বিএনপি প্রতিহিংসার রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না শামা ওবায়েদ

নিউজ২৪লাইনঃ

শরীয়তপুর প্রতিনিধি ঃ
বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ বলেছেন, বিএনপির আন্দোলনই, এখন জনগণের আন্দোলন। সারা বাংলাদেশ একদিকে আর আওয়ামী লীগ একদিকে। আওয়ামী লীগ প্রতিহিংসার রাজনীতি করে। অন্যদিকে, বিএনপি প্রতিহিংসার রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না। এটাই বিএনপি, এটাই জনগণের দল।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান সরকার মিথ্যাচারের মাধ্যমে ক্ষমতায় ঠিকে আছে। সরকারের লুটপাট ও দুর্নীতির কারণে দেশের অবস্থা ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। ভেঙ্গে পড়েছে অর্থনৈতিক অবস্থা। তাই বর্তমান সরকারের জুলুম, নির্যাতন ও অত্যাচারের হাত থেকে দেশের জনগণকে রক্ষা করতে হবে। এজন্য বিএনপির সকল নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে হবে। আর এই সরকারের সময় ফুরিয়ে এসেছে। ফুঁসে উঠছে জনগণ। অচিরেই এ সরকারের বিদায় ঘণ্টা বেজে উঠবে।

আজ সোমবার (৯ জানুয়ারী) বিকেলে ধানুকা এলাকায় শরীয়তপুর জেলা বিএনপির আয়োজনে অনুষ্ঠিত “বিএনপি ঘোষিত আন্দোলনের ১০ দফা এবং রাষ্ট্র কাঠামো মেরামতের রূপরেখা বিষয়ে ব্যাখ্যা ও বিশ্লেষণ ধমী আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শরীয়তপুর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক, সাবেক এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা সরদার একেএম নাসির উদ্দীন কালু’র সভাপতিত্বে ও কার্যকরী সহ-সভাপতি শাহ মোঃ আব্দুস সালামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন, বিএনপির স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ রফিকুল ইসলাম।

বিশেষ অতিথি ছিলেন, বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক খন্দকার মাশুকুর রহমান।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, , শরীয়তপুর জেলা বিএনপির সহ-সভাপতিও শরীয়তপুর জেলা কৃষক দলের সভাপতি বিএম হারুন অর রশীদ, সহ-সভাপতি আলহাজ্ব সিরাজুল হক মোল্যা,৷ সমাজ সেবক মজিবুর রহমান, আবুল হোসেন সরদার, অ্যাড. জাহাঙ্গীর আলম কাশেম, যুগ্ম সম্পাদক মাহবুব মোর্শেদ টিপু, পৌরসভার সভাপতি অ্যাড. লুৎফর রহমান, জেলা দপ্তর সম্পাদক অ্যাড. কামরুল হাসান, যুবনেতা অ্যাড. মৃধা নজরুল কবির, আজাদ মাল, ছাত্রনেতা পান্থ তালুকদার সহ জেলা বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ।

পরে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং তারেক রহমান ও ডাঃ জোবাইদা রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা এবং সম্পত্তি ক্রোকের আদেশের প্রতিবাদে ধানুকা এলাকায় বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

শরীয়তপুরে প্রতিবন্ধী ও দুস্থদের মাঝে কম্বল বিতরণ

নিউজ২৪লাইনঃ
নুরুজ্জামান শেখ, শরীয়তপুর থেকে।

শরীয়তপুর সদর উপজেলা মসজিদ অডিটরিয়ামে প্রতিবন্ধী ও দুস্থদের মাঝে শীতের কম্বল বিতরণ করা হয়। ১০ জানুয়ারি ২০২৩ সকাল ১১ টার সময় সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপস্থিত ৪০ জন প্রতিবন্ধী ও অসহায় শিশু ও দুস্তুতের মাঝে শীতের কম্বল বিতরণ করেন। কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রতিবন্ধী ও অসহায় দুস্থদের হাতে কম্বল তুলে দেন মোসাম্মৎ নুরজাহান হোসেন, সভাপতি জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থা, শরীয়তপুর। কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মোসাম্মদ মনিজা খাতুন, সহকারি কমিশনার (ভূমি) শরীয়তপুর সদর উপজেলা। সাবিনা ইয়াসমিন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শরীয়তপুর সদর উপজেলা। শীতবস্ত্র কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন জ্যোতি বিকাশ চন্দ্র, নির্বাহী কর্মকর্তা, শরীয়তপুর সদর উপজেলা।
কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রতিবন্ধী ও দুস্থদের উদ্দেশ্য করে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন প্রধান অতিথি এবং বিশেষ অতিথি বৃন্দ।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মোসাম্মৎ নুরজাহান হোসেন বক্তব্যে বলেন প্রতিবন্ধী শিশুরা সমাজের বোঝা নয় তারাও কারো না কারো পরিবারের সন্তান। প্রত্যেক পরিবারের অভিভাবকেরই তাদের সাথে ভালো আচরণ ভালো ব্যবহার করতে হবে। তাদের গড়ে তুলতে হবে মানব সম্পদে।

ফুটবল খেলা কে কেন্দ্র করে এক ছাত্রকে হত্যার উদ্দেশ্যে বেধড়ক মারধর, আহত ইসমাইল

আহত ইসমাইল

নিজস্ব প্রতিবেদক;

পোকখালী ইউনিয়ন ০৪ নং ওয়ার্ড মালমুরা পাড়ার বাসিন্দা ইসলামের পুত্র ইসমাইল কে একই এলাকার সিরাজুল ইসলামের তিন সন্তান এরশাদ,ইমরান ও ইয়াসিন সহ পিতার সহযোগিতায়, ০৮/০১/২৩ ইং রোজ রবিবার রাত আনুমানিক ৯ টার সময় বাড়ি ফেরার পথে মালমুরা পাড়াস্থ দিঘীর পাড় নামক স্থানে পৌঁছালে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা সন্ত্রাসীরা হত্যার উদ্দ্যেশ্যে দা দিয়ে কোপ মেরে মাথার উপর ভাগে আঘাত করার ফলে মাথা ফেটে রক্তাক্ত কাটা জখম সহ মারাত্মকভাবে আহত হয়।

গুরুতর জখমী ইসমাইল!

লোহার রড় দ্বারা এলোপাতাড়ি বারি মারলে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে ইসমাইল। আহত ঈসমাইল বর্তমানে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পুরুষ সার্জারি বিভাগে ভর্তি আছে। সে মূমুর্ষ অবস্থায় চিকিৎসাধীন আছে। এই বিষয়ে আহত ব্যাক্তি ইসমাইলের সাথে কথা বললে জানান”,গত কয়েক দিন আগে আমরা কয়েক জন মিলে ফুটবল খেলার সময় তাদের পায়ের সাথে পায়ের আঘাত লাগলে তাদের সাথে মৌখিক তর্কবিতর্ক সৃষ্টি হয়। ঐ সময় আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দেন।সেই তর্কবিতর্কের জের ধরে আমি বাড়ি ফেরার পথে আমার পথ আটকিয়ে আমাকে দা দিয়ে কোপ মারে ও লোহার রড় দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়েছে”।