স্কাসের উদ্যোগে বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস পালিত

 

বিশেষ প্রতিবেদক:

“অসম বিশ্বে মানসিক স্বাস্থ্য” -এ প্রতিপাদ্য বিষয়টিকে সামনে রেখে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ‘সমাজ কল্যাণ ও উন্নয়ন সংস্থা (স্কাস)’ এর উদ্যোগে বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস -২০২১ পালন করা হয়েছে।

 

প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফের স্থানীয় জনগোষ্ঠী এবং ১৫ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের কিশোর-কিশোরীদের চিত্রাংকন প্রতিযোগীতার মধ্য দিয়ে পৃথক পৃথক ভাবে দিবসটি পালন করে স্কাস ।

 

রবিবার (১০ অক্টোবর) আর্ন্তজাতিক দাতাসংস্থা এমডিএম- এর সহযোগীতায় ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা স্কাসের উদ্যোগে উখিয়া-টেকনাফের স্থানীয় জনগোষ্ঠীদের দু’টি এবং ১৫ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের দু’টি কমিউনিটি সেন্টারে দিন ব্যাপী দিবসটি পালন করা হয়।

 

এসময় উপস্থিত ছিলেন, আন্তর্জাতিক দাতাসংস্থা এমডিএম’র এমএইচপিএসএস কো-অর্ডিনেটর সাইকোলজিষ্ট তারিকুল ইসলাম, স্কাসের প্রশাসক এবং প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর মোহাম্মদ সালেহউদ্দিন, এসডাব্লিউসিআরআরআরসি প্রকল্পের কো-অর্ডিনেটর সাইকোলজিষ্ট তৌহিদুল মোস্তফা, এমএইচপিএসএস-জিবিভি প্রকল্পের কো-অর্ডিনেটর সাইকোলজিষ্ট হাফিজ আল আসাদসহ স্কাসের বিভিন্ন প্রকল্পে কর্মরত কর্মকর্তা ও প্রতিনিধিগণ।

 

এসময় এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় তারা বলেন, করোনাভাইরাস মহামারির প্রভাবে বিশ্বের অন্য দেশের মতো বাংলাদেশেও বেড়েছে মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা। মহামারির এসময়ে প্রতিটি মানুষের সুস্থতার জন্য মানসিক স্বাস্থ্য খুবই  গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়।একজন মানুষের শারীরিক ভাবে যেমন সুস্থ থাকা দরকার তেমনি মানসিক ভাবেও সুস্থ থাকা দরকার।তারা বলেন- করোনায় আক্রান্তরাই শুধু নন, ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হননি এমন মানুষের মাঝেও বাড়ছে মানসিক নানা সমস্যা। তাই স্বাস্থ্য সমস্যা নিয়ে সচেতন হওয়া প্রয়োজন।

 

বক্তারা বলেন বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবসে কিশোর-কিশোরীদের জন্য চিত্রাংকন প্রতিযোগীতার আয়োজনের মধ্য দিয়ে মানসিক সুস্থতার বার্তা স্থানীয় জনগোষ্ঠী ও রোহিঙ্গাদের কাছে পৌঁছানোর জন্য তারা উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন।

 

চিত্রাংকন প্রতিযোগীতা শেষে স্থানীয় ও রোহিঙ্গা কিশোর-কিশোরীদের মাঝে পুরুষ্কার বিতরণ করা হয়।

 

উল্লেখ্য  প্রতি বছর ১০ অক্টোবর সারা বিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশেও  মাসসিক স্বাস্থ্য দিবস পালন করা হয়।

২৭ তম সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু ” সিনহা হত্যা মামলার

আনোয়ার সিকদার প্রতিনিধি: দেশের আলোচিত হত্যাকান্ড সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলার পঞ্চম দফায় দ্বিতীয় দিনে ২৭ তম সাক্ষি সার্জেন্ট জিয়াউর রহমানের সাক্ষ্য প্রদানের মধ্য দিয়ে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ও কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ফরিদুল আলম জানান, সোমবার (১১ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০ টায় জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইলের আদালতে এ বিচারকাজ শুরু হয়। এর আগে গত ২৩ থেকে ২৫ আগস্ট পর্যন্ত মামলার প্রথম দফার সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়। এতে সাক্ষ্য দেন মামলার বাদী ও সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়ার ফেরদৌস এবং ২ নম্বর সাক্ষী ঘটনার সময় সিনহার সঙ্গে একই গাড়িতে থাকা সঙ্গী সাহেদুল সিফাত। পরে দ্বিতীয় দফায় ৪ দিনে চারজন প্রত্যক্ষদর্শীর সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়।

তৃতীয় দফায় তিন দিনে পর্যন্ত ৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়। মামলায় চতুর্থ দফায় দুই দিনে ছয়জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে। পঞ্চম দফায় পঞ্চম দিনে আরো ছয়জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়। মামলায় ২৭ তম সাক্ষিসহ আরো ৫৭ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হবে। সোমবার সকাল ৯ টা ২৭ মিনিটে কক্সবাজার জেলা কারাগার থেকে মামলার ১৫ আসামিকে প্রিজন ভ্যান করে কড়া পুলিশ পাহারায় আদালতে আনা হয়।

পিপি ফরিদুল বলেন, মামলায় সাক্ষ্যদানের জন্য ৮৩ জন সাক্ষীর মধ্যে এ পর্যন্ত ৫৯ জনকে আদালত নোটিশ দিয়েছিলেন। গত ২৩ আগস্ট থেকে শুরু হওয়া সাক্ষ্যগ্রহণের পঞ্চম দফায় প্রথম দিন পর্যন্ত ২৬ জনের জবানবন্দি নেয়া হয়েছে। সোমবার সকাল সাড়ে ১০ টায় পঞ্চম দফার দ্বিতীয় দিনে ২৭ তম সাক্ষি হিসেবে সেনা সদস্য সার্জেন্ট জিয়াউর রহমানের জবানবন্দি গ্রহণের মধ্য দিয়ে আদালতের বিচারকাজ শুরু হয়।

রাষ্ট্রপক্ষের এ আইনজীবী বলেন, সোমবার পঞ্চম দফায় দ্বিতীয় দিনে সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য ২৭ তম সাক্ষিসহ ৫ জন সাক্ষি আদালতে উপস্থাপন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বছর ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। এ ঘটনায় গত বছর ৫ আগস্ট সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়ার ফেরদৌস বাদী হয়ে টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও বাহারছড়া তদন্ত সাবেক ইনচার্জ পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ ৯ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। মামলায় প্রধান আসামি করা হয় লিয়াকত আলীকে। আদালত মামলার তদন্ত ভার দেয়া হয় র‍্যাবকে। ঘটনার ৬ দিন পর ওসি প্রদীপ ও পরিদর্শক লিয়াকতসহ ৭ পুলিশ সদস্য আত্মসমপর্ণ করেন। ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে টেকনাফ থানায় একটি এবং রামু থানায় আরেকটি মামলা দায়ের করেন। পরে র‍্যাব পুলিশের দায়ের মামলার ৩ সাক্ষি এবং শামলাপুর চেকপোস্টে দায়িত্বরত আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ানের (এপিবিএন) এর ৩ সদস্যকে গ্রেপ্তার করে। এরপর গ্রেপ্তার করা হয় টেকনাফ থানা পুলিশের সাবেক কনস্টেবল রুবেল শর্মাকে।

সর্বশেষ গত ২৪ জুন আদালতে আত্মসমর্পণ করেন টেকনাফ থানার সাবেক এএসআই সাগর দেব। গত বছর ১৩ ডিসেম্বর র‍্যাব-১৫ কক্সবাজার ব্যাটালিয়ানের তৎকালীন দায়িত্বরত সহকারি পুলিশ সুপার খাইরুল ইসলাম ১৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। গত ২৭ জুন আদালত ১৫ জন আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। এতে সাক্ষি করা হয় ৮৩ জনকে।

অনেকে না বুঝে সমালোচনা করে: প্রধানমন্ত্রী

নিউজ২৪লাইন: পাবনার রূপপুরে নির্মাণাধীন পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্রের নিরাপত্তা ও পারমাণবিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনার বিষয়ে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাশিয়ার সঙ্গে চুক্তিতে এসব বিষয়ের উপর জোর দেওয়া হয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অনেকে বুঝে না বুঝেই সমালোচনা করে।

আজ রোববার সকালে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রূপপুর পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্রের মূল যন্ত্র রিয়াক্টর প্রেসার ভেসেল বা পরমাণু চুল্লিপাত্র প্রথম ইউনিটে স্থাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ গড়ে তোলার কারণে ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠানে যোগদান করতে পেরেছেন-এমন মন্তব্য করে অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা বলেন, ‘পাকিস্তান শুধু জমি দিয়েছে, কিন্তু রূপপুরে বরাদ্দ টাকা তারা নিয়ে যায় পশ্চিম পাকিস্তানে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘৭০’র নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু এই পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণের দাবি তোলেন৷ স্বাধীনতার পর তিনি আইএর সঙ্গে চুক্তি করেন। কিন্তু বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর সব থেমে যায়। এরপরের শাসকরা এ প্রকল্প এগিয়ে নেওয়ার যোগ্য ছিল না, নিতেও চায়নি।’

‘২১ বছর পর ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে আবার এ প্রকল্প এগিয়ে নেয়। ২০০৯ সালে আবার ক্ষমতায় এসে তার সরকার রাশিয়ার সহযোগিতায় রূপপুর প্রকল্পকে চূড়ান্ত রূপ দেয়,’ যোগ করেন সরকারপ্রধান।

তিনি আরও বলেন, ‘পরমাণু শক্তির একটা অংশ হিসেবে সেখানে একটা স্থান আমরা করে নিতে পারলাম, আর সেটা শান্তির জন্য। বিদ্যুৎ উৎপাদন হবে, সেই বিদ্যুৎ গ্রাম পর্যায়ে মানুষের কাছে যাবে, মানুষের আর্থসামাজিক উন্নতি হবে।’

এর আগে বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে ঢাকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্রের মূল যন্ত্র রিয়াক্টর প্রেসার ভেসেল বা পরমাণু চুল্লিপাত্র প্রথম ইউনিটে স্থাপন কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাশিয়ার পরমাণু শক্তি সংস্থা রোসাটমের মহাপরিচালক অ্যালেক্সি লিখাচেভ।

উল্লেখ্য, রূপপুর প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে বাংলাদেশ পারমাণবিক শক্তি কমিশন।

দুটি টিকা দেওয়া হজযাত্রীদের অনুমতি মিলবে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয় ঘোষণা করেছে যে,দুই ডোজ টিকা দেওয়া হজযাত্রীদের মক্কার গ্র্যান্ড মসজিদে ওমরাহ ও নামাজ আদায়ের অনুমতি পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবে।

মদীনার মসজিদে নববী এবং রাসুল (সাঃ)এর রওজা শরীফ (কবর ) জিয়ারতের অনুমতিপত্রের জন্য একই শর্ত প্রযোজ্য হবে।

সৌদি গেজেটের প্রতিবেদনের বরাত মন্ত্রণালয় স্পষ্ট করে বলেছে যে, তাওয়াক্কালনা আবেদনে দেখানো হয়েছে যে, টিকা গ্রহণ থেকে অব্যাহতিপ্রাপ্ত বিভাগগুলি নিয়মের দ্বারা প্রভাবিত হবে না।

মন্ত্রণালয় বলেছে যে, পারমিটে জারি করা হয়েছে সকলকে অনুমতি বাতিল হওয়ার ৪৮ ঘন্টা আগে দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করতে ।এটা উল্লেখ যে সৌদি জুড়ে টিকা কেন্দ্রে গুলোতে অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়া যায়।

যেসব হজযাত্রী ভ্যাকসিনের এক ডোজ নিয়েছেন বা সংক্রমণ থেকে সেরে উঠেছেন তারা আর মসজিদে ওমরাহ ও নামাজ আদায়ের অনুমতি এবং রওজা শরীফ দেখার জন্য অ্যাপয়েন্টমেন্ট বুক করার অধিকার ভোগ করবেন না এবং ইটমর্ণা এবং তাওয়াক্কালনা অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে মদীনার মসজিদে নববীতে (সাঃ) এর রওজা জিয়ারত করতে পারবেন না।

নতুন আপডেট অনুসারে, স্বাস্থ্যে অবস্থা তাওয়াক্কালনা অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে আবেদনে কেবলমাত্র তাদের জন্য অনুমতি দেখানো হবে যারা ফাইজার-বায়োনটেক, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা, এবং মডার্নার যেকোনো একটি ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ বা জনসন অ্যান্ড জনসন ভ্যাকসিনের একটি ডোজ নিয়েছেন ।