিনি।’

২০২০ সালের জানুয়ারিতে প্রথমবারের মতো শুক্রাণু দিয়ে যান ওই ডোনরা। অক্টোবারের ১৫ তারিখ প্রায় চার কেজি ওজনের সুস্থ মেয়ে সন্তান প্রসব করেন তিনি।

ইডেন বড় হলে ডোনারের সঙ্গে তাকে দেখা করিয়ে দেয়ার ইচ্ছা আছে তার বলে জানান স্টেফানি।

শরীয়তপুরে সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসীর হামলার প্রতিবাদে বিভিন্ন সংগঠনের নিন্দা

নিউজ২৪লাইন:
শরীয়তপুরে
মারধরের ভিডিও ধারণ করায় সাংবাদিকের ওপর হামলা
এটিএন বাংলা, এটিএন নিউজ ও বাংলাদেশ প্রতিদিনের শরীয়তপুর জেলা প্রতিনিধি উপর শরীয়তপুর ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি
রোকনুজ্জামান পারভেজ এর উপর
ওপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে শরীয়তপুরে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের প্রতিবাদ ও নিন্দা।

(২০ সেপ্টেম্বর) সোমবার দুপুর সাড়ে ১ টার দিকে পালং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে ওই সাংবাদিকের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ঢুকে তার ওপর হামলা চালানো হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন স্থানীয়রা।

আহত সাংবাদিক রোকনুজ্জামান পারভেজ এটিএন বাংলা, এটিএন নিউজ ও বাংলাদেশ প্রতিদিনের শরীয়তপুর প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছেন। এছাড়া শরীয়তপুর ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

ওই সাংবাদিক এবং প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুরে রোকনুজ্জামান পারভেজ তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বসে ছিলেন। এসময় ২০/২৫ জন মিলে এক নারীকে রড, লাঠি দিয়ে মারধর করছিল। এক পর্যায়ে তার দোকানে আশ্রয় নেন ওই নারী। তখন ওই সন্ত্রাসীদের দোকান থেকে বের হতে বলেন পারভেজ। ঘটনাটি ভিডিও করার সময় পারভেজকে কিল-ঘুষি ও রড দিয়ে পিটিয়ে জখম করেন তারা। এসময় দোকান থেকে নগদ টাকাও লুট করা হয়। হামলাকারীরা শরীয়তপুর পৌরসভার উত্তর পালং গ্রামের আবুল কাশেম মিয়ার ছেলে নাজমুল মাদবর ও নাঈম মাদবরের অনুসারী বলে অভিযোগ করেন রোকনুজ্জামান পারভেজ।

আবুল কাশেম মিয়া বলেন, ‘আমি এই ব্যাপারে কিছু জানিনা। যদি আমার ছেলেরা এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়ে থাকে তবে তাদের বিচার করা হোক।’

সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. সুমন কুমার পোদ্দার জানান, পারভেজের ঘাড়ে আঘাত করা হয়েছে। আরও কিছু সময় পার না হলে তার সঠিক অবস্থা বলা যাবে না।

পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আক্তার হোসেন বলেন, আহত অবস্থায় রোকনুজ্জামান পারভেজকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

শরীয়তপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি অনল কুমার দে হামলাকারীদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানায়।

শরীয়তপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি এসএম আবুল কালাম আজাদ বলেন সাংবাদিক রকোনুজ্জামান পারভেজ এর উপর সন্ত্রাসী হামলার বিচার দাবি করছি এর সাথে যারা জড়িত তাদের সবাইকে আইনের আওতায় আনার জন্য অনুরোধ করছি,আর এ নিয়ে যদি কোনো তালবাহানা শুরু হয় তাহলে আমরা শরীয়তপুর সামাজিক সংগঠনগুলো মানববন্ধন এর প্রস্তুতি গ্রহণ করিব।।

শরীয়তপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলনের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক জুয়েল আহমেদ মোল্লা বলেন সাংবাদিক রোকনুজ্জামান পারভেজক এর উপর হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই দ্রুত এর সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় আনার দাবি করছি অথবা শরীফপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলনের পক্ষ থেকে মানববন্ধন ও বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করিব।