উখিয়ায় পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সঃ লিঃ এর বার্ষিক সাধারণ সভা ও বনভোজন সম্পন্ন

কক্সবাজারের উখিয়া রাজাপালং ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের পশ্চিম ডিগলিয়া পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতি লিমিটেড এর উদ্যোগে বার্ষিক সাধারণ সভা ও বনভোজন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

 

০৬ জানুয়ারী ২০২২ বৃহস্পতিবার দুপুরে পশ্চিম ডিগলিয়া পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতি লিমিটেড এর কার্যালয়ে আয়োজিত বার্ষিক সাধারণ সভা ও বনভোজন অনুষ্ঠানে

প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদের তৃতীয় বারের মত নির্বাচিত সফল চেয়ারম্যান এবং রাবার ড্যামের অন্যতম অনুদান দাতা  সদস্য জননেতা জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী

 

উক্ত আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সমবায় অফিসার মোঃ সলিম উল্লাহ ও ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ সালাহউদ্দিন।

এতে সভাপতিত্ব  করছেন পশ্চিম ডিগলিয়া পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতি লিমিটেডের সভাপতি মাষ্টার দলিলুর রহমান, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ডাঃ সামশুল আলম, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোঃ সালাহউদ্দিন, কন্ট্রাক্টর ইউছুফ,ফরিদ আলম,তৈয়ব সিকদার, ইউনুছ, মোঃ বসর সহ অপরাপর এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

 

বার্ষিক সাধারণ সভা ও বনভোজন অনুষ্ঠান শেষে রাবার ড্যাম পরিদর্শন করেন অতিথিবৃন্দরা।

 

এ সমিতির স্থাপন করে ০১ অক্টোবর ২০১১। নিবন্ধন নং ১৭৮৫, তাং ৩০জানুয়ারী২০১২।

প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের টাকা লোপাট করলেন তাঁতী লীগ সম্পাদক

 

ডি এম রবিন: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার করোনাকালীন অসহায় সাধারণ নেতা-কর্মীদের জন্য দেওয়া অনুদানের ১০ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগটি কেন্দ্রীয় তাঁতী লীগের সাধারণ সম্পাদক খগেন্দ্র চন্দ্র দেবনাথের বিরুদ্ধে। তাই তার বহিষ্কার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে অসহায় তাঁতী লীগের নেতাকর্মীগণ।

লিফলেটের মাধ্যমে জানা যায়, খগেন্দ্র চন্দ্র দেবনাথ অনুদানের টাকা অসহায় নেতা-কর্মীদের মধ্যে বিতরণ না করে নিজেই আত্মসাৎ করেন। এতে করে আওয়ামী লীগ ও তাঁতী লীগের সুনাম বিনষ্ট হয়েছে। তাই দুর্নীতিগ্রস্ত খগেন্দ্র চন্দ্র দেবনাথের বহিষ্কার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে তাঁতী লীগের দুস্থ অসহায় নেতা-কর্মীরা বিনীত দাবি জানাচ্ছি।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে খগেন্দ্র চন্দ্র দেবনাথকে ফোন করা হলে তিনি বলেন, আমি জরুরি মিটিংয়ে আছি। পরে কথা হবে।

এ বিষয়ে তাঁতী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব ইঞ্জিনিয়ার মো. শওকত আলী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনাকালীন আমাদের ১৪ লাখ টাকা প্রদান করেছেন। কিন্তু এই টাকার থেকে ৪ লাখ টাকা সাধারণ সম্পাদক খগেন্দ্র চন্দ্র দেবনাথ থেকে আমি আদায় করতে সক্ষম হই। যা বর্তমানে আমাদের সংগঠনের ফান্ডে জমা আছে।

বগুড়া গাবতলী ইউপি নির্বাচনের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের জের ধরে নিসচা কর্মী নিহত

নিউজ২৪লাইন:

বগুড়ার গাবতলীতে ইউপি নির্বাচনে ভোট গ্রহণ চলাকালে দুই মেম্বার প্রার্থীর মধ্যে বিরোধের জের ধরে জাকির হোসেন নিসচা (৩৫) নামের একজনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

বুধবার (৫ জানুয়ারি) দুপুরে গাবতলী উপজেলার রামেশ্বরপুর ইউনিয়নের জাইগুলি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের বাহিরে এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়।

নিহত জাকির হোসেন জাইগুলি উত্তরপাড়া গ্রামের মৃত লয়া মিয়ার ছেলে। তিনি পেশায় রঙ মিস্ত্রির কাজ করতেন। নির্বাচনে তিনি মেম্বার প্রার্থী সাইদুল ইসলামের (টিউবওয়েল প্রতীক) সমর্থক হিসেবে কাজ করছিলেন।

স্থানীয়রা জানান, ভোট কেন্দ্রের বাহিরে ভোটারদেরকে উৎসাহিত করার কাজ করছিলেন সাইদুল ইসলামের টিউবওয়েল প্রতীকের কর্মী সমর্থকরা। এসময় সেখানে আরেক মেম্বার প্রার্থী মিঠু মিয়ার (ফুটবল প্রতীক) কর্মী সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এক পর্যায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হলে জাকির হোসেনকে প্রতিপক্ষের লোকজন ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুর আড়াইটার দিকে জাকির হোসেন মারা যান। এঘটনার পর ভোট কেন্দ্র ও তার আশেপাশে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। আতঙ্কে ভোট কেন্দ্র ফাঁকা হয়ে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

গাবতলী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জিয়া লতিফুল ইসলাম বলেন, মেম্বার প্রার্থীদের মধ্যে বিরোধের জের ধরে ভোট কেন্দ্রের বাহিরে গ্রামের মধ্যে হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। নিহতের মরদেহ