শরীয়তপুরের তিন সংসদ সদস্যের করোনা শনাক্ত, যোগ দিতে পারেননি প্রধানমন্ত্রীর জনসভায়

নিজস্ব প্রতিবেদক 

নিউজ২৪লাইন:

শরীয়তপুরের তিনজন সংসদ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ কারণে তাঁরা পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার কাঁঠালবাড়িতে অনুষ্ঠিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভায় যোগ দিতে পারেননি।

এই তিন সংসদ সদস্য হলেন শরীয়তপুর-১ আসনের ইকবাল হোসেন অপু, শরীয়তপুর-২ আসনের ও পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম এবং শরীয়তপুর-৩ আসনের নাহিম রাজ্জাক। এ ছাড়া শরীয়তপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে।দলীয় সূত্রে জানা গেছে, পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে আওয়ামী লীগের জনসভায় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এই জনপ্রতিনিধি ও নেতাদের মঞ্চে থাকার কথা ছিল। এ কারণে ৭২ ঘণ্টা আগে তাঁদের করোনা পরীক্ষা করে স্বাস্থ্য বিভাগ। শুক্রবার তাঁদের প্রতিবেদনে করোনা পজিটিভ আসে।
আজ শনিবার পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম নিজের ফেসবুক পেজে পোস্ট করে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি জানান।
শরীয়তপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্রশাসক ছাবেদুর রহমান সিকদার প্রধানমন্ত্রীর সভামঞ্চে বক্তব্য দেওয়ার সময় তিন সংসদ সদস্য ও শরীয়তপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের করোনা শনাক্তের বিষয়টি জানান। তিনি বক্তব্যে তাঁদের রোগমুক্তির জন্য সবার দোয়া চান।

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম মুঠোফোনে বলেন, ‘আমাদের স্বপ্নের পদ্মা সেতুর শুভ উদ্বোধন করছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওই অনুষ্ঠান সফল করার লক্ষ্যে আমি, ইকবাল হোসেন অপু ও নাহিম রাজ্জাক গত এক মাস ধরে কাজ করে যাচ্ছিলাম। গতকালও (শুক্রবার) বিকেল পর্যন্ত ছিলাম। আমাদের দুর্ভাগ্য গতকাল রাতে তিনজনেরই কোভিড পজিটিভ রিপোর্ট আসে। এ কারণে আমরা অনুষ্ঠানমঞ্চে উপস্থিত থাকতে পারিনি।’

ছাত্রলীগের মূলনীতি কে দুর্গতি বললেন ইউপি চেয়ারম্যান তার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিলও সমাবেশ

 

কক্সবাজারের উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের এম গফুর উদ্দিন চৌধুরী ( M Gafur Uddin chy) নামক ফেইসবুক আইডি থেকে ছাত্রলীগের মূলনীতি নিয়ে লেখা বিরুপ স্ট্যাটাস সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। তার প্রতিবাদে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পালংখালী ইউনিয়ন শাখার পক্ষ থেকে এক বিক্ষোভ মিছিল করা হয়। পরে উক্ত স্টেশনের আনোয়ারা টাওয়ারের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

 

২৩জুন (বৃহস্পতিবার)-২০২২ইং থ্যাংখালী স্টেশনে বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে ছাত্রলীগের সভাপতি জুনায়েদের নেতৃত্বে ও ছাত্রলীগ নেতা শেখ নিশানের সঞ্চালনায় এই বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন, ছাত্রলীগ নেতা মুবিন, ইমরান, জিশান নয়ন, মামুন,যুবলীগ নেতা মুফিদুল আলম মুফিজ, মৎস্যজীবী নেতা গিয়াস উদ্দিনসহ আরও অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

উক্ত প্রতিবাদে এসময় উপস্থিত ছাত্র লীগের নেতা কর্মীসহ অনেকে বক্তব্য রাখেন।

 

সভাপতি জুনাইদের বক্তব্যে বলেন, আমরা ছাত্রলীগ নেতা কর্মীরা ছাত্র রাজনৈতিক করি জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে বুকে ধারণ করে। এটাই কি আমাদের অপরাধ? আমরা ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা কোন দোষ করলে আমাদের কে শাসন করার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আছে। কিন্তু আমাদের দোষ কি ছিলো? আমাদের প্রাণের সংগঠন ছাত্রলীগের স্লোগান নিয়ে কটুক্তি করে ফেইসবুকে পোস্ট দেওয়ার। সে যদি ফেইসবুক বা জনসম্মুখে এসে ক্ষমা না চাই তাহলে আমরা কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে ছাত্র লীগের বিরুদ্ধে কথা বলার জবাব দিব।

সাধারণ সম্পাদক শহিদুল্লাহ বক্তব্যে বলেন, ছাত্রলীগ একটি সুশৃংখল আদর্শবান বৃহত্তর ছাত্র সংগঠন। এই সংগঠনের বিরুদ্ধে কেউ বাজে মন্তব্য করলে আমরা দাঁতভাঙ্গা জবাব দিব। চেয়ারম্যান সাহেব যদি ফেইসবুকে বা জনসম্মুখে এসে ক্ষমা না চাই তাহলে আমরা তার প্রতিবাদে পাল্টা জবাব দিতে প্রস্তুত আছি।

 

ইতি মধ্যে পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদে তৃতীয়বারের মতো চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব পালন করছেন এম গফুর উদ্দিন চৌধুরী।

 

স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেও তাঁকে বিএনপি সমর্থক বলে দাবী স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা কর্মীদের।

 

অন্যদিকে, চেয়ারম্যান তার ফেসবুক আইডি হ্যাক করা হয়েছে বলে দাবি করেন৷