প্রেম প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় যুবকের মুখে অ্যাসিড ছুড়ল দুই সন্তানের মা

নিউজ২৪লাইন:

বিবাহিত, দুই সন্তানের মা, তাতে কী, প্রেম কি আর কোনো বাধা মানে? তাই সোশ্যাল মিডিয়ায় আলাপ হওয়ায় যুবককে প্রেম নিবেদন করে বসেছিল ৩৫ বছরের শিবা। আর সেই প্রেম প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় সোজা অ্যাসিড মারল ‘প্রেমিক’ যুবকের মুখে। মারাত্মক জখম নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি সেই যুবক। চিকিৎসকদের আশঙ্কা, দৃষ্টিশক্তি হারাতে পারেন ওই যুবক।

এমনই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে ভারতের কেরালার তিরুবন্তপুরমে। ওই নারীর বিরুদ্ধে দায়ের হয়েছে অভিযোগ। গ্রেফতারও করা হয়েছে তাকে। শুরু হয়েছে তদন্তও। এদিকে এমন ঘটনায় হতভম্ব এলাকাবাসীও।
এমনই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে ভারতের কেরালার তিরুবন্তপুরমে। ওই নারীর বিরুদ্ধে দায়ের হয়েছে অভিযোগ। গ্রেফতারও করা হয়েছে তাকে। শুরু হয়েছে তদন্তও। এদিকে এমন ঘটনায় হতভম্ব এলাকাবাসীও।

ভারতের সংবাদ সংস্থা পিটিআই সূত্রে খবর, বছর আঠাশের অরুণ কুমার তিরুবন্তপুরমের বাসিন্দা। তার সাথে ফেসবুকে আলাপ হয় শিবা নামে ওই নারীর। বেশ কিছু দিন দুজনের মধ্যে কথা হয়। ঘনিষ্ঠও হয়ে পড়েন তারা। এর পরই অরুণকে প্রেম প্রস্তাব দেন শিবা। সেই সময়ই প্রকাশ্যে আসে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। অরুণ জানতে পারেন, শিবা বিবাহিতা। তার দুই সন্তান আছে। একথা জানার পরই সম্পর্ক শেষ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন অরুণ। সে কথা শিবাকে জানতেই বাঁধে বিপত্তি।

অরুণের পরিবারের অভিযোগ, সম্পর্ক শেষের কথা বলতেই তেড়ে আসেন শিবা। শুরু হয় অশান্তি। এমনকী, অরুণকে ব্ল্যাকমেল করে টাকা চাইতে থাকেন শিবা। গত ১৬ নভেম্বর বাসার নিকটবর্তী একটি চার্চে আসেন অরুণ। সেখানে শিবাও আসেন। কথা ছিল, চাহিদামতো টাকা দিয়ে সম্পর্কে ইতি টানবেন অরুণ। কিন্তু দেখা হওয়ার পরই অরুণের মুখে অ্যাসিড ছোড়েন শিবা। অ্যাসিডে জখম হয় খোদ শিবাও। কিন্তু গুরুতর জখম হন অরুণ।

প্রথমে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। পরে সরকারি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। চিকিৎসকরা জানান, অ্যাসিডে অরুণের গোটা মুখ ঝলসে গেছে। ক্ষতি হয়েছে চোখেরও। চিরকালের মতো দৃষ্টিশক্তি হারাতে পারেন তিনি

হাফ ভাড়া দিতে চাওয়ায় কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের হুমকি

নিউজ২৪লাইন:
হাফ ভাড়া দিতে চাওয়ায় সরকারি বদরুন্নেসা কলেজের দ্বাদশ শ্রণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের হুমকির অভিযোগ উঠেছে ঠিকানা পরিবহনের এক হেলপারের বিরুদ্ধে।

শনিবার (২০ নভেম্বর) সকাল ৮ টায় শনির আখড়া থেকে কলেজের আসার পথে হুমকি দেন বলে অভিযোগ করেন।

ভুক্তভোগী ঐ শিক্ষার্থী জানান, শনির আখড়া থেকে প্রতিদিন ১০ টাকা দিয়ে কলেজে যাতায়াত করি। আজকে ঠিকানা পরিবহনের একটি বাসে ২০ টাকা দিয়ে ভদ্রভাবে ১০ টাকা রাখতে বলি। ১০ টাকা ফেরত চাওয়ায় হেলপার বলতে থাকে ‘দিমু না কি করবি কর’ এরপর চিল্লানোর পর সে বলে ‘গলা বড় করবি না ৫ টাকা নে না হয় নাইমা যা’। এরপর নামার সময় ৫ টাকা হাতে ধরায় দিয়ে বলে নে তোর টাকা। এরপর ঐ শিক্ষার্থীকে বাস থেকে নামিয়ে দিয়ে অপ্রকাশযোগ্য ভাষায় ধর্ষণের হুমকি দেন।

বাসটি চলমান থাকায় তিনি প্রতিবাদ করতে পারেননি এবং ওই বাসের নম্বরও নোট করার সুযোগ পাননি। এদিকে বিষয়টি নিয়ে সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের (গ্রুপে) নিন্দার ঝড় বইছে। আগামীকাল বকশি বাজার মোড় অবরোধ করার ঘোষণা দিয়েছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

বদরুন্নেসা সরকারি কলেজের আরেক শিক্ষার্থী জানায়, প্রতিদিন বাসের এমন ভোগান্তি পোহাতে হয় আমাদের। স্টুডেন্ট দেখলে আগে বাসে তুললেও এখন তুলতে চায় না। তুললেও ভাড়া বেশি দিতে হয়। আমরা যদি এখন কিছু না বলি সামনে আরও সমস্যায় পড়তে হবে।

এদিকে রোববার সকাল ৯ টায় সড়ক অবরোধের ঘোষণা দিয়েছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। তারা জানায়, আগামীকাল সকালে কেউ ক্লাসে যাবে না। বকশি বাজার মোড় অবরোধ করা হবে।

এ সময় কিছু দাবিও উপস্থাপন করেছে তারা- স্টুডেন্টদের বাসে হাফ পাশ নিশ্চিত করতে হবে, স্টুডেন্টদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করা যাবে না, কলেজের সামনে সুন্দর মতো গাড়ি থামাতে হবে, স্টুডেন্টদের সম্মান সহকারে বাসে ওঠাতে হবে প্রভৃতি।

এ ছাড়া দাবি না মানলে রাস্তা অবরোধ করে কোনো বাস আগামীকাল যেতে দেওয়া হবে না বলেও জানায় তারা।

মুস্তাফিজ ভক্ত রাসেলের ৭ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ,

নিরাপত্তাবলয় ভেঙে মিরপুরে খেলার মাঠে ঢুকে পড়া মুস্তাফিজ ভক্ত রাসেলকে সাত দিনের রিমান্ড চেয়েছে পুলিশ।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মিরপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক সঞ্জীব কুমার সরকার তার রিমান্ডের আবেদন করে রোববার (২১ নভেম্বর) আদালতে হাজির করেন।

rtv
shijang
প্রচ্ছদ
বাংলাদেশ
মুস্তাফিজ ভক্ত রাসেলের ৭ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ
প্রকাশ : ২১ নভেম্বর ২০২১, ১৬:১৭
আপডেট : ২১ নভেম্বর ২০২১, ১৭:১২

আরটিভি নিউজ

মুস্তাফিজ ভক্ত রাসেলের ৭ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ, ছবি : সংগৃহীত
মুস্তাফিজ ভক্ত রাসেলের ৭ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ, ছবি : সংগৃহীত
Bengal
নিরাপত্তাবলয় ভেঙে মিরপুরে খেলার মাঠে ঢুকে পড়া মুস্তাফিজ ভক্ত রাসেলকে সাত দিনের রিমান্ড চেয়েছে পুলিশ।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মিরপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক সঞ্জীব কুমার সরকার তার রিমান্ডের আবেদন করে রোববার (২১ নভেম্বর) আদালতে হাজির করেন।

upay
ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোর্শেদ আল মামুন ভুইয়ার আদালতে আজই রিমান্ডের আবেদন বিষয়ে শুনানি হবে। আদালতের সংশ্লিষ্ট সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অপরদিকে রাসেলকে ৫৪ ধারায় সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার দেখানোর বিষয়টি নিশ্চিত করে মিরপুর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম বলেন, রাসেলকে রাতভর জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আমরা সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার দেখিয়েছি। আজ রাসেলকে ৫৪ ধারায় আদালতে হাজির করা হবে। আমরা তাকে আরও দীর্ঘতর জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য আদালতের কাছে রিমান্ড আবেদন করব। তবে এ বিষয়ে এখনও কোনো মামলা হয়নি।

ছয়গাঁও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন কে সামনে রেখে ৬নং ওয়ার্ড মেম্বার প্রার্থী মো: আবুল হোসেন মাঝি উঠান বৈঠক নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন ভোটারদের সাথে

নিউজ২৪লাইন: আমান আহমেদ সজীব শরীয়তপুর প্রতিনিধি :
: ভেদরগঞ্জ উপজেলার ছয়গাঁও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন কে সামনে ৬ নংওয়ার্ড মেম্বার প্রাথী মো:আবুল হোসেন মাঝী ভোটার দের সাথে উঠান বৈঠক নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন ও মতবিনিময় করে যাচ্ছেন এসময় ৬নংওয়ার্ডের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

মো: আবুল হোসেন মাঝি
জনসেবার কারণে সাধারণ মানুষের কাছে তিনি অত্যন্ত আস্থাভাজন ব্যক্তি হিসেবে সু-পরিচিতি লাভ করেছেন স্কুল জীবন থেকেই এলাকার ছোট ছোট উন্নয়নমূলক কাজের সাথে ব্যস্ত সময় পার করেছেন আবুল হোসেন এক সময় ৬নং ওয়ার্ডে বাসের সাক্ক দিয়ে এই এলাকার মানুষ চলা ফেরা করতেন ছাত্র জীবন থেকেই তার মানুষের প্রতি ভালোবাসা এলাকার উন্নয়ন নিয়ে চিন্তাভাবনা করতেন এজন্য এক ঝাঁক তরুণ ছাত্রদেরকে নিয়ে নিযে নেমে যেতেন বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করার জন্য
ছাত্র জীবন শেষ করে প্রবাসী জীবন শুরু করেন প্রবাসী জীবন শেষ করে সাধারণ মানুষের অনুরোধে ৬নংওয়ার্ড বাশির সেবা করার জন্য আগামী ২৩ সে ডিসেম্বর, ছয়গাঁও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন কে সামনে রেখে সাধারণ ভোটারদের কাছে কাছে ছুটে বেড়াচ্ছেন আবুল হোসেন মাঝি – একজন উদীয়মান, দানবীর, ধর্মপরায়ন,অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী ব্যাক্তি,গরীব দুখী মানুষের আস্থাভাজন
সমাজ সেবক হিসেবে দীর্ঘদিন ধরে তিনি নিজেকে ব্যস্ত রেখেছেন, সাধারণ মানুষের সেবায় । সাধ্য অনুযায়ী সাহায্য করে যাচ্ছে সাধারণ মানুষদের । মহামারী করােনায় ছিলেন সাধারণ মানুষের পাশে ।
খোজ খবর নিতেন, এবং বিভিন্ন ধরনের সাহায্য সহযােগিতা করে গেছেন । তিনি নিজেকে মানুষের সেবায় উৎসর্গ করে দিতে চান।

স্থানীয়রা বলেন আমরা ৬নংওয়ার্ডে যতো জন মেম্বার আজ পযর্ন্ত সুনে যাচ্ছি তাদের মধ্যে আবুল মাঝিই শিক্ষিত ও মেধাবী ও বর্তমান সমাজে শিক্ষিত ছাড়া কাউকে কিছু বানিয়ে লাভ নাই তাই নিয়ত করছি আবুলে যদি দারায় আমরা ওকেই ভোট দেবো

উত্তর তারাবুনিয়ায় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আলহাজ্ব মোঃ ইব্রাহিম খলিল প্রধানীয়া সকলের দোয়া ও সমথর্ন কামনা করেছেন

উত্তর তারাবুনিয়ায় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আলহাজ্ব মোঃ ইব্রাহিম খলিল প্রধানীয়া সকলের দোয়া ও সমথর্ন কামনা করেছেন

আমান আহম্মেদ সজিব //শরীয়তপুর প্রতিনিধি:
আসন্ন উত্তর তারাবুনিয়ায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছে ও উত্তর তারাবুনিয়া ইউনিয়নের সাধারণ মানুষের খোজ খবর নিচ্ছে। এবং ইউনিয়নবাসী সকলের কাছে দোয়ার প্রত্যাশা করেছেন। আলহাজ্ব মোঃ ইব্রাহিম খলিল প্রধানীয়া। আসন্ন উত্তর তারাবুনিয়ায় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে জনপ্রিয়তায় রয়েছেন তিনি।

জনসেবার কারণে সাধারণ মানুষের কাছে তিনি অত্যন্ত আস্থাভাজন ব্যক্তি হিসেবে অল্প সময়ে সু-পরিচিতি লাভ করেছেন এবং একজন উদীয়মান, দানবীর, ধর্মপরায়ন,অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী ব্যাক্তি,গরীব দুখী মানুষের আস্থাভাজন
সমাজ সেবক হিসেবে দীর্ঘদিন ধরে তিনি নিজেকে ব্যস্ত রেখেছেন, সাধারণ মানুষের সেবায় । সাধ্য অনুযায়ী সাহায্য করে যাচ্ছে সাধারণ মানুষদের । নদী ভাঙ্গন কবলিত মানুষদের সাহায্য করে আসছেন, মহামারী করােনায় ছিলেন সাধারণ মানুষের পাশে । করােনার এই মহা দুর্যোগেও তিনি শুরু থেকে তার সাধ্য অনুযায়ী সাধারণ মানুষের পাশে থেকে
খোজ খবর নিতেন, এবং বিভিন্ন ধরনের সাহায্য সহযােগিতা করে গেছেন । তিনি নিজেকে মানুষের সেবায় উৎসর্গ করে দিতে চান।

শনিবার ২০নভেম্বর উত্তর তারাবুনিয়ার বিভিন্ন ওয়ার্ডে
গনমিছিল ও সোডাউন দেওয়া হয়। এসময়
স্থানীয়রা জানান মোঃ ইব্রাহিম খলিল প্রধানীয়া আমাদের বিপদে আপদে এগিয়ে আসেন । রাত – দিন যখনই ডাকি আমরা তাকে পাশে পাই । আসন্ন উত্তর তারাবুনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে, নির্বাচনে দলমত নির্বিশেষে উন্নয়নের স্বার্থে তারা আলহাজ্ব মোঃ ইব্রাহিম খলিল প্রধানীয়া কে উত্তর তারাবুনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায়। এবং তার বিরুদ্ধে কোন দুর্নীতি ও রাষ্ট্রবিরোধী, কোন অভিযোগ নেই বলে জানান জনগন। তাই তাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করে যোগ্য পাত্রে অন্ন দান করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন একাধিক ভোটাররা।

ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে এবং উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার জন্য তাকে ভোট প্রদান করে বিজয় করার অঙ্গিকার করে জোট বেধেছে অধিকাংশ ভোটাররা। তিনি নির্বাচিত হলে এলাকায় মসজিদ,মাদ্রাসা, রাস্তা,ঘাট,শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের ব্যপক উন্নয়ন হবে। এছাড়াও মাদক, সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ মুক্ত হবে। গরীব দুখী মানুষের শেষ আশ্রয়স্থল অক্ষুন্ন থাকবে। আসন্ন উত্তর তারাবুনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনকে ঘিরে তাকে নিয়ে ভাবতে শুরু করেছে ভোটাররা। তাকে ছাড়া অন্য কোন প্রার্থীকে ভাবতে পারছেননা ভোটাররা। চায়ের দোকান, হাট-বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে প্রতিদিন তার গুনকীর্তন করছে জনগন। তাকে ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত করার লক্ষ্যে ভোটাররা ইতিমধ্যে বিভিন্ন জল্পনা কল্পনা শুরু করেছে।

তিনি বর্তমানে এলাকায় ধর্মীয় অনুষ্ঠান,শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ সকল ধরনের সামাজিক কর্মকান্ডে অংশগ্রহন করে যাচ্ছে এবং এছাড়াও তিনি এলাকায় মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ,বাল্যবিবাহসহ সকল অপরাধমুলক বিষয়ে প্রতিবাদী ব্যাক্তি নামে সুপরিচিত হয়েছেন।

অসহায় মানুষরা তাকে ডাক দিলেই হাতের নাগালে পান। করোকালীন সময়ে তিনি গরীব দুখী মানুষের পাশে থেকে বিভিন্ন সময় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়ে মানবতার ফেরীওয়ালা হিসেবে উপাধী পেয়েছেন। একাধিক ভোটাররা জানান তিনি সৎ, মার্জিত, শিক্ষিত, ভদ্র স্বভাবী,প্রতিবাদী হওয়ায় এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে তার বিকল্প নেই।তিনি ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হলে সরকারের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে।

এক প্রবীন শিক্ষক জানান তিনি নির্বাচিত হলে কোন প্রভাবের কারনে অন্যায়কারীরা পার পাবেনা। ইউনিয়ন ও সমাজের অপরাধের হার পুরোপুরি কমে যাবে।
সঠিক ভাবে ন্যায় বিচার পাবে উত্তর তারাবুনিয়া ইউনিয়নের জনগন।

আসন্ন উত্তর তারাবুনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আলহাজ্ব মোঃ ইব্রাহিম খলিল প্রধানীয়া গণমাধ্যম কে জনগনের উদ্দেশ্য করে বলেন, আমাকে যদি জনগণ তাদের সেবা করার সুযােগ দেয়, তাহলে আমি নির্বাচিত হয়ে এই উত্তর তারাবুনিয়া ইউনিয়ন কে পরিবর্তন, উন্নয়ন পরিকল্পিত নিরাপদ একটি রােল মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়েতুলবো। আমার স্বপ্ন এই ইউনিয়নবাসীর সেবা করা ও সুখে দুঃখে পাশে থাকা।
এবং এছাড়াও মাদক, সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ মুক্ত হবে এই উত্তর তারাবুনিয়া ইউনিয়ন। তাই জননেত্রী শেখ হাসিনা ও পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের মাননীয় উপমন্ত্রী শরীয়তপুর ০২ আসনের সংসদ সদস্য নড়িয়া ও সখিপুর মানুষের উন্নয়নের রুপকার জননেতা জনাব এ কে এম এনামুল হক শামীম এমপি মহোদয়ের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

প্রচারেঃ উত্তর তারাবুনিয়ায় ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগণ।