শরীয়তপুরে মেয়েকে উত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় মা-মেয়েসহ পরিবারের উপর বখাটের হামলা

নিউজ২৪লাইন:

আমান আহমেদ সজিব
স্টাফ রিপোর্টার:

স্কুলে যাওয়ার পথে প্রতিদিনই বখাটেরা উত্যক্ত করত এক স্কুল শিক্ষার্থীকে। স্কুল থেকে ফেরার পথে বখাটে মামুন বেপারি ওই স্কুল শিক্ষার্থী কিশোরীকে অশ্লিল কথা বললে কিশোরী বাড়িতে এসে বিষয়টি তার মাকে জানায়। তার মা মামুন বেপারীর অভিভাবকদের জানালে ক্ষিপ্ত হয়ে মা-মেয়েসহ পরিবারের লোকজন কে মারধর করে ওই শিক্ষার্থীর চাচার দোকান ভাঙচুর করেছে মামুন বেপারী ও তার বন্ধুরা।

বৃহস্পতিবার (৯ নভেম্বর) রাতে শরীয়তপুরের সখিপুর থানায় এবিষয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ভূক্তভোগী শিক্ষার্থীর চাচা। পুলিশ বলছে ঘটনার তদন্ত করে নেওয়া হবে উপযুক্ত আইনী ব্যবস্থা।

বখাটে মামুন বেপারী সখিপুর থানার চরভাগা ইউনিয়নের মধ্য ঢালী কান্দি গ্রামের মজিবর বেপারীর ছেলে।

স্থানীয় ও ভূক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, চরভাগা ইউনিয়নের মৃধা কান্দি এলাকার মো. মজিবর বেপারির ছেলে মামুন বেপারি (২৫) অনেকদিন ধরে ওই স্কুল ছাত্রীকে উত্যক্ত করে আসছে। বুধবার(৮ নভেম্বর) স্কুল থেকে ফেরার পথে মেয়েটিকে জোরপূর্বক অটোরিকশায় তোলে। এসময় কিশোরীকে মামুন বেপারী ও তার সঙ্গীরা অশ্লীল কথা বলতে থাকে। আত্মরক্ষার্থে ওই কিশোরী চিৎকার-চেচামেচি করলে মামুন তাকে অটোরিক্সা থেকে নামিয়ে দেয়। পরবর্তীতে মেয়েটি বাসায় গিয়ে বিস্তারিত তার মাকে জানায়। মেয়েটির মা বিষয়টি মামুনের অভিভাবক ও স্থানীয় মুরব্বিদের জানান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওইদিন বিকেলে মামুন বেপারি, রাজন মোল্লা, ফরাদ মোল্লা, ফয়সাল, সজিবসহ ২০ থেকে ২৫ জন এসে প্রথমে ওই স্কুল শিক্ষার্থীর চাচার দোকান ভাঙচুর করার পর ওই শিক্ষার্থীর মা, চাচা, চাচি, ফুফুসহ পাঁচ জনকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে বখাটেরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে ভেদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে নিয়ে যায়।

৮ম শ্রেণি পড়ুয়া ঐ স্কুল শিক্ষার্থীর সামনে পরিক্ষা রয়েছে , ভয়ে এখন স্কুলে যেতে পারছে না, নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে জনান তার পরিবার, এবং এর সুস্থ বিচার চেয়েছেন উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম এমপি মহোদয়ের নিকট।

থানায় অভিযোগ দায়ের করা ভূক্তভোগী ওই শিক্ষার্থীর চাচা বলেন, আমার ভাতিজিকে ওরা দীর্ঘদিন ধরে বিরক্ত করত। ভাবি এসবের প্রতিবাদ করায় বাড়ির মহিলাদের পিটিয়েছে তারা। আমার দোকান ভাঙচুর করেছে। আমি থানায় অভিযোগ করেছি। বিষয়টির উপযুক্ত বিচার দাবি করছি আমি।

এবিষয়ে চরভাগা ইউনিয়নের ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য বাচ্চু প্রধানীয়া বলেন, ঘটনাটি আমার এলাকার। আমি বিষয়টি জানার পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে জানতে পারি ওই স্কুল শিক্ষার্থীকে প্রতিনিয়ত ওরা উত্যক্ত করতো। ওইদিন মেয়েটির মা প্রতিবাদ করায় তাদের ওপর হামলা চালিয়েছে মামুন বেপারিসহ ২০ থেকে ২৫ জনের একটি দল। একজন ইউপি সদস্য হিসেবে এর উপযুক্ত বিচার দাবি করছি আমি।

অভিযুক্ত বখাটেরা পালাতক থাকায় তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তাদের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তারা কল রিসিভ করেননি।

এবিষয়ে সখিপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান হাওলাদার বলেন, থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ভূক্তভোগী। বিষয়টি তদন্ত করে উপযুক্ত আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

একজন তরুণ আদর্শবান পুলিশ অফিসারের ইয়াসিন গাজী

নিউজ২৪লাইন:
১৯৭১সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্নত্যাগের স্বীকৃতি হিসেবে ‘স্বাধীনতা পদকে’ভূষিত হওয়া বাংলাদেশ পুলিশের সততায়, বীরত্বপূর্ন কাজে, দক্ষতায়, কর্তব্যনিষ্ঠায় অবদান অনেক।

সত্যিকারের দায়িত্বশীল ও নিষ্ঠাবান পুলিশ আইন মেনে যেমন পেশাগত দায়িত্ব পালন করেন তেমনি তাদের অনেক সততার, নৈতিকতার, মানবিকতার গল্প আমাদের অজানা।

আমরা সিনেমাতে দেখে থাকি কোন এলাকার আইনশৃঙ্খলার অবনতি হলে সেই এলাকায় একজন সৎ, নির্ভিক, দক্ষ, সাহসী ও মানবিক পুলিশ অফিসার পাঠানো হয়। যিনি অন্যায়ের সঙ্গে আপোসহীন থাকার কারণে ওই এলাকার মানুষের কাছে জনপ্রিয় পুলিশ হিসেবে বিশেষ পরিচিতি পান।

সিনেমার মতো হুবহু না হলেও বাস্তবে বাংলাদেশ পুলিশে এ ধরনের অনেক কর্মকর্তাকে দেখা যায়। যারা খুব কম সংবাদের শিরোনাম হন।

যাদের কাছে সরকারি চাকরি মানে ক্ষমতার দাপট নয়, যাদের কাছে সরকারি চাকরি মানেই কর্তৃত্বের বড়াই নয়।
তাদের কাছে সরকারি চাকরি মানে পেশাগত দায়িত্ব পালন। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ এর বাড্ডা থানার নবনিযুক্ত অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন ইয়াসিন গাজী। বিভিন্ন থানা এলাকায় নিজ দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি সাধারণ মানুষেকে সাধ্য অনুযায়ী সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দেয়ার কারনে মানবতার ফেরিওয়ালা হিসেবে তিনি পরিচিতি সবার কাছে। তাছাড়া বিভিন্ন ধরনের সামাজিক কার্যক্রমে অংশগ্রহন, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, মাদক, জঙ্গিবাদ বন্ধে এলাকায় পুলিশের বিট মিটিং করে জন সচেতনতা গড়ে তুলেন তিনি। ঘুষ দেয়া বা নেয়া বর্তমান সমাজে যেন এক অনিবার্য পরিণতির নাম। সেখানে তিনি বিনা ঘুষেই সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।
পুলিশের চাকুরি নিয়েছেন কেন? এমন প্রশ্নের জবাবে তরুণ পুলিশ অফিসার মো: ইয়াসিন গাজী বলেন, পুলিশে যোগদান করেছি মানুষের নিরাপত্তা ও সেবা করার মানসিকতা নিয়ে। কেননা পুলিশে মানুষকে সাহায্য- সহযোগীতা করার সুযোগ বেশি থাকে। আর আমি যে যে থানায় কর্মরত ছিলাম সেখানে আমার সিনিয়র স্যারদের দিক নির্দেশনা ও আন্তরিক সহযোগিতা সহ ওই থানা এলাকায় বসবাসরত সকলের কাছ থেকে ভাল কাজ করার অনুপ্রেরণা পাই। মাদকের কুফল ও ইভটিজিং-এর ব্যাপারে যুবকদের নিয়ে সময় পেলেই বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রচারণা চালিয়ে আসছি। যুব সমাজ যাতে নেশায় পথ ভ্রষ্ট ও নষ্ট না হয় তাই আমি এলাকার ক্লাবে, গলিতে গলিতে ও ব্যক্তি পর্যায় বিভিন্ন ধরনের পরামর্শ দিয়ে আসছি।
আমি কতটুকু সমাজকে বদলাতে পারবো জানিনা তবে যতদিন আছি ভালো কাজ করার চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ। সবশেষে বাড্ডাবাসীর নিকট একটা কথা বলতে চাই, পুলিশ ভিন্ন গ্রহের মানুষ নয়! পুলিশ আপনাদের পরিবারের সন্তান, আমরা কেউই ভুলের উর্ধ্বে নই, কর্মক্ষেত্রে আমাদেরও ভুল হতে পারে, সমাজকে সঠিক পথে পরিচালিত করতে আপনাদের সহযোগিতাও আমাদের একান্ত প্রয়োজন। অন্যায় অপরাধকে না করে আসুন পুলিশের সঙ্গে মিশুন, কর্তব্যরত কাজে সহযোগিতা করুন, আমরা চেষ্টা করবো আপনাদের নিরাপত্তার চাদরে রাখতে, শুভ হোক সকলের আগামীর দিন গুলো।

লেখক:

লায়ন গোলাম সরওয়ার পিন্টু

উপস্থাপক-
ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন টিম

প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি-
ঢাকা মহানগর প্রেসক্লাব

কানাইপুরে শামিম হক ফ্যান্স ক্লাবের পরিচিত সভা অনুষ্ঠিত

টিটুল মোল্লা,,ফরিদপুর।

ফরিদপুর সদর উপজেলার ৯ নং কানাইপুর ইউনিয়নে শামিম হক ফ্যান্স ক্লাবের পরিচিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ৮ নভেম্বর বুধবার বিকালে কানাইপুর বাসস্ট্যান্ডে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এ সময় শামিম হক ফ্যান্স ক্লাব কানাইপুর ইউনিয়ন শাখার নবনির্বাচিত সভাপতি সাকিব আহমেদ সেকেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন শামিম হক ফ্যান্স ক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা ও কোতয়ালী থানা আওয়ামীলীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইফুল ইসলাম নিলু। এ সময় শামিম হক ফ্যান্স ক্লাব কানাইপুর ইউনিয়ন শাখার নবনির্বাচিত সাধারন সম্পাদক এ.এস.এম. আসলাম এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলার ৯ নং কানাইপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি জুলফিকার আলী মিনু, সাধারন সম্পাদক সাইফুল আলম কামাল, শামিম হক ফ্যান্স ক্লাবের কোতয়ালী থানা শাখার সভাপতি রিজন মোল্যা, সাধারন সম্পাদক সোমা ইসলাম রেনু প্রমুখ। সভায় ফরিদপুর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শামিম হক এর বিভিন্ন সেবামুলক কাজের কথা তুলে ধরে বক্তারা আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শামীম হককে ফরিদপুর ০৩ আসনের নৌকার মনোনয়ন দেওয়ার কথা তুলে ধরেন। তারা বলেন শামিম হক ফ্যানস ক্লাব একটি রাজনৈতি সংগঠন না, এটি একজন মানুষের শুভাকাঙ্খি বা তার প্রতি ভালোবাসার বহি:প্রকাশ মাত্র। ফরিদপুর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শামিম হকের বিভিন্ন সেবামুলক কাজের সম্মান জানিয়ে তার শুভাকাঙ্খিরা এই শামিম হক ফ্যানস ক্লাবে সমবেত হয়েছেন। উপস্থিত বক্তারা আওয়ামীলীগের তৃণমুল পর্যায়ে একনিষ্ঠ কর্মি দাবি করে বলেন ফরিদপুর জেলা আওয়ামীলীগ অতিতের চেয়ে বর্তমান সভাপতির নেতৃত্বে বেশি শক্তিশালি ও সুসংগঠিত। এ ছাড়াও তিনি অসহায় মানুষের পাশে থেকে তাদের দু:খ দুর্দশা দুর করতে সর্বদা সচেষ্ট রয়েছেন, যা ইতিমধ্যে ফরিদপুর বাসীর চোঁখে পরেছে। তাই আওয়ামীলীগ সভানেত্রী বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি আকর্ষন করে আগামী সংসদ নির্বাচনে শামীম হককে ফরিদপুর ০৩ আসনের নৌকার মনোনয়ন দেওয়ার জোর দাবি জানান তৃণমুল আওয়ামীলীগের এ নেতৃবৃন্দরা। এ সময় শামিম হক ফ্যান্স ক্লাবের অন্যান্য সদস্যগনসহ আওয়ামীলীগ ও তার অংঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। সভা শেষে শামিম হক ফ্যান্স ক্লাব ৯ নং কানাইপুর ইউনিয়ন শাখা কমিটির নাম প্রকাশ ও তাদের পরিচিতি পর্বের মধ্য দিয়ে সভার আনুষ্ঠানিকতা শেষ করা হয়।