১-৭ মে ৬ষ্ঠ জাতীয় গণমাধ্যম সপ্তাহ শুরু

নিউজ২৪লাইন:

ঢাকা ৩০ এপ্রিল ২০২২খ্রী: ৬ষ্ঠ বারের মত ১-৭ মে ২০২২ দেশব্যাপী উদযাপিত হচ্ছে জাতীয় গণমাধ্যম সপ্তাহ। এবছর সাংবাদিকদের এই সপ্তাহটিকে ঘিরে তেমন থাকছেনা অনুষ্ঠানমালার আয়োজন। সাংবাদিকদের অধিকার ও পেশার মর্যাদা রক্ষায় বিএমএসএফ গত ৫ বছর ধরে দেশব্যাপী এই সপ্তাহটির রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি চেয়ে উদযাপন করে আসছে।

এ বছর বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের ৩ শতাধিক শাখা কমিটির সদস্যরা শুধু প্রচার প্রচারণা আর পারস্পারিক যোগাযোগ সমন্বয়ের মধ্য দিয়ে সপ্তাহটি উদযাপনের প্রস্তুতি নিয়েছে। পাশাপাশি সপ্তাহটিকে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি পেতে ২৪ এপ্রিল থেকে এমপিদের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট স্মারকলিপি পাঠানো অব্যাহত আছে, যা ৭ মে পর্যন্ত চলবে।

১-৭ মে জাতীয় গণমাধ্যম সপ্তাহের মাঝে পহেলা মে শ্রমিক দিবস ও পবিত্র ঈদ উল ফিতরের কারণে এ বছর থাকছে না বর্ণাঢ্য র‌্যালী-সমাবেশ কিংবা বড় আয়োজন।

শাখাগুলোতে সপ্তাহব্যাপী লিফলেট বিতরণ, ৩ মে বিশ্বমুক্ত গণমাধ্যম দিবস, কুইজ প্রতিযোগিতা, বৃক্ষরোপনসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ থাকছে বিনামূল্যে সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচী।

সপ্তাহটি উপলক্ষে ৭মে’র আলোচনায় দেশ ও জাতির কল্যাণে সাংবাদিকদের ভুমিকা, অতীত ঐতিহ্য, সমস্যা, সম্ভাবনা, অধিকার ও ১৪ দাবি আদায় নিয়ে কথা হবে।

সংগঠনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে দেশে বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষের যেমন: শিক্ষা সপ্তাহ, স্বাস্থ্য সপ্তাহ, কৃষি সপ্তাহ, মৎস্য সপ্তাহ, পুলিশ সপ্তাহ, পুষ্টি সপ্তাহ, প্রাণী সপ্তাহ, আনসার সপ্তাহ, ফায়ার সপ্তাহ, সহ বিভিন্ন সপ্তাহ ও অগনিত দিবস রয়েছে। কিন্তু একমাত্র গণমাধ্যম অঙ্গনে কোন সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচী নেই এবং ৩ মে বিশ্বমুক্ত গণমাধ্যম দিবস বিশ্বের সকল দেশে রাষ্ট্রীয় ভাবে উদযাপিত হলেও তা বাংলাদেশে ব্যতিক্রম।

গণমাধ্যম সপ্তাহের প্রবক্তা, বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা ও বোর্ড অব ট্রাস্টি চেয়ারম্যান আহমেদ আবু জাফর গণমাধ্যম সপ্তাহ ২০২২ উপলক্ষে গণমাধ্যম,সাংবাদিক ও দেশবাসির প্রতি শুভেচ্ছা, অভিনন্দন জানিয়ে সপ্তাহটি রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির পেতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

এদিকে কেন্দ্রীয় সভাপতি সোহেল আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক শিবলী সাদিক খান সাংবাদিকদের প্রাণের দাবি জাতীয় গণমাধ্যম সপ্তাহটি উদযাপনে সকল গণমাধ্যম, সাংবাদিক, প্রশাসন ও দেশবাসির সহযোগিতা কামনা করেছেন।

নসিংহপুর ফেরীঘাটে পাড়া পারের অপেক্ষায় রয়েছে ৫ সতাধিক গাড়ি

নিউজ২৪লাইন:

আমান আহম্মেদ সজিব //

ভেদরগঞ্জ
বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌপথে যাত্রীবাহী বাস, পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার বন্ধ ও পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এমনটা জানিয়েছেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীন সংস্থার (বিআইডাব্লিউটিসির) কর্মকর্তারা। এ কারণে শরীয়তপুর-চাঁদপুর নৌপথের নরসিংহপুর ফেরিঘাটে পণ্যবাহী ট্রাকের তীব্র জট সৃষ্টি হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে ঘাটটিতে পার হওয়ার জন্য ফেরির অপেক্ষায় ৫ শতাধিক গাড়ি সড়কে অপেক্ষা করছে।

বিআইডাব্লিউটিসি সূত্রে জানা গেছে, শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলায় শরীয়তপুর-চাঁদপুর নৌপথের নরসিংহপুর ফেরিঘাট। অন্যদিকে চাঁদপুর প্রান্তে সদর উপজেলার হরিণায় আরেকটি ঘাট। এ নৌপথের দুটি ঘাট ব্যবহার করে চট্টগ্রাম বিভাগের সঙ্গে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার পণ্য ও যাত্রীবাহী গাড়ি চলাচল করে। বাংলাবাজার-শিমুলিয়া, পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে যাত্রীবাহী বাস ও পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তাই নরসিংহপুর ফেরিঘাটে চাপ বেড়ে যায়। এই নৌপথটিতে পণ্য ও যাত্রীবাহী গাড়ি পারাপারের জন্য সাতটি ফেরি চলাচল করে। গত সোমবার দুটি ফেরি বিকল হয়ে পড়ে। পরে তা মেরামতের জন্য পাঠানো হয়। মেরামত শেষ করে ওই দুটি ফেরি শুক্রবার সকাল থেকে নৌপথে চলাচল করছে।
খুলনা থেকে আসা পণ্যবাহী ট্রাকচালক জালাল হোসেন বলেন, ‘আমাদের ভোগান্তির শেষ নেই। গতকাল ঘাটে এসেছি এখনো বসা রয়েছি। কবে যে জাইতে পারবো বলতে পারিনা। অতিরিক্ত খাওয়ার খরচ, গোসলের কষ্ট, টয়লেটের কষ্ট হচ্ছে, কী আর করব।

জানতে চাইলে ট্রাফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ খোরশেদ আলম বলেন, ফেরীর সংকট তার বিতরে আবার কামিনি ফেরিটি নষ্ট হয়ে গেছে, তাই একটু জানযোট সৃষ্টি হয়েছে, দুটি ফেরি বারিয়ে দিলে আর এই সমস্যা থাকবেনা। আমরা বিআইডাব্লিউটিসি কে অবগত করেছি।

এবিষয়ে শরীয়তপুর-চাঁদপুর নৌপথের নরসিংহপুর ফেরিঘাটের ব্যবস্থাপক আব্দুল মোমেন গণমাধ্যমকে বলেন, ঈদে যাত্রীদের দুর্ভোগ কমাতে তিনটি নৌপথে পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার বন্ধ রয়েছে। তাই এ ঘাটে ট্রাকের চাপ বৃদ্ধি পেয়েছে। এ ছাড়া ফেরি বিকল ছিল। তাই অপেক্ষারত ট্রাকগুলো পারাপার করাতে কিছুটা সময় লাগবে।

শরীয়তপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলন এর ঈদ উপহার বিতরণ

আমান আহমেদ সজীব :

নিউজ২৪লাইন:

শরীয়তপুরে -শরীয়তপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলন এর  শরীয়তপুর জেলা শাখার এর পক্ষ থাকে  গরীবও অসহায়াদের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

২৭ এপ্রিল শরীয়তপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলন – শরীয়তপুর , জেল শাখার   সভাপতি সাংবাদিক ফারুক আহমেদ মোল্লার সভাপতিত্বে  গরিব ও অসহায় মানুষের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হয়      শাখার সাধারণ সম্পাদক -সোহাগ খান সুজন এর সঞ্চালনায়।

প্রধান  অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,

শরীয়তপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলন কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা ও স্পেন বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি বিশিষ্ট দানবীর এইচ এম রাসেল হাওলাদা।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন

এ্যড.জাহাঙ্গীর বেপারী, সভাপতি শরীয়তপুর সদর উপজেলা আওয়ামিলীগ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন

এস এম আবুল কালাম আজাদ সভাপতি শরীয়তপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলন কেন্দ্রীয় কমিটি।

খালিল শেখ, সহ সভাপতি শরীয়তপুর প্রেসক্লাব।
মোঃ আবুল খায়ের খান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম(বি এম এস এফ) কেন্দ্রীয় কমিটি।

মোঃ সাহাদাত হোসেন হিরু  সহ সাংগঠনিক সম্পাদক শরীয়তপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলন কেন্দ্রীয় কমিটি।
অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,
সাংবাদিক এস এম শফিকুল ইসলাম স্বপন সময়ের আলোর জেলা প্রতিনিধি,
মোহনা টেলিভিশন শরীয়তপুরের প্রতিনিধি মাহবুবুর রহমান ,মাই টিভি শরীয়তপুর প্রতিনিধি এবিএম মামুন  প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক শাহিন আলম,

সাংবাদিক জি-কে সানজিদ

শরীয়তপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলন জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আমান আহমেদ সজীব সখিপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলন এর মোঃ সাদ্দাম হোসেন শখিপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলন মোঃ রুহুল আমিন।

শরীয়তপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলন    জেলা শাখার, কোষাধ্যক্ষ আমির সিকদার,দপ্তর সম্পাদক মোঃটিটুল মোল্লা
শরীয়তপুর জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে শরীয়তপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলন এল নেএী বিন্দু উপস্থিত ছিলেন

প্রধান  অতিথির বক্তব্যে,
এইচ এম রাসেল হাওলাদার বলেন,শরীয়তপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলন এর মতো সামাজিক সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত রাখতে পেরে  নিজেকে ধন্য মনে হচ্ছে শরীয়তপুর নাগরী অধিকার আন্দোলন একটি অরাজনৈতিক সংগঠন এই সংগঠনের  মাধ্যমে আমরা দেখেছি অসহায় মানুষের পাশে থেকে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন   বিশেষ করে শরীয়তপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলনের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি এসএম আবুল কালাম আজাদ গঠনের জন্য যেভাবে শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন তাকে আমার পক্ষ থেকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।   তাই আমি শরীয়তপুর জেলার সকল সচেতন নাগরিকদের কে বলব আসুন আমরা শরীয়তপুর নাগরিক অধিকার আন্দোলনের সাথে থেকে অসহায় মানুষের পাশে থেকে  কাজ করে যাব।